'এনড্রয়েড ফোনে বিজয় কি-বোর্ডের সফটওয়্যার ব্যবহারকারীর জন্য বাধ্যতামূলক নয়'



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, এনড্রয়েড ফোনে বিজয় কি-বোর্ডের সফটওয়্যার ব্যবহারকারীর জন্য বাধ্যতামূলক নয়।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর ওসমানি স্মৃতি মিলনায়তনে সাংবাদিকদের তিনি এমন কথা বলেন।

তিনদিনব্যাপী ডিসি সম্মেলনের আজ ছিল দ্বিতীয়দিন। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় অধিবেশনে ডিসিদের সঙ্গে সংলাপের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মোস্তাফা জব্বার। সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমি একটি ব্যাখ্যা দেব, সেটি হচ্ছে বিটিআরসি একটি শব্দ ব্যবহার করেছে- বাধ্যতামূলক। এই শব্দটি বিভ্রান্তিকর।

'যেকোনো এনড্রয়েড ফোনে আপনি কোনো সফটওয়্যার রাখতে পারেন, আনস্টল করতে পারেন, ফেলে দিতে পারেন, নতুন করে ইনস্টল করতে পারেন। অতএব বাধ্যতামূলক শব্দ প্রয়োগ করার কিছু নেই। এটি বাধ্যতামূলক নয়।'

প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, কার জন্য বাধ্যতামূলক বলা হয়েছে? যেটি বলা হয়েছে, যিনি উৎপাদক অথবা আমদারিকারক তিনি বাংলা লেখার সুবিধা তৈরি করে দেওয়ার জন্য একটি সফওয়্যার দিয়ে দেবেন।  ব্যবহারকারী সেই সফটওয়্যার ব্যবহার করবেন কি, করবেন না, সেটি সম্পূর্ণ তার এখতিয়ার।

টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, দেশের ৯৮ শতাংশের বেশি জায়গায় ফোরজি সেবা ছড়িয়ে দিয়েছি। এখন ফাইভজি নিয়ে আমরা কাজ করছি। ফাইভজি ফোরজি থেকে ১০ গুণ বেশি শক্তিশালী।

তিনি বলেন, আমাদের ১০ কোটিরও বেশি মোবাইলে ইন্টারনেট গ্রাহক আছে, আর কিছু ফিক্সড ইন্টারনেট গ্রাহকও আছে। আমাদের মোবাইল ইন্টারনেটকেই বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। কিন্তু দেশের বিভিন্নপ্রান্তে আমরা টাওয়ার বসাতে পারছি না। কিছু লোক অপপ্রচার চালায় টাওয়ার থেকে রেডিয়েশন ছড়ায়। আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেছি, এগুলো অপপ্রচার। আমাদেরকে টাওয়ার বসাতে দিতে হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাবান্ধায় ভারতের নেটওয়ার্ক চলে আসে, আমরা দিতে পারি না। টাওয়ার বসানোর চেষ্টা করছি। কিন্তু পার্শ্ববর্তী ভারতের নিষেধাজ্ঞা থাকায় আমরা পারছি না। তবে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। মিয়ানমার সীমান্তেও আমরা টাওয়ার বসাতে পারছি না। তাদেরও নেটওয়ার্ক চলে আসে। কিন্তু আমাদের নেটওয়ার্ক সীমান্ত এলাকায় কম চলে।

তিনি বলেন, টেলিটক একটি সরকারি প্রতিষ্ঠান। আমার মন্ত্রিত্বকালে এটি নিয়ে যত মন্তব্য পেয়েছি, আর সব বিষয় নিয়ে এত কথা হয় না। কেন যেন জানি না, নেটওয়ার্ক থাকা সত্ত্বেও লোকজন বলে টেলিটকের নেটওয়ার্ক নেই।

যেভাবে হ্যাক হচ্ছে আপনার ফেসবুক পেজ



তোহা ইব্রাহিম সিজান
যেভাবে হ্যাক হচ্ছে আপনার ফেসবুক পেজ

যেভাবে হ্যাক হচ্ছে আপনার ফেসবুক পেজ

  • Font increase
  • Font Decrease

হঠাৎ দেখলেন কোনো এক ভদ্রলোক হোয়াটসঅ্যাপ বা ইমেইলের মাধ্যমে আপনাকে মেসেজ করেছে এবং আপনার ফেসবুক পেজে বিনামুল্যে ২-৩ হাজার ডলার বুস্ট করে দেওয়ার অফার করছে।

