Barta24

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

হুমকিতে গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ

হুমকিতে গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ
হুমকিতে গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ
জাহিদ পাটোয়ারী
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
কুমিল্লা
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

গোমতী নদীকে কুমিল্লার দুঃখ বলা হয়। সেই নদীর ভাঙন রুখতে বাঁধ দেওয়া হলেও এখন সেটা হুমকির মুখে। এই নদীতে জেগে উঠা চরে চাষাবাদে ব্যস্ত থাকেন কৃষকরা। তবে শুস্ক মৌসুমে মাটি খেকোদের অত্যাচারে হুমকির মুখে পড়েছে গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ।

জানা গেছে, জেলার অন্যতম সবজি ভান্ডার হিসেবে পরিচিত গোমতীর চরাঞ্চলের প্রায় শতাধিক স্থান থেকে অবাধে মাটি কেটে নিচ্ছে। রাত-দিন অবাধে ডাম্প ট্রাক-ট্রাক্টরে মাটি পরিবহন করায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বাঁধ। পাশাপাশি বায়ু দূষণে পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, কুমিল্লার প্রধান নদী গোমতী আদর্শ সদর, বুড়িচং, ব্রাহ্মণপাড়া, দেবীদ্বার, মুরাদনগর, তিতাস হয়ে দাউদকান্দিতে মেঘনায় মিলিত হয়েছে। গোমতী প্রতিবছর বর্ষায় বিপুল পরিমাণ পলি এনে উর্বর করে চরাঞ্চল। আর সেই চরাঞ্চলে ব্যস্তসময় পার করেন নদী তীরের হাজার হাজার কৃষক। কিন্তু শুস্ক মৌসুমে আতঙ্কিত হয়ে উঠেন তারা। কারণ আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীকে ম্যানেজ করে নদীর চর এলাকায় অবাধে মাটি কেনে নেয় একটি চক্র। প্রতিবাদ করতে গেলে হামলা-মামলার শিকার হন কৃষকরা।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, পুরো বছরই গোমতী নদী থেকে ড্রেজারে বালু উত্তোলন করে একাধিক সিন্ডিকেট। তবে শুস্ক মৌসুমে বালু উত্তোলন কিছুটা কমে আসলেও গোমতী তীরের আদর্শ সদর উপজেলার, টিক্কাচর, ছত্রখীল, পালপাড়া, দুর্গাপুর, আমতলী, কাচিয়াতলী, বুড়িচংএর বাবুবাজার, বাজেবাহেরচর, পূর্বহুরা ব্রাহ্মণপাড়ার রামনগর, নাল্লা খেয়া ঘাট, দেবীদ্বারের সাইচাপাড়া, কালিকাপুর, মুরাদনগরের কোম্পানীগঞ্জ, নবীয়াবাদ, সিএন্ডবি, তিতাস স্লুইসগেট, আসমানিয়া বাজার, দাউদকান্দির বিভিন্ন স্থান থেকে মাটি কেটে নেয় প্রভাবশালীরা। সেই মাটি ডাম্প ট্রাক, ঢাকনাবিহীন ট্রাক্টরে করে সড়ক-মহাসড়ক দিয়ে জেলার বিভিন্নস্থানে নেওয়া হয়। এতে সড়ক বা মহাসড়কের বিভিন্নস্থানে মাটি পড়ে রাস্তার ক্ষতি হয়। অবাধে মাটি কাটায় কৃষকরা স্বাভাবিকভাবে ফসল উৎপাদন করতে পারেন না।

কুমিল্লা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উন্নয়ন কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম বার্তা২৪.কম’কে বলেন, ‘গোমতীর চরাঞ্চল কুমিল্লার সবজি ভান্ডার হিসেবে পরিচিত। এখানে জেলার মোট চাহিদার প্রায় ১৭-১৮ শতাংশ ফসল উৎপাদন হয়।’

সদর উপজেলার আমতলী, কাচিয়াতলী, বুড়িচংয়ের কাঠালিয়া, পূর্বহুরা এলাকার একাধিক কৃষক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বার্তা২৪.কম’কে জানান, আগে এখানে সারা বছর চাষাবাদ করা হতো। এখন মাটি খেকোদের দাপটে চাষাবাদের জমি কমে যাচ্ছে। প্রতিবাদ করলেও কোনো লাভ হয় না। এদিকে গোমতীর চর থেকে মাটি ধুলা-বালিতে বিপন্ন হচ্ছে নদী তীরের পরিবেশ, শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকে। ডাম্প ট্রাকে মাটি বহন করায় ভেঙে পড়েছে প্রতিরক্ষা বাঁধের অনেক জায়গা। ফলে বর্ষায় নদী ভাঙনের আশঙ্কা করছেন অনেকে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড কুমিল্লার প্রধান প্রকৌশলী বাবুল চন্দ্র শীল বার্তা২৪.কম’কে বলেন, ‘নদী সম্পদ রক্ষা, রাজস্ব আদায়, নিয়ন্ত্রণ, বালু উত্তোলনের বিষয়টি জেলা প্রশাসনের এখতিয়ার। আমাদের কাজ শুধু সরকারি বরাদ্দ আসলে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ মেরামত করা। এর বাইরে আমাদের আর কোনো কাজ নেই।’

