১৮৩ এজেন্সিকে ওমরার অনুমোদন, শুরুতেই নিষেধাজ্ঞায় ১১

মুফতি এনায়েতুল্লাহ, বিভাগীয় প্রধান, ইসলাম
মক্কা শরীফ, ছবি: সংগৃহীত

মক্কা শরীফ, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চলতি হিজরি (১৪৪০) সনের (২০১৮-১৯ সাল) ওমরা কার্যক্রম শুরু করেছে সৌদি আরব। রীতি অনুযায়ী মহররম মাস থেকে ওমরা কার্যক্রম শুরু করে দেশটি। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ থেকে আগ্রহীদের ওমরায় পাঠাতে প্রস্তুত হচ্ছে বেসরকারি এজেন্সিগুলো।

হজ-ওমরা সেবাদানে নিয়োজিত সংশ্লিষ্টদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ধর্ম মন্ত্রণালয় দু’দফায় ১৯৪টি এজেন্সিকে ওমরা কার্যক্রম পরিচালনার অনুমতি দিলেও নানা অনিয়ম ও অভিযোগের প্রেক্ষিতে ১১টি ওমরা এজেন্সিকে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। সে হিসেবে প্রাথমিকভাবে ১৮৩টি এজেন্সি ওমরা কার্যক্রম শুরু করবে। তবে এখনও অনেক এজেন্সির অনুমোদন বাকি আছে। তাদের অনুমোদন দ্রুত হয়ে যাবে বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ থেকে বিপুল পরিমাণ মানুষ প্রতি বছর ওমরা পালন করে থাকেন। তাদের ওমরা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ১৪ আগস্ট প্রথম দফায় ৭১টি এজেন্সিকে এবং দ্বিতীয় দফায় ১৬ সেপ্টেম্বর ১২৩টি এজেন্সিকে ওমরা কার্যক্রমের অনুমোদন দেয় ধর্ম মন্ত্রণালয়। তবে ১৯ সেপ্টেম্বর এক বিজ্ঞপ্তিতে ধর্ম মন্ত্রণালয় জানায় প্রথম দফায় দেওয়া ৭১টি এজেন্সি থেকে ১১টি এজেন্সিকে ওমরার কার্যক্রম থেকে বিরত থাকতে। তাদের নিষেধাজ্ঞা দিয়ে একটি প্রজ্ঞাপনও জারী করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে- ১১টি এজেন্সি ‘জাতীয় হজ ও উমরা নীতিমালা-১৪৩৯ হিজরি/২০১৮’-এর শর্ত লঙ্ঘন করার দায়ে অভিযুক্ত হয়েছে, যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ নিষ্পত্তি হওয়ার আগ পর্যন্ত ওই ১১টি এজেন্সিকে সব ধরনের ওমরার কার্যক্রম থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে।

নিষেধাজ্ঞার মুখে থাকা ওই এজেন্সিগুলো হলো- আল মানসুর এয়ার সার্ভিস (ওমরা লাইসেন্স নং ০৪, জিন্দা বাজার, সিলেট), ক্যাপলেন ওভারসিজ (ওমরা লাইসেন্স নং ০৭, নয়াপল্টন, ঢাকা), লাকী ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরিজম (ওমরা লাইসেন্স নং ২৫৪, চকবাজার, ঢাকা), পারাবাত ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস লিমিটেড (ওমরা লাইসেন্স নং ২৬৩, পুরানা পল্টন, ঢাকা), ইরফান ট্রাভেলস, (ওমরা লাইসেন্স নং ৩০৪, আজিজ কো-অপারেটিভ, ঢাকা), কেএনসি ট্রাভেল কোম্পানি (ওমরা লাইসেন্স নং ৩১০, সাত্তার সেন্টার, হোটেল ভিক্টরি, ঢাকা), সাঈদ এভিয়েশন সার্ভিসেস (ওমরা লাইসেন্স নং ৪৩০), পুরানা পল্টন, ঢাকা), ময়মনসিংহ ট্রাভেলস এজেন্সি (ওমরা লাইসেন্স নং ৪৪৩, মতিঝিল, ঢাকা), টাইম হলিডেজ, (ওমরা লাইসেন্স নং ৪৬৭, নয়া পল্টন, ঢাকা), টাইম এক্সপ্রেস লিমিটেড (ওমরা লাইসেন্স নং ৪৬৯, নাভানা টাওয়ার, গুলশান, ঢাকা) ও মিজাবে রহমত এভিয়েশন (ওমরা লাইসেন্স নং ৪৭৬, নয়াপল্টন, ঢাকা)।

প্রয়োজনীয় বিভিন্ন প্রক্রিয়া শেষে চলতি সপ্তাহ থেকেই ওমরা যাত্রা শুরু হতে পারে বলে আল ওয়াসি ট্রাভেলসের মালিক মাওলানা আবদুল গাফফার রানা বার্তা২৪.কমকে জানিয়েছেন।

জানা গেছে, সৌদি আরবের বিভিন্ন কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে এ দেশ থেকে ওমরাযাত্রী পাঠিয়ে থাকে বেসরকারি এজেন্সিগুলো। এক্ষেত্রে ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে ওমরাসংশ্লিষ্ট এজেন্সিগুলোর লাইসেন্স প্রদান ও আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতি বছর তা হালনাগাদ করে থাকে। পরে অনুমোদিত ওমরা এজেন্সির তালিকা সৌদি দূতাবাসসহ বিভিন্ন দফতরে পাঠানো হয়। এরই অংশ হিসেবে চলতি মৌসুমে লাইসেন্স হালনাগাদ-নবায়ন করার জন্য ওমরা এজেন্সি মালিকদের আবেদন দাখিল করতে নির্দেশনা দেয় ধর্ম মন্ত্রণালয়। প্রাপ্ত আবেদন থেকেই দু’দফায় এসব এজেন্সির তালিকা প্রকাশ করা হয়।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব (হজ-১) আবদুল্লাহ আরিফ মোহাম্মদ স্বাক্ষরিত তালিকার কপি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ঢাকায় নিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত ও বাংলাদেশ ব্যাংকসহ ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট দফতরে পাঠানো হয়েছে।