আপনি খুব আগ্রহের সাথে ভদ্রলোকের অফারে রাজি হলেন,ভদ্রলোক এবার আপনাকে দিয়ে আপনার পেজটি তার বিজনেস ম্যানাজারে কানেক্ট করিয়ে নিবে।

এবার আপনার মাথায় আকাশ ভাঙার পালা,ভদ্রলোক টি আসলে অভদ্র হ্যাকার ছিল,আপনার পেজ অলরেডি হ্যাকারের কন্ট্রোলে চলে গিয়েছে।

বর্তমানে  আমাদের  দৈনন্দিন জীবনের কার্যক্রম অনেকটাই ফেসবুকের উপর নির্ভরশীল হয়ে পরেছে।

পাশাপাশি অনলাইন বিজনেস বা ই-কমার্সের বড় একটা  অংশ ফেসবুক পেজ নির্ভর।যায়হোক ফেসবুক পেজের গুরুত্ব বা ভূমিকা কমবেশি আমরা সবাই জানি, আজকে আমাদের আলোচনার বিষয় ফেসবুক পেজ হ্যাক নিয়ে।

ইদানিং লক্ষ্য করা যাচ্ছে পাবলিক ফিগার পেজ বা বিজনেস পেজ হ্যাক হওয়ার হার বৃদ্ধি পেয়েছে।এক শ্রেণীর হ্যাকার চক্র খুব কৌশলে হ্যাক করে নিচ্ছে  মুল্যবান  ফেসবুক পেজ গুলো। হ্যাকার দের টার্গেট একটু বড় পেজের দিকে ,অর্থাৎ বেশি লাইকের পেজে।

শুরুতেই   বিজনেস ম্যানাজার এর মাধ্যমে হ্যাক হওয়ার ব্যাপার উল্লেখ করেছিলাম, বিজনেস ম্যানাজার এর নাম শুনলেও অনেকেই হয়তো জানেন না এটা কীভাবে কাজ করে, তাই শুরুতেই চলুন জেনে নেওয়া যাক বিজনেস ম্যানাজার কি এবং কিভাবে কাজ  করেঃ

ফেসবুক বিজনেস ম্যানাজার এমন একটি একাউন্ট বা ফাংশন যা একটি ফেসবুক পেজের জন্য সর্বময় ক্ষ্মতার অধিকারি।যদি কোনো ফেসবুক পেজে বিজনেস ম্যানাজার একাউন্টে সংযুক্ত করা থাকে তাহলে সেই বিজনেস ম্যানাজার একাউন্ট থেকে পেজের যেকোনো এডমিন কে যেকোনো সময় পেজ থেকে রিমুভ করে দেওয়া যায়।কিন্তু পেজে থাকা একাধিক এডমিন মিলেও পেজ থেকে বিজনেস ম্যানাজার একাউন্টটি রিমুভ করতে পারবেনা।তাহলে বুঝতেই পারছেন বিজনেস ম্যানাজার একাউন্ট এর ক্ষমতা।

এছাড়াও বিজনেস ম্যানাজার দিয়ে ফেসবুকে বুষ্ট বা এডস রান করা সহ অনেক কাজ করা যায় ,কিন্তু আমরা আজ শুধু আমরা আলোচনা করবো বিজনেস ম্যানাজার এর সাথে ফেসবুক পেজের সম্পর্ক নিয়ে।

ধরুন আপনার একটি বিজনেস ম্যানাজার একাউন্ট আছে ,এখন আপনি যদি চান আপনার বন্ধুর ফেসবুক পেজ আপনার বিজনেস ম্যানাজারে সংযুক্ত করবেন ,এতে আপনার বন্ধুর পেজে আপনি এডমিন না থাকলেও চলবে।আপনাকে আপনার বিজনেস ম্যানাজার এর পেজ অপশন থেকে আপনার বন্ধুর পেজ এড করতে হবে এবং আপনার বন্ধুর ইমেইলে ফেসবুক থেকে মেইল যাবে যে আপনি তার পেজ আপনার বিজনেস ম্যানাজারে এড করতে চাচ্ছেন,আপনার বন্ধু যদি একসেপ্ট করে তাহলে আপনি তার পেজের সমস্ত এক্সেস পেয়ে যাবেন।

