ইলিশের সরবরাহ কম, দামও বাড়তি

মুজাহিদুল ইসলাম, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা: বর্ষাকাল হলো ইলিশ ধরার মৌসুম। এসময় সাগর থেকে দল বেধে নদীতে আসতে থাকে ছোট বড় মাঝারি ইলিশ। ঝাঁকে ঝাঁকে উঠে আসে জেলেদের জালে। এসেছে বর্ষা, শুরু হয়েছে ইলিশ ধরা। তবে এখনো উৎসবমুখর হয়ে ওঠেনি ইলিশ শিকারিদের কাছে। সারাদেশের মতো রাজধানীর বাজারেও ইলিশের সরবরাহ অনেক কম। তাই দামও বেশ বাড়তি, বলা চলে অধিকাংশ মানুষের নাগালের বাইরে।

বার্তা২৪.কম’র সঙ্গে কথা হয় হাতিয়ার জেলে রাকিবুদ্দিনের সঙ্গে। যিনি ট্রলার নিয়ে নদীতে ইলিশ শিকার করেন। তার দাবি, ‘নদীতে এখনও ইলিশের বিচরণ শুরু হয়নি। ইলিশ এখন সাগরে অবস্থান করছে। আসছে ভাদ্র-আশ্বিন মাসে সাগরের ইলিশ নদীতে চলে আসবে। ওই সময়টাই ইলিশের ভরা মৌসুম। ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ ধরতে আমাদের আরও কয়েক সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হবে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Aug/03/2018-Aug-03_16_26_42_news_post.jpg

গত বৃহস্পতিবার (২ আগস্ট) সকালে রাজধানীর কারওয়ানবাজারের পাইকারী মৎস আড়ত ঘুরে দেখা যায়, ইলিশ বিক্রেতাদের ঘিরে অনেকে ভিড় জামিয়ে আছেন। কাছে যেতেই দেখা গেল, ইলিশের ডালা ঘিরে যারা দাঁড়িয়ে আছেন তাদের অধিকাংশই ইলিশ দেখছেন, দরদাম করছেন। অপরদিকে, বিক্রেতা দর হাকাচ্ছেন। ইলিশ বিক্রেতাদের দাবি খুব স্বল্প পরিমাণে ইলিশ বাজারে এসেছে, তাই দামও একটু বাড়তি।

পাইকারী এই আড়তে খুচরা বিক্রেতা ও হোটেল ব্যবসায়ীদের দেখা গেলো দরকষাকষি করে ইলিশ কিনছেন। সাধারণ ক্রেতারা দরদাম করছেন, কিন্তু অধিকাংশই ইলিশ না কিনে ফিরে যাচ্ছেন। কথা বলে জানা গেল, ইলিশের দাম নাগালের বাইরে।

গত বৃহস্পতিবার বার্তা২৪.কম’র এই প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় কারওয়ানবাজারের ইলিশের খুচরা বিক্রেতা আরমান আলীর সঙ্গে। তিনি আড়তের ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ইলিশ কিনে সেখানেই খুচরা বিক্রি করছেন। তিনি বলেন, ‘বাজারে ইলিশ নেই, যেগুলো আছে সেগুলোর বাড়তি দাম অনেক। তাই ক্রেতারা দাম জিজ্ঞাসা করে কিন্তু ইলিশ না কিনে চলে যায়।’একই কথা বললেন, পাশের খুচরা ইলিশ বিক্রেতা শাজাহান মিয়া।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Aug/03/2018-Aug-03_16_25_28_news_post.jpg

বাজারে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে ইলিশের দরদাম করে ফিরে যাচ্ছেন পান্থপথ এলাকার বাসিন্দা বাবুল। তিনিও বাড়তি দামের কথা জানালেন এই প্রতিবেদককে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, আকার ভেদে ইলিশের দাম কমবেশি। জাটকা ইলিশ বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ছয়শ টাকা, নয়শ গ্রাম ওজনের ইলিশ এক হাজার দুই শত টাকা, এক কেজি ওজনের ইলিশ এক হাজার চারশ থেকে এক হাজার ছয়শ টাকা, এক কেজি চারশ থেকে এক কেজি সাতশ গ্রাম ওজনের ইলিশ এক হাজার আটশ থেকে দুই হাজার টাকা, দুই কেজি বা তার বেশি ওজনের ইলিশের দাম হাকানো হচ্ছে দুই হাজার চারশ থেকে দুই হাজার ছয়শ টাকা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Aug/03/2018-Aug-03_16_25_51_news_post.jpg

বাজারে ঘুরতে ঘুরতে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় এক সরকারি কর্মকর্তার সঙ্গে। তিনি পরিবারের জন্য ইলিশ কিনতে কারওয়ানবাজারে এসেছেন। তার সন্তানদের পছন্দ বড় ইলিশ। এক পর্যায়ে তিনি দুই কেজি সাতশ গ্রাম ওজনের একটি মাছ পছন্দ করলেন। কিন্তু ইলিশ বিক্রেতা দাম হাকালেন দুই হাজার ছয়শ টাকা কেজি। দাম শুনে ওই কর্মকর্তা একটু বিস্মিতই হলেন। পরে এতো বাড়তি দামে ইলিশ না কিনে তিনি ফিরে যাচ্ছিলেন।  এসময় সাংবাদিক পরিচয় দিলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বার্তা২৪.কম’কে বলেন, ‘বাজারে নাকি অনেক ইলিশ এসেছে। পত্রিকায় এমন সংবাদ দেখে সন্তানদের জন্য ইলিশ কিনতে এসেছিলাম। কিন্তু বড় ইলিশের দাম শুনে আমি অত্যন্ত হতাশ। বাজারে ইলিশ নেই বললে চলে। যা আছে তার দাম আকাশচুম্বি। আমি বোনাসের টাকা তুলে মনে করেছিলাম বড় ইলিশ কিনবো। কিন্তু যে দাম তাতে মনে হয় এ বছরে ইলিশ খাওয়া হবে না।’

কারওয়ান বাজারের এক আড়তের ম্যানেজার শফিকুল ইসলাম বার্তা২৪.কম’কে বলেন, ‘ইলিশ কম আসায় দাম একটু বাড়তি। কয়েক সপ্তাহ পর ইলিশের দাম কমতে পারে। কেননা কয়েক সপ্তাহ পর ইলিশের সরাবরাহ বাড়বে। তখন জেলেদের জালে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়বে।

আপনার মতামত লিখুন :