Alexa

কখন রোজার কাজা হবে

কখন রোজার কাজা হবে

রোজা মানুষকে আল্লাহমুখি করে, ছবি: সংগৃহীত

রোজার কথা স্মরণ থাকা অবস্থায় অসাবধানতাবশত অনিচ্ছাকৃতভাবে কোনো খাদ্য বা পানি গলার ভেতর চলে গেলে রোজার কাজা করতে হয়। অজু-গোসলের সময় এমনটি অনেকেরই হয়ে থাকে।

যে বস্তু সাধারণত খাদ্যদ্রব্য নয়, কোনো উপকারেও আসে না, উপভোগ্যও নয় তা ইচ্ছাকৃতভাবে গিলে ফেললে রোজার কাজা করতে হয়। যেমন- মাটি, পাথর কণা, প্লাস্টিকের টুকরা ইত্যাদি।

দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা খাদ্যাংশ যদি ছোলা পরিমাণ বা তার অধিক হয় তবে তা গিলে ফেললে রোজার কাজা করতে হবে।

যে ধোঁয়া সাধারণত কেউ সেবন করে না বা তা উপভোগ্যও নয় তা ইচ্ছাকৃতভাবে সেবন করলে অর্থাৎ ইচ্ছা করে টেনে ভিতরে নিলে রোজার কাজা করতে হয়। যেমন- আগরবাতির ধোঁয়া, মশার কয়েলের ধোঁয়া, মটরযান নির্গত ধোঁয়া, চুলার ধোঁয়া ইত্যাদি।

ইচ্ছা করে মুখ ভরে বমি করলে রোজার কাজা করতে হয়।

সুবহে সাদেক হয়ে গেছে কিন্তু না জানার কারণে রাত বাকি আছে মনে করে পানাহার বা সহবাস করলে কাজা করতে হয়।

সূর্যাস্ত হয়নি কিন্তু না জানার কারণে সূর্যাস্ত হয়েছে মনে করে ইফতার করলে রোজার কাজা করতে হয়।

রোজার কথা স্মরণ না থাকায় পানাহার করেছে, পরবর্তী মাসয়ালা না জানার কারণে রোজা ভেঙে গেছে মনে করে পানাহার করলে কাজা করতে হয়।

অন্যের হুমকিতে বাধ্য হয়ে রোজা ভঙের কোনো কাজ করলে রোজার কাজা করতে হয়।

আপনার মতামত লিখুন :