Alexa

কাউন্টার টেরোরিজমকে সালমানের প্রতিশ্রুতি

কাউন্টার টেরোরিজমকে সালমানের প্রতিশ্রুতি

সালমান মুক্তাদির, ছবি: সংগৃহীত

ইন্টারনেট থেকে নিজের অশ্লীল ভিডিও মুছে ফেলতে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটকে (সিটিটিসি) কমিটমেন্টে দিয়েছে জনপ্রিয় ইউটিউবার সালমান মুক্তাদির। 

পরে মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাত ৮ টার দিকে ডিএমপির সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগের কার্যালয় থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় সালমান মুক্তাদিরকে।

বার্তা২৪.কম-কে বিষয়টি নিশ্চিত করেন সাইবার ক্রাইম ইউনিটের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ নাজমুল হাসান।

তিনি বলেন, 'জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সালমান মুক্তাদির রাত ৮ টার দিকে চলে যান। সে ভিডিও রিমুভ সংক্রান্ত কমিটমেন্ট দিয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে তাকে কাউন্সিলিং ও নিরাপদ ইন্টারনেট সংক্রান্ত কিছু নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সেগুলো মনিটর করা হচ্ছে। কম্পলাই না করলে পরবর্তীতে আইন মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর আগে মঙ্গলবার বিকেলে ডিএমপির সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগ ইন্টারনেটে অশ্লীল ভিডিও আপলোডের অভিযোগে জনপ্রিয় ইউটিউবার সালমান মুক্তাদিরকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট। মাত্র কয়েকদিন পূর্বে একই অভিযোগে অভিনেত্রী সানাই মাহবুব সুপ্রভাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশের এই ইউনিট।

'অভদ্র প্রেম' শিরোনামের গানের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করে ব্যাপক সমালোচনার মুখ পড়েন সালমান মুক্তাদির।

সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে সালমানের অবস্থা জানতে চান ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

এর পরপরই সালমান মুক্তাদিরের ইউটিউব চ্যানেল থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে 'অভদ্র প্রেম' গানের ভিডিওটি। ‘সালমান দ্য ব্রাউন ফিস’ নামের চ্যানেলে এখন আর ভিডিওটির প্রমো ও ভিডিও কিছুই নেই।

মূলত ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) মন্ত্রীর (মোস্তাফা জব্বার) 'সেইফ ইন্টারনেট' বা নিরাপদ ইন্টারনেট স্লোগানকে সামনে রেখে ডিএমপি এর সাইবার ক্রাইম ইউনিট সালমান মুক্তাদিরকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

আপনার মতামত লিখুন :