সহজের ‘সেফটি সবার জন্য’

সাব্বিন হাসান
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সড়ক নিরাপত্তা নিয়ে রাইডার ও যাত্রী সবার জন্য জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে ‘সেফটি সবার জন্য’ প্রচারণার ঘোষণা দিয়েছে রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান ‘সহজ’।

সেই ধারাবাহিকতায় রানার অটোমোবাইলসের সঙ্গে যুক্ত হয়ে সহজ রাইডারদের মধ্যে ৩ হাজার হেলমেট বিতরণ শুরু করেছে। সামাজিকভাবে দায়বদ্ধ প্রতিষ্ঠান হিসেবে সহজ যাত্রার শুরু থেকেই সড়ক নিরাপত্তায় সচেতনতা বাড়াতে কাজ করে আসছে। এবার তাদের উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে রানার অটোমোবাইলস।

এ প্রসঙ্গে সহজ লিড মার্কেটিং ম্যানেজার মুহাইমেন সিদ্দিকী বলেন, ‘রাইডার থেকে শুরু করে যাত্রী এমনকি পথচারীদেরও সড়ক নিরাপত্তায় সচেতন হওয়া জরুরি। ট্রাফিক আইন এবং নিরাপদ চালনার উপায় সবাইকে জানতে হবে। আইন মানতে হবে। চলার পথে জীবনের চরম ক্ষতি কোনোভাবেই কাম্য নয়।’

সড়কে চলাচল নিরাপদ করে তোলার প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘সহজ নিজস্ব রাইডারদের সঠিকভাবে প্রশিক্ষিত করে থাকে। এছাড়া সড়কে সঠিক আচরণের বিষয়েও তাদের সচেতন করা হয়। সড়ক নিরাপত্তার বিষয়ে সবাইকে সচেতন করে তুলতে মানুষের কাছে যেতে চাই। এজন্যই ‘সেফটি সবার জন্য’ প্রচারণা নিয়ে এসেছি।

মূলত জনসচেতনতা বাড়াতে কাজ করবে ‘সেফটি সবার জন্য’। প্রচারণার শুরুতেই কর্মশালার মাধ্যমে নিরাপত্তা প্রটোকল, আত্মরক্ষামূলক ড্রাইভিং, নিরাপদ ওভারটেকিং, লেন শৃঙ্খলাসহ নানা বিষয়ে সচেতন করা হবে। এ ছাড়া তাদের ট্রাফিক নিয়ম ও বিধি, ট্রাফিক আইন লঙ্ঘনে শাস্তিসহ অন্যান্য বিষয়েও অবহিত করা হয় প্রচারণায়।

রাইডারদের জন্য কর্মশালা, যাত্রী ও পথচারীদের জন্য প্রচারণা ছাড়াও ক্যাম্পেইনে মানসম্পন্ন হেলমেট ব্যবহারে জোর দেওয়া হবে।

আয়োজক সূত্রে জানা গেছে, প্রচারণার প্রথম পর্যায়ে রাজধানীর গুলশান, বনানী, এয়ারপোর্ট রোড, হাতিরঝিল, ধানমন্ডি, ঢাকা বিশ্ববিবিদ্যালয় এলাকা, নীলক্ষেত, তেজগাঁও এবং কমলাপুরসহ রাজধানীর ১০টি ব্যস্ত একালায় ১৬ দিনব্যাপী এ প্রচারণা চলবে।

রানার অটোমোবাইলসের মার্কেটিং ডিরেক্টর আমিদ সাকিফ খান জানান, রানার মোটরসাইকেল সব সময়ই মোটরসাইকেল চালক এবং যাত্রীর নিরাপত্তা ও সেবাকে সামনে রেখে কাজ করছে। তারই ধারাবাহিকতায় সবাইকে সচেতন করার লক্ষে রানার মোটরসাইকেল ও সহজ একসাথে হেলমেট বিতরণ কর্মসূচি শুরু করেছে। এ প্রচারণার অধীনে যাত্রী ও রাইডারদের সড়ক নিরাপত্তায় করণীয় বিষয় যেমন ট্রাফিক আইন মানা, আইন মেনে গাড়ি চালানোসহ নানা বিষয়ে সচেতন করা হবে। এ ছাড়াও যাত্রী ও রাইডার উভয়েরই হেলমেট পরিধানের গুরুত্ব তুলে ধরা হবে।

পুলিশের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত বছরের প্রথম ১০ মাসে সারাদেশে ২ হাজার ২৩৭টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২ হাজার ২৬৫ জন নিহত এবং ১ হাজার ৬৫৯ জন আহত হয়েছেন।

এসব দুর্ঘটনা পেছনের কারণ হচ্ছে দায়িত্বহীন চালনা, চলাচলে অযোগ্য যান এবং সচেতনতার অভাব। আর সে কারণেই সবার জন্য নিরাপদ সড়ক করতে সহজের উদ্যোগ 'সেফটি সবার জন্য'।

আপনার মতামত লিখুন :