ইয়াসমীন: শুধু গল্প নয়, জীবনচিত্র

মাজিদা রিফা, অতিথি লেখক, বার্তা২৪.কম
ইয়াসমীন: শুধু গল্প নয়, জীবনচিত্র, ছবি: বার্তা২৪.কম

ইয়াসমীন: শুধু গল্প নয়, জীবনচিত্র, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ইয়াসমীন। একটি গল্প সংকলন। তরতাজা সাতটি গল্প নিয়ে বইটি সাজানো হয়েছে। গল্পগুলো পড়লে মনে হবে এটা জীবনের গল্প। আর নিজের জীবন নিয়ে না ভাবলে মনে হবে, পাশের বাড়ির কারো গল্প। অর্থাৎ আপনার-আমার অথবা কারো না কারো জীবনের গল্প। যদিও লেখিকা আফিফা মারজানা বলেছেন, ‘বইয়ের গল্পগুলোতে আমি আসলে মোটাদাগে তেমন কোনো ম্যাসেজ দিতে চাইনি। আমি শুধু গল্প বলেছি, জীবনের গল্প। এখন জীবন থেকে পাঠক যদি কোনো ম্যাসেজ নিতে চান, নিতে পারেন।’ আসলে পাঠক হিসেবেই বলছি, গল্পগুলো জীবনের।

অবশ্য লেখিকা তার বইয়ের ভূমিকায় বলেছেন, ‘এগুলো শুধুই গল্প। খুব বেশি কোনো বার্তা নেই, শিক্ষণীয় কিছু নয়। সেরেফ কিছু মানুষের গল্প। সমাজ সংসারে কোনো বিল্পবী বার্তা বা সংগতি-অসংগতি নয়, কিছু জীবন ঘনিষ্ঠ কথাবার্তামাত্র। কোনো মোটিভেশন নেই, আশা-হতাশা নেই, নিশ্চুপ নিরবতা আছে। যেন কিছু সময় নিজের সাথে কথা বলা।’

‘ইয়াসমীন’ পড়ার আগে ভাবছিলাম, প্রিয় বন্ধুর প্রথম বই। যদি ভালো না লাগে কী করে বানিয়ে প্রশংসা করব! অবশ্য দু’টো গল্প পড়া ছিল এবং দু’টোই আমার প্রিয় গল্পের তালিকায় স্থান পেয়েছিল। দুরুদুরু মনে কালো হরফের মিছিলে প্রবেশ করতেই, এক অমোঘ আকর্ষণে সূচি ফলো না করে 'তাহিরা' গল্পটা আবারও পড়লাম। কথা প্রসঙ্গে লেখিকাকে যখন বললাম, গল্পটা পড়ে আমার আবারও মন খারাপ হলো, তিনি বললেন, মন খারাপের কী আছে!
তিনি জানালেন, তিনি বরং সুপারস্টার পড়ে কেঁদেছেন।
লেখক নিজে যখন নিজের গল্প পড়ে কাঁদেন, তখন ধরে নিতে হবে সেটা নিশ্চয়ই দারুণ কিছু।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/26/1558865369403.jpg
আমি 'সুপারস্টার' পড়লাম। সত্যিই খুব খারাপ লাগলো। আহারে জীবন!

এবার একটু ভেতরে যাওয়া যাক।

বইয়ের প্রথম গল্প: ইয়াসমীন। সেটাও দ্বিতীয়বার পড়লাম। রহস্যজনক এক রমণীর কথা লেখিকা যেরকম অবলীলায় বলে গেলেন, যেন ঘটনা একদম সত্যি! আবার সত্যি বলেও বিশ্বাস হয় না। জোর করে লেখিকার কাছ থেকে সত্যিটা আদায় করা যায়, কিন্তু তাতে আর গল্পের মজা থাকবে কই। তার চেয়ে থাকুক না, কিছু কাহিনী রহস্যময়!

সময়: সময়ের গল্প সবসময় অদ্ভুত! পৃথিবী সময়ের ছোবলে অদ্ভুতভাবে বদলে যায়। কুকুরের মন না বদলেও 'সময়' নামের চমৎকার এই গল্পে পৃথিবীর নিয়ম মেনে বদলে গেছে মানুষের জীবন।

রক্তভাগ্য: ছোট্ট একটি গল্প। কিন্তু এই গল্পটাও প্রত্যেকটা গল্পের মতোই ভালো লাগলো।

একজন মাজেদার গল্প: নাম দেখে ভাবলাম, ধ্যাৎ কী করতে যে লোকে সবসময় মাজেদা লিখে! কিন্তু গল্প পড়ে ভাবলাম, যাক বাবা, আল্লাহ বাঁচিয়েছেন আমি মাজিদা, মাজেদা নই। তবে মাজেদার জন্য মনে একটা ব্যথা লেগে রইলো অনেকক্ষণ।

দিলরুবা: কিছু জীবন অন্যরকম। দিলরুবাদের জীবনের সঙ্গে আমাদের দেখা হয় না। তাদের গল্প পড়ে ভাবি এ তো শুধু গল্পই; কিন্তু রব জানেন, না জানি কত দিলরুবা গুমরে কাঁদে সমাজের মুখোশপরা চেহারার আড়ালে।

মোট সাতটি গল্প। গল্প তো নয়; জীবন। না, প্রিয় মানুষের বই বলে বলছি না, সত্যিই আমি মুগ্ধ! আমার মনে আছে দুয়েক বছর আগে সবাই যখন পাগলের মতো লেখক সাদাত হোসাইনের বই আরশিনগর কিনছিল, তখন আমিও নিয়েছিলাম। যখন পড়তে বসলাম, কয়েকপাতা পড়ে রেখে দেই। নতুন লেখকের ছাপ স্পষ্ট। কিন্তু 'ইয়াসমীন' পড়ে মনে হয় না তিনি নতুন লেখক। চাইলেই তিনি বহুদূর যেতে পারেন। 'ইয়াসমীন' ভক্ত হিসেবে লেখিকার কাছে অনুরোধ- পরবর্তী বইটিও যেন আসে অচিরেই- ইনশাআল্লাহ।

ইয়াসমীন
লেখিকা: আফিফা মারজানা
প্রকাশক: সিগনেচার পাবলিকেশন
প্রকাশকাল: মে ২০১৯
পরিবেশক: রকমারি
মূল্য: ১২০ টাকা।
পৃষ্ঠা: ১৬০
প্রচ্ছদ: কাজী যুবাইর মাহমুদ

আপনার মতামত লিখুন :