বাজেটে পোশাক খাত ১১৭২৪ কোটি টাকার প্রণোদনা চায়

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
প্রাক বাজেট আলোচনা শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএ- এর প্রতিনিধিরা/ছবি: মেহেদী হাসান

প্রাক বাজেট আলোচনা শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএ- এর প্রতিনিধিরা/ছবি: মেহেদী হাসান

  • Font increase
  • Font Decrease

বাজেটে রফতানিমুখী পোশাক খাতের জন্য ১১ হাজার ৭২৪ কোটি টাকার প্রণোদনা চায় বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএ।

সোমবার (২৭মে) রাজধানীর হোটেল আমারিতে তিনটি সংগঠন আয়োজিত  প্রাক বাজেট আলোচনা শীর্ষক সংবাদ সম্মেলন এই দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিজিএমইএর সভাপতি রুবানা হক, বিটিএমএর সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন এবং বিকেএমইএ ভাইস প্রেসিডেন্ট মুনসুর আহমেদ।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন,  আমরা ক্লান্তিকাল পার করছি। তৈরি পোশাক খাত এখন সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় রয়েছে। গত এক মাসে ২২টি কারখানা বন্ধ হয়েছে। যেখানে প্রায় সাড়ে ১০ হাজার শ্রমিক চাকরি হারিয়েছে। ঈদের আগে আরও ২-৪টি বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

এ অবস্থায় সরকার পক্ষ থেকে এখন সহায়তা না দিলে সমস্যায় পড়ব। তাই পোশাক খাতকে ঘুরে দাঁড়াতে আপদকালীন পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য আগামী বাজেটে সকল বাজারে রফতানি পণ্যের উপর ৫ শতাংশ হারে ভর্তুকি দেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানাচ্ছি। একক প্রণোদনা হিসেবে ৫ শতাংশ হারে রফতানিতে ভর্তুকি দিলে টাকার অংকে দাঁড়ায় ১৪ হাজার কোটি টাকা। তবে (ভ্যাট ট্যাক্স বাদে) আমরা পাবো ১১ হাজার ৭২৪কোটি টাকা। আমরা এই সুবিধা আগামী ৫ বছর চাই।  তাতে সরকারের খরচ হবে ৬০ হাজার কোটি টাকা। 

ঋণ পুনঃতফসিলীকরণ মেয়াদ দ্বিগুণ করার দাবি জানিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক বলেন, যেসব কারখানা ইচ্ছাকৃতভাবে খেলাপি নয় তাদের উৎপাদন কাজে ফিরে যাওয়া এবং ব্যবসা সচল রাখার জন্য সুযোগ হিসেবে পুনঃতফসিলীকরণের মেয়াদ দ্বিগুণ করা উচিত। এতে কর্মসংস্থান বাড়বে, সর্বোপরি অর্থনীতি সুফল ভোগ করবে। এ জন্য বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের প্রত্যাশা করছি।

এক্সপোটার্স এসোসিয়েশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ হাতেম বলেন, আমরা ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছি। আমেরিকাসহ বিশ্বের দেশগুলোতে পণ্য রফতানির জন্য ১৬ শতাংশ শুল্ক কর প্রত্যাহার করার দাবি জানাচ্ছি।

এছাড়াও রফতানি পণ্যের ওপর সব ধরনের ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

 

 

আপনার মতামত লিখুন :