তিন ধাপে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল

স্পোর্টস এডিটর, বার্তা২৪.কম
বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফর নিয়ে অনিশ্চয়তা কেটে গেছে। পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। টি-টোয়েন্টি, টেস্ট এবং ওয়ানডে-সব ফরম্যাটের ক্রিকেটই হবে এই সিরিজে। তবে তিন ধাপে বাংলাদেশ দল এই সফরে যাচ্ছে।

দুবাইয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ও পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) শীর্ষকর্তাদের মধ্যে আলাপ-আলোচনা শেষে উভয় বোর্ড এই সিদ্ধান্তে পৌঁছায়।

সফরে টি-টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ ২৪, ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি। তারপর ৭ থেকে ১১ ফেব্রুয়ারি হবে একটি টেস্ট ম্যাচ। তৃতীয় ধাপে হবে একটি ওয়ানডে এবং সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট। তৃতীয় ধাপের এই ওয়ানডে হবে ৩ এপ্রিল এবং সিরিজের দ্বিতীয় এবং শেষ টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ৫ থেকে ৯ এপ্রিল।

সফরের শুরুতে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে লাহোরে। সিরিজের প্রথম টেস্টের ভেন্যু রাওয়ালপিন্ডি। একমাত্র ওয়ানডে এবং শেষ টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে করাচিতে।

এদিকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বার্তা২৪.কমকে জানান-‘বাংলাদেশ দল তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলার পরে দেশে ফিরে আসবে। তারপর টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য দল যাবে। আমরা আগেও এমন পরিকল্পনার কথা পাকিস্তানকে জানিয়েছিলাম। এখন পাকিস্তান সেই প্রস্তাবে রাজি হয়েছে।’

দুবাইয়ে দু’দেশের বোর্ডের মধ্যকার ফলপ্রসূ বৈঠক শেষে পাকিস্তান এই সিরিজের জন্য সূচির ঘোষণা দেয়। তবে সফরের টেস্ট সিরিজ নিয়ে বাংলাদেশ আগে তাদের যে পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল এখনো তারা সেই চিন্তা-ভাবনায় স্থির আছে।

জালাল ইউনুস বলছিলেন-‘টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে দল দেশে ফিরে আসার পর আমরা তাদের কাছে সেখানকার নিরাপত্তা পরিস্থিতি সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানবো। সেই অনুযায়ী টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

অর্থাৎ টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল যে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে তাতে কোনো অনিশ্চয়তা নেই।

কিন্তু টেস্ট সিরিজ?

এখনো খানিকটা অনিশ্চয়তা রয়েই যাচ্ছে বটে!

পাকিস্তান সফরে টেস্ট ম্যাচ খেলতে লম্বা সময়ের জন্য থাকতে রাজি ছিল না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। মূলত নিরাপত্তাই ছিল বাংলাদেশের এই আপত্তির মূল ইস্যু।

বাংলাদেশের এই আপত্তির প্রেক্ষিতে পাকিস্তান সফরটা কয়েকভাগে ভাগ করতে রাজি হয়। দুবাইয়ে আইসিসি সভাপতি শশাঙ্ক মনোহর বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের এই সভায় মধ্যস্থতা করেন। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান এহসান মানি এই সফরের সূচি প্রকাশের পর এক বিবৃতিতে বলেন-‘উভয় দেশের ক্রিকেটের স্বার্থে আমরা একটা ঐক্যমতে পৌঁছাতে সমর্থ হয়েছি। দুই দেশের মধ্যে ক্রীড়া উন্নয়ন সম্পর্ক যাতে আরো সুদৃঢ় হয় সেটা নিশ্চিত করতে আইসিসি সভাপতি শশাঙ্ক মনোহরের কার্যকর নেতৃত্বের জন্যও আমি তাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

আপনার মতামত লিখুন :