ডিন্স অ্যাওয়ার্ড পেলেন রাবির ১২ শিক্ষার্থী

  রাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম  
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

 

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) কলা অনুষদভুক্ত বিভিন্ন বিভাগের ১২ শিক্ষার্থীকে কলা অনুষদ ডিন্স অ্যাওয়ার্ড-২০১৭ প্রদান করা হয়েছে। পরীক্ষায় কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল অর্জন করায় বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন্স কমপ্লেক্স ভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহান শিক্ষার্থীদের হাতে এ পদক তুলে দেন।

অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ বিভাগে বিএ অনার্স পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অর্জন করেছেন। তারা হলেন- দর্শন বিভাগের আসমা আক্তার, ইতিহাস বিভাগের মো. কেএম আব্দুল্লাহ আল আমিন রাব্বী, ইংরেজি বিভাগের তাহেনাজ পারভীন বিভা, বাংলা বিভাগের মোছা. নিলুফা ইয়াসমিন, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের তামান্না সিদ্দিকী, আরবী বিভাগের মো. আবু বকর সিদ্দিক, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের মো. মাহবুবুর রহমান, সঙ্গীত বিভাগের মোছা. উম্মে কুলসুম, নাট্যকলা বিভাগের মো. তাশহাদুল ইসলাম তারেক, ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের মোছা. মোসলেমা খাতুন, সংস্কৃত বিভাগের কিরণ দেবী এবং উর্দু বিভাগের মোছা. সুমাইয়া সুলতানা।

কলা অনুষদের অধিকর্তা অধ্যাপক মো. ফজলুল হকের সভাপতিত্বে অ্যাওয়ার্ড প্রদান অন্ষ্ঠুানে প্রধান অতিথি অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা ভর্তি হয় তারা সবাই মেধাবী। মেধার সঠিক চর্চা ও নিয়মিত অধ্যাবসায় যদি কেউ না করে তাহলে সেই মেধার মূল্য থাকে না। শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করা সবার ভাগ্যে জুটে না। তারাই শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে যারা অনেক বেশি পরিশ্রম করে। এ অ্যাওয়ার্ড আমরা যাদের হাতে তুলে দিয়েছি মূলত তারাই এ অ্যাওয়ার্ডটা জয় করে নিয়েছে।’

অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান আরও বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা যদি শিক্ষার আলোয় আলোকিত না হতে পারে তাহলে এসব পুরষ্কারের কোনো দাম নেই। শুধু নিজের জন্য নয় সাধারণ মানুষের জন্য এ মেধার বিকাশ ঘটাতে হবে। দেশ জাতির কল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত করতে হবে। অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যৎ জীবনে মেধার সঠিক পরিচয় দিতে পারবে বলে আমি আশাবাদ ব্যক্ত করছি।’

ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মো. আতাউল্যাহ’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও ব্যক্তব্য দেন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি উপউপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়া।

এর আগে অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে ইংরেজি বিভাগের তাহেনাজ পারভীন বিভা, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের তামান্না সিদ্দিকী, নাট্যকলা বিভাগের মো.তাশহাদুল ইসলাম তারেক তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন।

আপনার মতামত লিখুন :