হালাল পণ্যের আলাদা অর্থনৈতিক অঞ্চল হবে : বিডা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা: বিশ্বের প্রায় ১৮০ কোটি মুসলিম জনগোষ্ঠীর হালাল খাদ্য পণ্যের বাজার বিবেচনায় বাংলাদেশে আলাদা অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী মো. আমিনুল ইসলাম।  এ লক্ষ্যে সরকার সব ধরনের নীতি সহায়তা দেবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) মতিঝিল ঢাকা চেম্বারে হালাল পণ্য বিষয়ক এক সেমিনারে তিনি এ তথ্য জানান। অনুষ্ঠানের আয়োজন করে  ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)।

সেমিনারে বক্তব্য দিয়েছেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) রাষ্ট্রদূত সায়েদ মোহাম্মাদ সায়েদ, ডিসিসিআইয়ের সভাপতি আবুল কাসেম খান, সহ সভাপতি রিয়াদ হোসাইন প্রমুখ। তাছাড়া সেমিনারে কিনোট পেপার উপস্থাপন করেন দুবাইয়ের প্রতিষ্ঠান আরএসিএস কোয়ালিটি সার্টিফিকেট ইস্যুইং সার্ভিস এলএলসি’র হেড অফ সেলস মার্কেটিং ওসামা ইমাম।     

বিডা নির্বাহী চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বলেন, বিশ্বে এখন মুসলমানের সংখ্যা প্রায় ১৮০ কোটি। তাই হালাল পণ্যের একটি বিশাল বাজার রয়েছে। তবে শুধু মুসলমানরাই হালাল পণ্যের ভোক্তা নয়। এখন ইউরোপ, আমেরিকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন অমুসলিম দেশেও  হালাল পণ্য ব্যাপকহারে বেড়েছে। আন্তজার্তিক এ বিশাল বাজার আমাদের ধরতে হবে। এজন্য এ খাতকে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সরকার ইতোমধ্যে ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে এবং হালাল পণ্য উৎপাদন বাড়ানোর জন্য ১টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল বরাদ্দ দেওয়া যেতে পারে। হালাল খাদ্য মানুষের জীবন ধারণের জন্য অত্যন্ত নিরাপদ, যা কিনা মুসলমানদের পাশাপাশি অমুসলিমরাও গ্রহণ করে থাকে এবং এর ফলে এ ধরনের পণ্যের সম্ভাবনা পৃথিবীর সকল দেশেই রয়েছে।

হালাল পণ্য রপ্তানি বৃদ্ধির জন্য অবকাঠামো উন্নয়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত প্রতিষ্ঠানসমূহের দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রযুক্তিগত সহযোগিতা প্রদান এবং জনবলের দক্ষতা বাড়ানো প্রয়োজন। সর্বোপরি হালাল পণ্য সম্প্রসারণের জন্য সরকারের পক্ষ হতে সর্বাত্মক নীতিগত সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দেন বিডার চেয়ারম্যান।

বিডা চেয়ারম্যান বলেন, বাংলাদেশে হালাল পণ্যের সনদ দেয় ইসলামিক ফাউন্ডেশন। রফতানির ক্ষেত্রে বিএসটিআইয়ের মান সনদের একটি বিষয় আছে। সব মিলিয়ে হালাল পণ্যের সনদের বিষয়ে কিছু সমস্যা আছে। এটি সমাধনে সরকারের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সব উদ্যোগ নেয়া হবে।

অনুষ্ঠানের মূল প্রবন্ধে বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী হালাল খাদ্য ও প্রসাধনীর চাহিদা দিন দিন বেড়েইে চলেছে। বর্তমানে বিশ্বে হালাল পণ্যের বাজার তিন লাখ কোটি (৩ ট্রিলিয়ন) ডলার ছাড়িয়ে গেছে। ওষুধ, পানীয়, খাদ্য ও ভোগ্যপণ্য ও প্রসাধনীর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।  বিশাল এ চাহিদার বাজারে অনেক নামীদামি প্রতিষ্ঠান ঝুঁকছেন। বিশ্বের অন্যতম মুসলিম দেশ হিসেবে বাংলাদেশও তার নিজের চাহিদা মিটিয়ে রপ্তানিতে গুরুত্ব দেবে সে জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে।