Alexa

ব্রিটেনে ইসলামবিদ্বেষ বেড়েছে ৬০০ শতাংশ

ব্রিটেনে ইসলামবিদ্বেষ বেড়েছে ৬০০ শতাংশ

দুর্বৃত্তদের হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্রিটেনের একটি মসজিদ, ছবি: সংগৃহীত

নিউজিল্যান্ডের স্ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর ব্রিটেনে ইসলামবিদ্বেষের ঘটনা বহুগুণে বেড়ে গেছে।

টেল মামা (Tell Mama) নামের একটি পর্যবেক্ষক সংস্থা জানিয়েছে, ওই হামলার এক সপ্তাহের মাথায় ব্রিটেনে ইসলামবিদ্বেষ বেড়েছে ৬০০ শতাংশ।

২০১৯ সালের ১৫ মার্চ পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী নিউজিল্যান্ডের দুই মসজিদে গুলি চালিয়ে ৫০ মুসল্লিকে হত্যা করে উগ্র মুসলিমবিদ্বেষী অস্ট্রেলীয় নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারান্ট।

নৃশংস এই হামলার আগে অনলাইনে ১৬ হাজার ৫০০ শব্দের একটি ইশতেহারে ভয়াবহ এ হামলার পেছনে নিজের বক্তব্য তুলে ধরে খুনি ব্রেন্টন ট্যারান্ট। সেখানে উঠে আসে মুসলিমবিদ্বেষ, অভিবাসী বিদ্বেষ ও ‘শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের’ মতো বিষয়গুলো।

মুসলমানদের উসমানীয় খিলাফত বা অটোমান সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে তৎকালীন ইউরোপীয় খ্রিস্টানদের বিজয়ের কথাও উল্লেখ করেছে সে। নিউজিল্যান্ডের দুই মসজিদে হামলার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই লন্ডনে এক মুসল্লির ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। পূর্ব লন্ডনের একটি মসজিদে জুমার নামাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে হাতুড়ি নিয়ে তার ওপর চড়াও হয় অজ্ঞাত ‘শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসবাদীরা।’

টেল মামা জানিয়েছে, ওই সপ্তাহে ব্রিটেনজুড়ে অনেক মুসলিমকে বিদ্বেষী হামলা ও বিদ্বেষমূলক বক্তব্যের শিকার হতে হয়েছে। এক রাতে বার্মিংহামের পাঁচটি মসজিদে হামলার ঘটনাও ঘটেছে।

এর আগে মুসলিমবিদ্বেষের সর্বোচ্চ হার ছিল ২০১৭ সালে ম্যানচেস্টার হামলার পর। তখন বিদ্বেষের হার ছিল ৫৯৩ শতাংশ। এই বিদ্বেষই যুক্তরাজ্যের উত্তর লন্ডনে ফিঞ্চবুরি পার্ক মসজিদের বাইরে মুসল্লিদের ওপর গাড়ি হামলায় রশদ জোগায়।

-দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট অবলম্বনে

আপনার মতামত লিখুন :