এমন আরো কিছু অপশন আছে যার অপব্যাবহার করে হ্যাকার আপনার আমার পেজ হ্যাক করে নিয়ে যাচ্ছে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক যেভাবে হ্যাক হচ্ছে ফেসবুক পেজ গুলোঃ

পদ্ধতি ১-

আপনার ফেসবুক পেজ মেনশন হয়েছে এমন একটা নোটিফিকেশন আসবে আপনার কাছে,সেখানে যেয়ে দেখতে পাবেন “ফেসবুক কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ডাস ,ভেরিফিকেশন পেজ ইত্যাদি টাইপের পেজ থেকে আপনার পেজ সহ আরো অনেক পেজ মেনশন করেছে এবং লিখে রেখেছে আপনার পেজে ভায়োলেশন হয়েছে তাই ভেরিফিকেশন করতে হবে,সেই মর্মে একটা লিংকে ক্লিক করতে বলবে।

আপনি যদি ভুলে সেই লিংকে ক্লিক করেন তাহলে আপনার একাউন্ট হ্যাক হওয়ার দ্বার প্রান্তে চলে গেলেন,কারন লিংকে ক্লিক করার পরে হুবহু ফেসবুকের লগইন পেজের মত একটা পেজ আসবে যেখানে আপনার পাসয়ার্ড দিতে বলবে ,বেশিরভাগ ফেসবুক ব্যবহারকারী ভুলটা এখানেই করে বশেন,তারা এই ভুয়া লগইন পেজ দেখে আসল ভেবে বসেন তখনই পাসওয়ার্ড দিয়ে দেন সেখানে,তখন সাথে সাথে আপনার পাসওয়ার্ড চলে যাবে হ্যাকারের কাছে।

আর হ্যাকারের কাছে পাসওয়ার্ড যাওয়া মানে আপনার একাউন্ট হ্যাক সাথে আপনার ফেসবুক পেজ ও হ্যাক হয়ে যাবে।

পদ্ধতি ২

হ্যাকার যেকোনো ভাবে আপনার ফেসবুক একাউন্টে থাকা ইমেইলে সংগ্রহ করবে এবং আপনাকে ফেসবুক এর নাম করে একটা ফেইক ইমেইল থেকে মেইল পাঠাবে এই সংক্রান্তে যে আপনার পেজে ভায়োলেশন পাওয়া গেছে এবং আপিল করার জন্য একটি লিংক পাঠাবে।এরপর পদ্ধতি ১ এ যেভাবে বর্ণ্না করেছি এমন একটা ঘটনা ঘটতে পারে এবং আপনার একাউন্ট সহ পেজ হ্যাক হতে পারে।

পদ্ধতি ৩

লেখার শুরুতে বলেছিলাম এ ব্যাপারে  যে কেউ একজন ইমেইলের বা হোয়াটসএপ এর মাধ্যমে আপনার সাথে যোগাযোগ করবে ,সে বলবে আপনার পেজে তার ভালো লেগেছে এবং আপনার পেজের সাথে সে কাজ করতে চায়।আপনার পেজে  আনুমানিক ৩-১০ হাজার ডলার বুস্ট/এডস দিয়ে দিবে এমন একটি অফার দিবে।এমন একটি অফার তো কেউ হাতছাড়া করতে চায়বেনা।আপনি যদি রাজি হয়ে যান তাহলে সে আপনার একাউন্টে থাকা ইমেইল চাইবে,আপনি যদি আপনার ইমেইলটি তাকে প্রদান করেন তাহলে সে তার বিজনেস ম্যানাজার এ আপনাকে এডমিন করে দিবে এবং আপনাকে বলবে সেই বিইজনেস ম্যানাজারে আপনার পেজ টি এড করে দিতে।আপনার যদি বিজনেস ম্যানাজার নিয়ে ধারনা না থাকে তাহলে আপনি কোনো প্রকার সন্দেহ ছাড়াই আপনার পেজটি তার বিজেনস ম্যানাজারে এড করে দিবেন,মজার ব্যাপার হলো আপনার যেহেতু বিজেনস ম্যানাজার নিয়ে ধারনা নেই তাই হ্যাকার আপনাকে সব কিছু স্ক্রিনশর্ট দিয়ে দেখিয়ে দিবে কিভাবে আপনার পেজ সেখানে এড করতে হয়

সুতরাং আপনার ফেসবুক প্রোফাইল এবং পেজ হ্যাকার থেকে নিরাপদ রাখতে নিম্নে বর্নিত কয়েকটি নির্দেশনা অনুসরণ ক্রুনঃ

