বয়স ৬০, তাই ফিট থাকলেও করোনাকালের ক্রিকেটে জায়গা নেই!



স্পোর্টস এডিটর, বার্তা২৪.কম
করোনায় বিপাকে আছেন ডেভ হোয়াটমোর

করোনায় বিপাকে আছেন ডেভ হোয়াটমোর

  • Font increase
  • Font Decrease

আইপিএল শুরু ও শেষের দিনক্ষণের ঘোষণা দিয়ে ফেলেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। সেই সঙ্গে করোনাভাইরাস মহামারির হাত থেকে রক্ষা পেতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিধিসহ বেশকিছু নির্দেশনা জারি করেছে। এই নির্দেশনাগুলোর পুরোটাই যে আবার খুব করে ক্রিকেটীয় যুক্তির মধ্যে পড়ে-তাও কিন্তু নয়। আর তাই নির্দেশনা জারির পরদিনই সমালোচনাও শুনতে হচ্ছে সৌরভ গাঙ্গুলির বিসিসিআইকে।

আগে শুনি মূল নির্দেশনা কি?

করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে বিসিসিআই পরিস্কার জানিয়ে দিয়েছে- ‘৬০ বছরের বেশি বয়সী, যারা ডায়াবেটিস, ফুসফুসে সমস্যা ও যাদের প্রতিরোধ ক্ষমতায় দুর্বলতা আছে-এমন ব্যক্তিদের কেউ কোন শিবিরের সঙ্গে যুক্ত হতে পারবেন না। কারণ এমন দুর্বল স্বাস্থ্যের ব্যক্তিদের শরীরে করোনাভাইরাস সহজেই সংক্রমণ ছড়াতে পারে।’

আর তাই ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেট এবং আইপিএলে এই তালিকায় পড়া কেউ আপাততভাবে যুক্ত হতে পারবেন না। নিয়মের এই গ্যাঁড়াকলে পড়ে গেছেন পশ্চিম বাংলার কোচ অরুণ লাল, বারোদা ক্রিকেট এসোসিয়েশনের বিদেশি কোচ ডেভ হোয়াটমোর।

ফিটনেস নিয়ে কোন সমস্যা না থাকলেও শুধু বয়স ৬০ এর বেশি, তাই তারা এই সময়ের ক্রিকেটের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারবেন না! বড় অদ্ভুত ঠেকছে নিয়মটা। অরুণ লাল এই নিয়মের সমালোচনা করে ভারতীয় একটি পত্রিকাকে জানিয়েছেন-‘আমার তো ফিটনেস নিয়ে কোন সমস্যা নেই। কিন্তু এই নির্দেশিকার কথা জেনে আমি তো অবাক! যার বয়স ৫৯, সে কোচিং করাতে পারে। কিন্তু আমার প্রশ্ন হলো তার কি করোনা হতে পারে না! আর আমার বয়স ষাটের বেশি বলে ফিট থাকলেও থাকতে পারবো না?’

৬৬ বছর বয়সী কোচ ডেভ হোয়াটমোর এই নির্দেশিকার যাতাকলে পড়ে বারোদার কোচের দায়িত্বও আপাতত পালন করতে পারছেন না। হোয়াটমোর রঞ্জি ট্রফিতে বারোদার কোচের চাকরি করছেন। চলতি বছর এপ্রিলে বারোদা ক্রিকেট এসোসিয়েশনের ক্রিকেট পরিচালকের দায়িত্বও পান তিনি।

কিন্তু করোনাকালীন নির্দেশিকায় ষাট বছর বয়সের এই বিধিবিধানের কারণে অরুণ লালের মতো ডেভ হোয়াটমোরকেও আপাতত বাসায় বসে থাকতে হচ্ছে!