Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

উচ্ছেদের আগে পুনর্বাসন চান লালদিয়া চরবাসী

উচ্ছেদের আগে পুনর্বাসন চান লালদিয়া চরবাসী
মানববন্ধনে লালদিয়া চরবাসী, ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
চট্টগ্রাম
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রামের পতেঙ্গা লালদিয়া চরবাসীদের উচ্ছেদের আগে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। নারী ও শিশুসহ কয়েক হাজার লোক বুধবার (১৭ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১০টায় শাহ আমানত বিমানবন্দর সড়কে মানববন্ধনে যোগ দেন।

সিটি করপোরেশনের ৪১ নং ওয়ার্ডভুক্ত লালদিয়া চর এলাকায় ১৭০০ পরিবারের দশ হাজার লোক বসবাস করছে।

স্থানীয় মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বার্তা২৪.কম-কে বলেন, '১৯৭২ সালে চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমান বন্দর করার সময় উচ্ছেদ করে লালদিয়া চরে বসবাস করতে দেয় সরকার। সে সময় এখানে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ও প্রতিষ্ঠা করা হয়।'

মানববন্ধনে নলদিয়া চরবাসী

পরবর্তীতে ১৯৯৭ সালে কর্ণফুলীতে বেড়িবাঁধ দিয়ে লালদিয়া চরকে ভাঙ্গন থেকে রক্ষা করা হয়।

লালদিয়া চর উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো জামাল উদ্দিন বলেন, 'আমাদের আদি পৈত্রিক বসবাস ছিল বিমান বন্দরের জহুর আহমদ ঘাঁটি ওখানে। সেখান থেকে একবার উচ্ছেদ হয়েছি। এবার লালদিয়া চর থেকে উচ্ছেদ হতে আপত্তি নেই, আগে পুনর্বাসন চাই।'

মানববন্ধনে নলদিয়া চরবাসী

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি লালদিয়া চর উচ্ছেদের জন্য জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে লাল মার্কিং করে দেন। লালদিয়া চর জায়গাটি চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের বলেও জানা যায়।

মানববন্ধনে যোগ দেন স্থানীয় কাউন্সিলর সালেহ আহমদ, মহিলা কাউন্সিলর শাহনুর, আওয়ামী লীগ নেতা ইসহাক সওদাগর, যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ ও মুক্তিযোদ্ধা এনাম।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় দুর্গাপুর থানার ওসি স্ট্যান্ড রিলিজ

প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় দুর্গাপুর থানার ওসি স্ট্যান্ড রিলিজ
দুর্গাপুর থানার ওসি আব্দুল মোতালেব, ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জকে (ওসি) আব্দুল মোতালেব প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় তাকে স্ট্যান্ড রিলিজের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১৭ জুলাই) সকালে রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার এই আদেশ দেন। জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতে খায়ের আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে জানান, গত ২ জুলাই একজন নারী তার স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা করতে আসলেও তা নিতে গড়িমসি করার অভিযোগ ওঠে ওসি আব্দুল মোতালেবের বিরুদ্ধে। তিনি অভিযোগ খতিয়ে দেখতে একজন এএসআইকে দায়িত্ব দেন। ওই এএসআই আইনগত ব্যবস্থা না নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে মীমাংসার জন্য বৈঠক ডাকেন। তবে ঘটনা মীমাংসা করার আগেই ভুক্তভোগী নারীর স্বামী (অভিযুক্ত) দুবাই চলে যান।

জেলা পুলিশের মুখপাত্র আরও জানান, বিষয়টি জানাজানি হলে এবং ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে জনস্বার্থে ওসি আব্দুল মোতালেবকে বদলি করা হয়। তাকে ১৬ জুলাইয়ে পুলিশ লাইনে হাজির হওয়ার আদেশ জারি করা হয়। নির্ধারিত দিনে পুলিশ লাইনে হাজির না হওয়ায় তাকে দুর্গাপুর থানা থেকে স্ট্যান্ড রিলিজের আদেশ দেওয়া হয়।

থানা সূত্র জানায়, রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার মহিপাড়া গ্রামের শিমু ইয়াসমিন লিপি নামের এক অন্তঃসত্ত্বা নারীকে শারীরিক নির্যাতন করে তার দুবাই প্রবাসী স্বামী সোহেল রানা। পরে ওই নারী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে অপারেশনের মাধ্যমে তার গর্ভের মৃত সন্তানকে বের করা হয়। চিকিৎসকরা জানান, স্বামীর মারধর ও আঘাতে ওই নারীর গর্ভের সন্তান মারা যায়।

এ ঘটনায় গত ২ জুলাই স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা করতে গেলে ওসি আব্দুল মোতালেব তা নিতে গড়িমসি করে নারীকে ফিরিয়ে দেন। দ্বিতীয় দফায় অভিযোগ করতে গেলে, অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা জানার পর অভিযোগ নেওয়া হবে মর্মে একজন এএসআইকে দায়িত্ব দেন। তবে সেই এএসআই অভিযুক্তকে দেশ ছেড়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেন বলে অভিযোগ ওঠে।

'শিশুদের মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করা সমাধান নয়'

'শিশুদের মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করা সমাধান নয়'
সাংবাদিকদের মুখোমুখি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

শিশুদের মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করে দিলে কোনো সমাধান হবে না বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।

বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সম্মেলন কক্ষে ডিসি সম্মেলনের চতুর্থ দিনের ষষ্ঠ অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

ডিসিদের কি ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'আমি যেটা তাদের বলেছি, তৃণমূলে তারাই কিন্তু নেতা। ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণে তারাই কিন্তু মানুষকে টেনে আনবেন।'

মন্ত্রী বলেন, 'সেখানে তারা (ডিসি) আমাকে প্রশ্ন করেছিল, বাচ্চাদের মোবাইল ব্যবহারের কারণে নানা রকম সমস্যা হচ্ছে। এটা কিন্তু পার্ট। এটা আমাদের কাটিয়ে উঠতে হবে। আমরা এর থেকে দূরে সরে গেলে, বন্ধ করে দিলে এর থেকে কিছু হবে না। সেই কথাগুলো বললাম, আমাদের একচুয়ালি এগুলো ফাইন্ড করে এগোতে হবে। আমাদের মানসিকতা ওইভাবে তৈরি করতে হবে যে, আমি এই রকম পর্যায়ে যেতে চাই।'

তিনি আরও বলেন, 'বাংলাদেশ কোথায় উঠবে এটা বাঙালিও হয়তো অনেক সময় জানে না। কিন্তু আমাদের চাওয়াটা আকাশচুম্বী। কবিতা দিয়ে বলেছিলাম, বাঙালির চাওয়া আকাশ ছোঁয়া কথাটা চমৎকার। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর প্রমাণ।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র