মেঘনাঘাটে ৫৮৪ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ চুক্তি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
মেঘনাঘাটে ৫৮৪ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

মেঘনাঘাটে ৫৮৪ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

নারায়ণগঞ্জের মেঘনাঘাটে ৫৮৪ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করবে ইউনিক মেঘনাঘাট পাওয়ার লিমিটেড। গ্যাস অথবা এলএনজি থেকে রূপান্তরিত গ্যাস দিয়ে পরিচালিত হবে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি।

বুধবার (২৪ জুলাই) বিদ্যুৎ ভবনে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করে কোম্পানিটি।

বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির জন্য বিনিয়োগের প্রয়োজন পড়বে ৫২০ মিলিয়ন ইউএস ডলার। কম্বাইন্ড সাইকেল এ কেন্দ্রটি ২০২২ সালে উৎপাদনে আসবে। গ্যাস দিয়ে চলমান থাকলে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম হবে ২ দশমিক ৯৫ টাকা। আর যদি গ্যাস সংকট থাকে তখন রূপান্তরিত গ্যাসে চলবে তখন দাম পড়বে ৫ দশমিক ৪৪ টাকা।

ইউনিক হোটেল এন্ড রিসোর্ট লিমিটেড ৬৪ দশমিক ৯৮ শতাংশ, আমেরিকান কোম্পানি জিই ক্যাপিটাল গ্লোবাল এনার্জি ইনভেসমেন্ট বি. ভি ৩০ শতাংশ এবং স্ট্যাটিজিক ফাইন্যান্স লিমিটেডের মালিকানায় থাকছে ৪ দশমিক ৯৫ শতাংশ শেয়ার।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

তিনি বলেন, 'আমরা বিদ্যুৎ খাতে সরকারি ও বেসরকারি খাতের শেয়ার ফিফটি ফিফটি করার পক্ষে। বড় বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো উৎপাদনে এলে তেল ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো সরিয়ে নেওয়া হবে। এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি আমাদের সাপোর্ট হবে। আমি আশা করবো তারা নির্ধারিত সময়ে উৎপাদনে আসবে।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/24/1563952375877.jpg
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ

 

আমরা আশা করছি ডিসেম্বর নাগাদ প্রায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন সম্ভব হবে। আমরা নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দিকে যাচ্ছি। আসছে কোরবানি ঈদে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্ভব হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন প্রতিমন্ত্রী। 

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ বলেন, আজকে বিদ্যুৎ খাতে একটি সোনালী পালক যুক্ত হলো। আমি আশা করবো তারা যথা সময়ে নির্মাণকাজ শেষ করবে। আমি গর্ববোধ করছি এ খাতের খুব কাছাকাছি থেকে কাজ করতে পারার জন্য।

ইউনিক মেঘনা পাওয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাফিজ সরাফত বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার অঙ্গীকার পূরণে আমাদের এই উদ্যোগ ভূমিকা পালন করবে। বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাতে ইউনিক গ্রুপ নিজেদের একটি অবস্থান তৈরি করতে চলেছে। মেঘনাঘাট পাওয়ার প্লান্ট সেই প্রয়াসের অংশ।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎ বিভাগের সিনিয়র সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস, এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভুইয়া, ইউনিক মেঘনা পাওয়ারের চেয়ারম্যান নুর আলী, ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাফিজ সরাফত, বাংলাদেশে নিযুক্ত আমেরিকান রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান রুহুল আমিন প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :