প্রেমের কারণে বন্ধুকে খুন, ঘটনা ধামাচাপায় নাটক

ডিস্ট্রিক করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
নিহত সাগরের স্বজনরা। ছবি: বার্তা২৪.কম

নিহত সাগরের স্বজনরা। ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সাভার: আশুলিয়ায় প্রেমের জের ধরে বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন হয়েছেন। আবার এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নিজেদের বাঁচাতে খুনিরা অপহরণের নাটক সাজিয়েছেন। তবে এ ঘটনায় পুলিশ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে এবং নিখোঁজের ১৫ দিন পর জঙ্গল থেকে সাগর হোসেন নামে এক যুবকের ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ সেপ্টেম্বর) ভোরে গ্রেপ্তার একজনের তথ্যের ভিত্তিতে আশুলিয়ার আউকপাড়ার একটি জঙ্গল থেকে সাগর হোসেনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এর আগে রাতে এ ঘটনায় জড়িত মেহেদী হাসান ও শাহা হাসানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তবে মূল আসামি সাগর মিয়া পালাতক রয়েছেন।

গত ২০ আগস্ট সন্ধ্যার পর থেকে নিহত সাগর হোসেন তার এলাকা আউকপাড়া থেকে নিখোঁজ হন। তিনি আশুলিয়া আউকপাড়ার মৃত জাকির হোসেনের ছেলে। তার স্থানীয় বাজারে একটি চায়ের দোকান ছিল।

গ্রেপ্তার মেহেদী হাসান আউকপাড়ায় শাজাহান মিয়ার ছেলে ও শাহ হাসান একই এলাকার মোকসেদ হাসানের ছেলে।

নিহতের মা খাদিজা বেগম ছেলে হত্যার বিচার চেয়ে জানান, নিহত সাগর হোসেনকে কৌশলে ডেকে নিয়ে হত্যা করে তার বন্ধুসহ কয়েকজন। এমনকি নিখোঁজের রাত থেকে মুঠোফোনে অপহরণের কথা বলে বিকাশে টাকা দাবি করে তারা। এ সময় হুমকি দেয় টাকা না দিলে ছেলেকে হত্যা করে ফেলবে। এ ঘটনার পর দিন ২১ আগস্ট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন খাদিজা বেগম। পরে পুলিশ গতকাল ভোরে জানায়, আউকপাড়ার একটি জঙ্গলে তার ছেলের লাশ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও আশুলিয়া থানার এসআই মনিরুজ্জামান মোল্লা জানান, গত রাতে গ্রেপ্তারকৃত দুইজনের তথ্যের ভিত্তিতে সাগরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পালাতক সাগর মিয়ার বান্ধবীর কোনো একটি ভিডিও নিহত সাগরের কাছে ছিল। এ ঘটনার জের ধরেই এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। পরে খুনিরা নিজেদের আড়াল করতে অপহরণের নাটক সাজায়। তবে মূল আসামি সাগর মিয়া গ্রেপ্তার হলে হত্যার প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রিজাউল হক দিপু জানান, এ ঘটনায় নিহতের মামা বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ইতোমধ্যে জড়িত দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রেমের জন্য এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। মূল আসামিকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান চলছে।

আপনার মতামত লিখুন :