১।ফেসবুক একাউন্টে টু ফেক্টর অথেনটিকেশন ফিচার এক্টিভ রাখুন।

২।আপনার ফেসবুক পেজ আপনার নিজস্ব বিজনেস ম্যানাজার কানেক্ট করে রাখুন।

৩। Facebook.com ব্যাতিত কোনো লিংকে যেয়ে আপনার ফেসবুক একাউন্টের পাসওয়ার্ড দেওয়া থেকে বিরত থাকুন।

৪।ফেসবুকে কোনো নোটিফিকেশন পেলে তা ভালোভাবে পর্যবেক্ষন করে দেখুন সেটা ফেসবুকের পক্ষ থেকে কিনা এবং সেখানে কি বলা আছে।

৫। আপনার ন্যাশনাল আইডেন্টি কার্ডের সাথে মিল রেখে ফেসবুক প্রোফাইলের নাম করন করে রাখবেন।এতে করে আপনার প্রোফাইল হ্যাক হয়ে গেলেও রিকোভার করতে পারবেন।

;

শিক্ষার্থীদের পাঠে ও প্রয়োজনে ভিভো ওয়াই১৬



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বছরের শুরুতেই নতুন পাঠ্যক্রম নিয়ে ব্যতিব্যস্ত শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকেরা। নতুন পঠনপদ্ধতি বুঝতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ইন্টারনেটের সাহায্যটাও বেশ লাগে। কিন্তু ইন্টারনেট অন করলেই দেখা যায় স্মার্টফোনের চার্জ দ্রুত কমে যায়। অনেক স্মার্টফোনে স্টোরেজ স্বল্পতার কারণে দরকারি তথ্য সংরক্ষণ করা যায় না। আবার বেশিক্ষণ স্মার্টফোন ব্যবহার করলে চোখে শুরু হয় যন্ত্রণা।  

সমস্যা সমাধানে এরই মধ্যে শিক্ষার্থীদের মন জয় করেছে ভিভো ওয়াই১৬। চলতি মাসেই দেশে এসেছে ভিভো ওয়াই১৬। মাত্র ১৫ হাজার ৯৯৯ টাকার এই স্মার্টফোনের ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি আপনাকে দীর্ঘ সময় টানা ব্যবহার সক্ষমতার নিশ্চয়তা দেবে। ১০ ওয়াটের টাইপ সি ফার্স্ট চার্জিংয়ের মাধ্যমে মাত্র ২ ঘণ্টা ৩০ মিনিটে ফুল চার্জ করে সাধারণভাবে ব্যবহার করতে পারবেন প্রায় আড়াই দিন। 

এর ৬.৫১ ইঞ্চির এইচডিপ্লাস ডিসপ্লে স্বয়ক্রিয়ভাবে নীল আলো ফিল্টারের সক্ষমতা চোখের সুরক্ষায় সব সময় তৎপর। তাই পড়ার সময় চোখের সুরক্ষায় বাড়তি ব্যবস্থা নিয়ে দুশ্চিন্তার অবসান হবে।

৪ জিবি র‍্যাম সাথে আরো ৪ জিবি এক্সটেন্ডেড র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি স্টোরেজ ভালো রেজুলেশনের ছবি, ভিডিও, প্রয়োজনীয় বই ও অ্যাপ ডাউনলোড করে সংরক্ষণ করতে সক্ষম। রয়েছে মাল্টি-টাচ ক্যাপাসিটিভ টাচ স্ক্রিনের পাওয়ার বাটনে সাইড মাউন্টেড ফিংগার প্রিন্ট প্রযুক্তি। এর মাধ্যমে দ্রুত স্ক্রিন অন-অফ করা, স্ক্রিনশট নেওয়ার অনন্য অভিজ্ঞতা উপভোগ করতে পারবেন।

অনেক সময় শিক্ষার্থীদের অন্য বন্ধুদের থেকে ক্লাস নোটের ছবি তুলে নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে। ওয়াই১৬ এক্ষেত্রে দিয়েছে আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলিজেন্সসহ ১৩ এবং ২ মেগাপিক্সেলের ডুয়েল রিয়ার ব্যাক ক্যামেরা। এর মধ্যে রয়েছে ম্যাক্রো লেন্স সুবিধা যা ছোট ছোট লেখাকে স্পষ্টভাবে ক্যামেরা বন্দি করতে সক্ষম। ফলে জুম করলেও ছবি ফেটে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না। এছাড়া ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা পরিবার কিংবা বন্ধুদের সাথে সরণীয় মুহূর্তের দারুণ ছবি তোলার অভিজ্ঞতা দেবে।

