নবী করিম সা.-এর সমালোচককে টুইটারে নিষিদ্ধের দাবি

নবী করিম সা.-এর সমালোচককে টুইটারে নিষিদ্ধের দাবি, ছবি: সংগৃহীত

মহানবী হজরত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে ‘শিশু যৌন নিপীড়ক’ ও ‘সন্ত্রাসী’ আখ্যা দে্ওয়া নেদারল্যান্ডসের রাজনীতিক খেয়ার্ট ভিল্ডার্সকে টুইটারে নিষিদ্ধ করার দাবি জানিয়েছে দেশটির একটি ইসলামি সংগঠন।

১৪৪টি মসজিদ নিয়ে গঠিত ‘দ্য টার্কিশ ইসলামিক কালচারাল ফেডারেশন’ (টিআইসিএফ) নামের ওই সংগঠন অনলাইনে ঘৃণা ছড়ানোর অভিযোগে ভিল্ডার্সকে স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করার আহ্বান জানায়।

টুইটার কর্তৃপক্ষ এই আবেদনে সাড়া না দিলে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন টিআইসিএফ সংগঠনের আইনজীবী এয়দার কোজে।

টিআইসিএফ বলছে, ভিল্ডার্সের কয়েকটি টুইট সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের নীতিমালা লঙ্ঘন করেছে। এছাড়া তিউনিসিয়া, পাকিস্তান, মরক্কো ও ইন্দোনেশিয়াসহ কয়েকটি দেশের আইনও ভঙ্গ করেছে বলে মনে করছে সংগঠনটি।

কোজে বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী ঘৃণা ছড়ানোর প্ল্যাটফর্ম হিসেবে টুইটারকে ব্যবহার করছেন ভিল্ডার্স। এর অর্থ হচ্ছে, শুধু ভিল্ডার্স নয়, টুইটারকেও ওই দেশগুলোতে শাস্তির আওতায় আনা যেতে পারে।’

উল্লেখ্য, নেদারল্যান্ডসের ডানপন্থি দল ‘ফ্রিডম পার্টি’র নেতা ভিল্ডার্স ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে এক টুইটে নবী করিমকে (সা.) ‘শিশু যৌন নিপীড়ক, গণ হত্যাকারী, সন্ত্রাসী ও পাগল’ বলে আখ্যায়িত করে।

এছাড়া কার্টুনের মাধ্যমে নবীকে চিত্রায়নের একটি প্রতিযোগিতারও আয়োজন করতে চেয়েছিল ভিল্ডার্স। কিন্তু বিশ্বব্যাপী বিক্ষোভ ও প্রতিবাদের কারণে ওই পরিকল্পনা থেকে সরে আসে সে।

এদিকে, টুইটারে তাকে নিষিদ্ধ করার উদ্যোগকে ‘পাগলামি’ বলে সোমবার (৫ নভেম্বর) এক টুইট করেছেন ভিল্ডার্স।

ইসলাম এর আরও খবর