এ বিষয়ে জানাতে কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীরকে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত লিখুন :

ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই: সাঈদ খোকন

ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই: সাঈদ খোকন
বক্তব্য রাখছেন সাঈদ খোকন, ছবি: বার্তা২৪.কম

ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া আতঙ্কিত হওয়ার মতো বিষয় না। আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু নেই। জনগণের সচেতনতাই ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধের মূল হাতিয়ার বলে উল্লেখ করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) নগর ভবনের অডিটোরিয়ামে 'ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ প্রতিরোধ বিষয়ক' সায়েন্টিফিক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেছেন মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

সাঈদ খোকন বলেন, 'ডেঙ্গু ও চিকনগুনিয়ার বিষয়ে জনগণের মধ্যে যেন আতঙ্ক ছড়িয়ে না পড়ে, সেদিকে আমাদের খেয়াল রাখতে হবে। জনগণকে সচেতন করতে হবে। ডেঙ্গু জ্বর বাসায় বসে সাত থেকে ১০ দিনেই ভালো হয়। তাই আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হতে হবে।’

এ সময় ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে মাসব্যাপী কর্মসূচির পরিকল্পনা তুলে ধরেন মেয়র খোকন।

মাসব্যাপী কর্মসূচির মধ্যে আগামী ১ জুলাই থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত মশক নিধন কর্মসূচি চালানো হবে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পাঁচটি অঞ্চলে টানা ১৫ দিন চলবে মশা নিধন কর্মসূচি।

১৫ জুলাই পর্যন্ত দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রতিটি ওয়ার্ডের পাড়া মহল্লায় জনসচেতনতা বাড়াতে লিফলেট বিতরণের পাশাপাশি মাইকিং করা হবে। সেই সঙ্গে বাড়ির ছাদ, ফুলের টবে, পানি যেন জমে না থাকে এবং সে ব্যাপারে করণীয় কী তা জানানো হবে।

1
বক্তব্য রাখছেন সাঈদ খোকন, ছবি: বার্তা২৪.কম

 

ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে ৪৫০টি মোবাইল টিমের মাধ্যমে প্রতিটি ওয়ার্ডে প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হবে।

যদি ১৫ জুলাইয়ের পর ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়ার প্রকোপ বাড়লে কল সেন্টার খুলে দেওয়া হবে। কোনো ওয়ার্ডে যদি কেউ এ রোগে আক্রান্ত হন, তাহলে আমাদের ফোন করলে আমাদের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা গিয়ে বিনামূল্যে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা দেবে। প্রয়োজন হলে রোগীকে কাছাকাছি কোনো চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হবে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগ আয়োজিত এ সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান। এতে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর কনক কান্তি বড়ুয়া ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলররা।

খুলনায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সংঘর্ষে নিহত ১

খুলনায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সংঘর্ষে নিহত ১
ছবি: সংগৃহীত

খুলনার কয়রায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সংঘর্ষে রজব আলী ঢালী (৬০) নামের একজন নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে মারা যান তিনি। রজব আলী ঢালী কয়রা সদর ইউনিয়নের পল্লী মঙ্গল গ্রামের ফণী ঢালীর ছেলে।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিন জন। আহতরা হলেন- জাহাঙ্গীর আলম (২৮) শামীমা (২৩) ও হাবিবুর (২৫)। আহতরা স্থানীয় জায়গীর মহল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

নিহতের পরিবার জানায়, স্থানীয় দুলু ঢালীর সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ ছিল দীর্ঘদিনের। তারই সূত্র ধরে বুধবার (২৬ জুন) দুপুর দুইটার দিকে সংঘবদ্ধভাবে হামলা চালানো হয়। হামলায় রজব আলী গুরুত্বর আহত হয়। পরে তাকে খুলনা মেডিকেলে রজব আলীকে ভর্তি করলে সকালে তিনি মারা যান।

কয়রা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারক বিশ্বাস বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'গত বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার ৪ নম্বর কয়রা পল্লী মঙ্গল এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। শুনেছি আহত রজব আলী চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। এ ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র