স্টার সিনেপ্লেক্সে একসঙ্গে হলিউডের ৩ ছবি

বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
‘টয় স্টোরি ৪’, ‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস ২’ ও ‘মেন ইন ব্ল্যাক: ইন্টারন্যাশনাল’ ছবির পোস্টার

‘টয় স্টোরি ৪’, ‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস ২’ ও ‘মেন ইন ব্ল্যাক: ইন্টারন্যাশনাল’ ছবির পোস্টার

  • Font increase
  • Font Decrease

স্টার সিনেপ্লেক্সে আগামী ২১ জুন একসঙ্গে মুক্তি পাচ্ছে হলিউডের তিনটি ছবি। এগুলো হলো- ‘মেন ইন ব্ল্যাক: ইন্টারন্যাশনাল’, ‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস ২’ এবং ‘টয় স্টোরি ৪’।

প্রায় সাত বছর আগে মুক্তি পেয়েছিলো ‘মেন ইন ব্ল্যাক’ সিরিজের সবশেষ ছবি। লম্বা বিরতির পর পর্দায় এসেছে সিরিজের চতুর্থ ছবি ‘মেন ইন ব্ল্যাক: ইন্টারন্যাশনাল’। ‘মেন ইন ব্ল্যাক: ইন্টারন্যাশনাল’ এবার থাকছে ব্যাপক পরিবর্তন। এ ছবির পরিচালক এফ. গ্যারি গ্রে। আগের ছবিগুলোতে ‘এজেন্ট জে’ ও ‘এজেন্ট কে’ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন যথাক্রমে উইল স্মিথ ও হলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা টমি লি জোনস।

ছবিগুলোতে তাদের শ্বাসরুদ্ধকর সব কর্মকাণ্ড দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন দর্শক। তবে এবার উইল স্মিথ এবং টনি লি জোনস থাকছেন না। তাদের পরিবর্তে থাকছেন ক্রিস হেমসওয়ার্থ এবং টেসা থম্পসন। আগের ছবির অভিনেত্রী এমা থম্পসন থাকছেন এ ছবিতেও।

‘টেকেন’খ্যাত অভিনেতা লিয়াম নেসনকেও দেখা যাবে এ ছবিতে। তিনি থাকছেন মেন ইন ব্ল্যাক লন্ডন শাখার প্রধান হিসেবে।

১৯৯৭ সালের জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে মুক্তি পায় সিনেমাটি। মুক্তির অল্পদিনের মধ্যে বিশ্বব্যাপী সাড়া ফেলে চলচ্চিত্রটি। বারি সোনেনফ্যাল্ডের পরিচালনায় মাত্র ৯০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি আয় করেছিলো প্রায় ৫৮৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। পরবর্তী ছবিগুলোও দারুণ সাফল্য পায়। আশা করা হচ্ছে, সেই সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে এবারের ছবিও।

এদিকে, ২০১৬ সালে মুক্তি পাওয়া অ্যানিমেশন ছবি ‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস’ রাতারাতি ব্লকবাস্টারে পরিণত হয়। সব মিলিয়ে এ ছবির আয় ছিল ৮৭৫ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলার। এ রকম আর্থিক সাফল্যের পর এর সিক্যুয়াল হওয়াটাই স্বাভাবিক। দর্শকরাও অপেক্ষা করছিলেন পরবর্তী ছবির জন্য। অবশেষে মুক্তি পেয়েছে ‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস ২’।

‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস ২’ ইউনিভার্সেল পিকচার্স ও ইলুমিনেশন-এর প্রযোজনায় এ ছবির পরিচালক ক্রিস রেনাড। তবে এবারের পর্বে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। লুই সিকে আর মূল চরিত্রে নেই। এই কৌতুক অভিনেতা মূল ‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস’-এ প্রধান চরিত্র ম্যাক্স নামের কুকুরের কণ্ঠ দিয়েছিলেন।

লুই সিকে দ্বিতীয় পর্বের সঙ্গে না থাকলেও ‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস ২’ ছবিতে ম্যাক্স থাকছে স্বমহিমায়, মূল চরিত্রেই। প্যাটন অসওয়াল্ট এখন ম্যাক্সের কণ্ঠ দেবেন।
প্রথম পর্বের কেভিন হার্ট আর এরিক স্টোনস্ট্রিট অবশ্য দ্বিতীয় পর্বেও আছেন। তবে চমকপ্রদ খবর হলো, ‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস’-এর সিক্যুয়ালে কণ্ঠ চরিত্রে অভিনয় করেছেন খ্যাতিমান অভিনেতা হ্যারিসন ফোর্ড। ৫০ বছরেরও বেশি সময়ের ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো কোনো অ্যানিমেশন চলচ্চিত্রে নাম লেখান তিনি।

মাত্র ৭৫ মিলিয়ন ডলারে বানানো ‘দ্য সিক্রেট লাইফ অব পেটস’ ২০১৬ সালে বিশ্বব্যাপী আয় করেছিল ৮৭৫ মিলিয়ন ডলার। মুক্তির প্রথম সপ্তাহে এটি পকেটে তুলেছিল ১০৪ মিলিয়ন ডলার। ছবিটির দ্বিতীয় কিস্তিতেও যেন এ ব্যবসা রমরমা থাকে, হয়তো সে কারণেও এর প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এতে যুক্ত করেছেন খ্যাতিমান অভিনেতা হ্যারিসন ফোর্ডকে।

অন্যদিকে, ৯ বছর পর আবারও পর্দায় হাজির হচ্ছে পিক্সার অ্যানিমেশন স্টুডিওজ প্রযোজিত এবং ওয়াল্ট ডিজনি পিকচার্স পরিবেশিত ‘টয় স্টোরি’ সিরিজের চতুর্থ কিস্তি ‘টয় স্টোরি ৪’। এবারের কিস্তি নির্মাণ করেছেন জোশ কুলি।

‘টয় স্টোরি ৪’-এর গল্পে দেখা যাবে বনি তার খেলনা নিয়ে বের হয় এক রোড ট্রিপে। যেখানে উডির সাথে দেখা হয় হারানো প্রেমিকা বো পিপের। এরপর কি হয়? উডি কি বনির সাথে ফিরে আসে? না-কি থেকে যায় তার প্রেমিকার সাথে। এমন প্রশ্নের উত্তর নিয়েই ‘টয় স্টোরি ৪’। এই চলচ্চিত্রেও আগের কিস্তির মত প্রধান দুই চরিত্র শেরিফ উডি ও বাজ লাইটইয়ারের চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন টম হ্যাঙ্কস ও টিম অ্যালেন।

আপনার মতামত লিখুন :