ভিভো এই স্মার্টফোনে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ফানটাচ ওএস১২ এবং প্রসেসর হিসেবে হেলিও পি৩৫ ব্যবহার করেছে। র‍্যামের কোয়ালিটি ভালো হওয়ায় ফোনটি একাধিক ব্যবহারে হ্যাং বা ল্যাক হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

ম্যাট ফিনিশ স্টেলার ব্ল্যাক ও ডিজলিং গোল্ড রঙের স্মার্টফোনটির নান্দনিক ডিজাইন যেমন ব্যক্তিত্বে রুচিশীলতার পরিচয় দেবে, পাশাপাশি দেবে হাতের ছাপ ও দাগ থেকে সুরক্ষা। প্রয়োজন ও বাজেট অনুকূল ভিভো ওয়াই১৬ সংগ্রহ করতে তাই দ্রুত চলে আসুন ভিভোর যেকোনো অথোরাইজড স্টোর বা ই-স্টোরে।

;

হাতের ছাপ ও দাগ থেকে সুরক্ষা দেবে ভিভো ওয়াই১৬



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
হাতের ছাপ ও দাগ থেকে সুরক্ষা দেবে ভিভো ওয়াই১৬

হাতের ছাপ ও দাগ থেকে সুরক্ষা দেবে ভিভো ওয়াই১৬

  • Font increase
  • Font Decrease

কথায় আছে, ‘আগে দর্শনধারী পরে গুণবিচারী’। বিশ্ববিখ্যাত স্মার্টফোন নির্মাতা ভিভোর নতুন স্মার্টফোন ওয়াই১৬ এর অসাধারণ নান্দনিক ডিজাইন মুগ্ধ করেছে সকলকে। স্টেলার ব্ল্যাক ও ডিজলিং গোল্ড রঙের স্মার্টফোনটির ম্যাট ফিনিশ ব্যাক সাইড যেমন দেয় কুলিং লুক, তেমনি হাতের ছাপ ও দাগ থেকে দেয় সুরক্ষা। তাই দাগ-ছাপ থেকে সুরক্ষায় সুন্দর স্মার্টফোনটিকে ঢাকতে হবে না ব্যাক কাভারের।

বাজারের অন্যান্য স্মার্টফোনের তুলনায় এই স্মার্টফোনটি জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে এর ৫হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি সুবিধা ও একবার চার্জে দীর্ঘসময় টানা ব্যবহার সক্ষমতার জন্য। ১০ ওয়াটের টাইপ সি ফার্স্ট চার্জিংয়ের মাধ্যমে মাত্র ২ ঘন্টা ৩০ মিনিটেই করতে পারবেন ফুল চার্জ। 

৬.৫১ ইঞ্চির এইচডিপ্লাস ডিসপ্লে স্বয়ক্রিয়ভাবে নীল আলো ফিল্টার করে ব্যবহারকারীর চোখের সুরক্ষায় রাখবে অসাধারণ ভূমিকা। তাই প্রয়োজন হবে না বাড়তি সুরক্ষা ব্যবস্থার।

সেলফিপ্রেমীদের জন্য রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা। আরো রয়েছে আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলিজেন্সসহ ১৩ এবং ২ মেগাপিক্সেলের ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরা। রয়েছে ম্যাক্রো লেন্স সুবিধা, এর মাধ্যমে অনেক নিখুঁতভাবে ছবিকে ক্যামেরা বন্দি করা যাবে।

৪ জিবি র্যাম সাথে আরো ৪ জিবি এক্সটেন্ডেড র্যাম এবং ৬৪ জিবি স্টোরেজে কোন ঝামেলা ছাড়াই প্রয়োজনীয় সকল অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারবেন। মাল্টি টার্বো ৫.৫ ফিচার ব্যবহার করায় কোন হ্যাং বা ল্যাক ছাড়াই গেইম খেলা সম্ভব।

