Barta24

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

English

একশ বছরের দুঃসহ স্মৃতি স্মরণে

একশ বছরের দুঃসহ স্মৃতি স্মরণে
ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

১৯১৮ সালের ১১ নভেম্বর প্রথম বিশ্বযুদ্ধের ইতি টানে যুদ্ধে অংশগ্রহণকৃত দেশগুলো। তবে ২০১৮ সালে এসে সেই যুদ্ধ ১০০ বছরের বৃদ্ধ হলেও বিশ্বের মানুষজন এখনো যুদ্ধের ভয়াবহতা ভুলতে পারেনি।

রোববার (১১ নভেম্বর) প্রথম বিশ্ব যুদ্ধ শেষ হওয়ার ১০০ বছর পূর্তিকে কেন্দ্র করে ফ্রান্সের প্যারিসে জড়ো হয় বিশ্ব নেতারা। এখানে মূলত মর্মান্তিক এ যুদ্ধের বেদনাবিধূর স্মৃতিকে স্মরণ করেছে বিশ্ব নেতারা। প্রায় ৭০টি দেশের সরকার প্রধান ও বিশেষ ব্যক্তিবর্গ অনুষ্ঠানটিতে যোগ দেন।

যুদ্ধের সময়কার শ্ত্রু-মিত্র সবাই একদল হয়ে যুদ্ধে নিহত, ক্ষতিগ্রস্তদের আজ স্মরণ করেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনল্ড ট্রাম্প, রাশিয়ার ভ্লামিদির পুতিন, জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলসহ অন্যান্য দেশের নেতারা একই ক্যানভাসে দাঁড়িয়ে নিরবতাসহ অন্যান্য কর্মকাণ্ড পালন করেন।

দুঃসহ এ স্মৃতি সম্পর্কে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মরকেল বলেন, ‘এটা মনে রাখার মত কোন স্মৃতি নয়। কিন্তু, আমাদেরকে স্মরণ করতেই হবে’।

তবে ১৯১৪ সালে শুরু হওয়া যুদ্ধে পুরো বিশ্ব ধ্বংসযজ্ঞের এক তাণ্ডবলীলায় মেতে উঠে। তাণ্ডবে কীট-পতঙ্গের মত মানুষ জীবন ধ্বংস হয়। ভয়াবহ এ যুদ্ধের পরে জাতীয়তাবাদ ও কূটনৈতিক অস্থিরতার পাশাপাশি এখনো বিশ্বে যথার্থ শান্তি প্রতিষ্ঠা হয়নি।

আপনার মতামত লিখুন :

দাবানলে পুড়ছে আমাজন!

দাবানলে পুড়ছে আমাজন!
ছবি: সংগৃহীত

দাবানলে পুড়ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় 'রেইনফরেস্ট' বনভূমি আমাজন। পৃথিবীর ২০ শতাংশ অক্সিজেন সরবরাহকারী এ বনভূমিকে 'পৃথিবীর ফুসফুস' বলা হয়ে থাকে।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিমিনিটে আমাজনের ১০ হাজার বর্গমিটার এলাকা পুড়ে যাচ্ছে। এ বনভূমির ৬০ শতাংশই ব্রাজিলে অবস্থিত।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566488384771.jpg

 

এরইমধ্যে ব্রাজিলের রোন্ডানিয়া, অ্যামাজোনাস, পারা, মাতো গ্রোসো অঞ্চলের কিছু অংশে আগুন ছড়িয়ে পড়েছে।

এবারের অগ্নিকাণ্ড এ যাবৎকালের মধ্যে সবচেয়ে বড় বলে জানায় ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র, ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট ফর স্পেস রিসার্চ। বিশ্ব উষ্ণায়নের ফলে এমন আগুন লাগার ঘটনা ঘটছে বলে তারা দাবি করেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566488486116.jpg

 