ভিভো এই স্মার্টফোনে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ফানটাচ ওএস১২ এবং প্রসেসর হিসেবে হেলিও পি৩৫ ব্যবহার  করেছে। মাল্টি-টাচ ক্যাপাসিটিভ টাচ স্ক্রিনের ফোনটিতে পাওয়ার বাটনে সাইড মাউন্টেড ফিংগারপ্রিন্ট প্রযুক্তি ব্যবহারকারীকে দিয়েছে দ্রুত স্ক্রিন অন-অফ করার অনন্য অভিজ্ঞতা।

হালের সব গুরুত্বপূর্ন সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে এই স্মার্টফোনে। র্যামের কোয়ালিটি ভালো হওয়ায় ফোনটি একাধিক ব্যবহারে ল্যাক হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

ফ্ল্যাট ফ্রেমের ট্রেন্ডি, স্মুথ এবং ক্ল্যাসি আউটলুক সমৃদ্ধ স্মার্টফোনটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ হাজার ৯৯৯ টাকা। গ্রাহক ভিভোর যেকোন অথোরাইজড স্টোর বা ই-স্টোর থেকে বাজেট ফ্রেন্ডলি ভিভো ওয়াই১৬ সংগ্রহ করতে পারবেন।

;

ভিভো ওয়াই১৬: আকর্ষণীয় পুরস্কার জেতার সুযোগ



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আবারো ওয়াই সিরিজ এনে বছরের শুরুতেই সুখবর দিয়েছে ভিভো। আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে মিলবে ভিভো ওয়াই১৬। ভিভো ওয়াই১৬ এর আসা উপলক্ষে ভিভোর অথোরাইজড শোরুমগুলোতে নেওয়া হয়েছে ‘লাকি ড্র অফার।’ ওয়াই১৬ কিনে ভাগ্যবান যে কেউ জিতে নিতে পারে ‘গ্রাহকের ইচ্ছাপূরণ’ যা দিয়ে মিলবে ৫০ হাজার টাকার এক্সেসরিজ। এছাড়াও থাকছে নানা আকর্ষণীয়য় পুরস্কার।

ট্রেন্ডি ও স্টাইলিশ এই স্মার্টফোনটির প্রি বুকিং শুরু হয়েছে ১১ জানুয়ারি যা চলবে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। ভিভো বাংলাদেশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, আগামী ১৬ থেকে ২২ জানুয়ারি প্রথম সেল সপ্তাহের জন্য, ভিভো শোরুমগুলিতে লাকি ড্র অফার রয়েছে, লাকি ড্র অফারগুলোর মাধ্যমে আপনি যে কোন একটি আকর্ষণীয় উপহার জিতে নিতে পারেন। আকর্ষণীয় উপহার গুলো হলো: গ্রাহকের ইচ্ছা পূরণ (৫০,০০০ টাকা), ৩০০০ টাকা ক্যাশ ব্যাক, কুল মগ -১০০% ।

ভিভো ওয়াই১৬ এ রয়েছে একটানা সাত ঘণ্টা গেমিংয়ের সুযোগ। আবার যারা ওটিটি প্ল্যাটফর্মে সিনেমা বা সিরিজ দেখে অবসর সময় কাটান তাদের জন্যও খুশির খবর নিয়ে এসেছে ভিভো ওয়াই১৬। একবার চার্জ দিয়ে স্মার্টফোন দিয়ে টানা ১৮ ঘণ্টা সিনেমা বা যেকোন ভিডিও দেখা যাবে। একবার চার্জে নিরবিচ্ছিন্নভাবে টানা ২২ ঘণ্টা গান শোনা যাবে ভিভো ওয়াই১৬ স্মার্টফোনটি দিয়ে।

জীবনের অসাধারণ সব মুহূর্তগুলো যদি ধরে রাখতে চান সেক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে ভিভো ওয়াই১৬। ওয়াই১৬ এ রয়েছে ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। রিয়ার ক্যামেরায় আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলিজেন্সসহ ১৩ এবং ২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। সেই সাথে ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে।

স্মার্টফোনটিতে ৪ জিবি র‌্যাম সাথে আরো ৪ জিবি এক্সটেন্ডেড র‌্যাম এবং ৬৪ জিবি স্টোরেজ ব্যবহার করা হয়েছে। এতে করে যেকোন ধরণের ঝামেলা ছাড়াই ফোনে সব অ্যাপ ডাউনলোড করা যাবে।
স্টেলার ব্ল্যাক ও ডিজলিং গোল্ড এই দুই রঙে আসা ভিভো ওয়াই১৬ এর দাম ধরা হয়েছে ১৫ হাজার ৯৯৯ টাকা।

;