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, প্রায় ১৬,০০০ প্রজাতির কয়েক হাজার কোটি গাছ রয়েছে এ বনভূমিতে। শুষ্ক আবহাওয়া, তাপমাত্রা বৃদ্ধি ও বাতাসের ফলে এ আগুন ক্রমশ আরও ছড়িয়ে পড়ছে।

পরিবেশবিদরা জানান, আমাজন জঙ্গল সংলগ্ন আমাজোনাস ও রোনডোনিয়া অঞ্চলের বনের আগুনের ধোঁয়া ২ হাজার ৭০০ কিলোমিটারের বেশি দূরত্ব অতিক্রম করে সাও পাওলোতে এসে পৌঁছেছে। ধোঁয়ায় সাও পাওলো শহরের চারিদিকে ঢেকে গিয়েছে বলেও জানান তারা। 

প্রতিবছরেই এমন আগুন লাগার ঘটনা ঘটে আমাজনে। ২০১৮ সালে ৭ হাজার ৫০০ কিলোমিটার এলাকা আগুনে পুড়ে গেছে। যেখানে ২০১৭ সালের তুলনায় ৬৫ শতাংশ বেশি বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়। এদিকে শুধু গতমাসেই ২ হাজার ২০০ কিলোমিটার এলাকা আগুনে পুড়ে গেছে।

পরিবেশিবিদরা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, খুব তাড়াতাড়ি এ আগুন নেভানো না গেলে বিশ্বের জলবায়ুতে বড় ধরণের পরিবর্তন আসতে পারে।

মায়ের গাড়ি চুরি করে চালাতে গিয়ে ধরা পড়ল ৮ বছরের শিশু

মায়ের গাড়ি চুরি করে চালাতে গিয়ে ধরা পড়ল ৮ বছরের শিশু
ছবি: প্রতীকী

জার্মানিতে ৮ বছরের এক ছেলে মধ্যরাতে মায়ের গাড়ি চুরি করে চালাতে গিয়ে পুলিশ হাতে ধরা পড়ে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, বুধবার (২১ আগস্ট) মধ্যরাতে অজ্ঞাত এক ছেলে গাড়ি চালানো অবস্থায় জার্মানির ডরমুন্ট শহরের দিকে যাওয়ার পথে পুলিশের নজরে আসে। পরবর্তীতে পুলিশ ছেলেটিকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। 

প্রতিবেদনে জানানো হয়, ছেলেটির বাড়ি জার্মানির সসেস্ট শহরে। যেখানে তাকে পাওয়া যায় (ডরমুন্ট) সেখান থেকে তার বাড়ি ৫১ কিলোমিটার দূরে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566479158422.jpg

 

এ নিয়ে স্থানীয় সসেস্ট পুলিশ কর্তৃপক্ষ ফেসবুকে এক পোস্ট শেয়ার করে। পোস্টে আটককৃত ৮ বছরের ছেলেটির কথা তুলে ধরা হয়। সেখানে সে বলে, 'আমি শুধুমাত্র একটু চালিয়ে দেখতে চাইছিলাম।' তারপর সে কান্নায় ভেঙে পড়ে।

পুলিশ আরও জানায়, মধ্যরাতে ছেলেটি ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার বেগে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিল। সৌভাগ্যক্রমে কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে, ছেলেটির মা মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) মধ্যরাতে (১টা ১৫ মিনিটে) থানায় একটি  মিসিং ডায়েরি  করেন।

তিনি বলেন, মধ্যরাতে তার ঘুম ভেঙে গেলে সে তার ছেলেকে বাড়িতে খুঁজে পাচ্ছিল না। একইসঙ্গে তার ব্যক্তিগত গাড়িটিরও খোঁজ পাচ্ছিলেন না।

তিনি পুলিশের কাছে বলেন, 'এর আগেও তার ছেলে ড্রাইভিং করেছে কিন্তু তার বাড়ির সীমানার ভিতরে থেকে।' 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র