Barta24

সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬

English

‘সারেগামাপা’য় তৃতীয় করা হলো নোবেলকে!

‘সারেগামাপা’য় তৃতীয় করা হলো নোবেলকে!
মাঈনুল আহসান নোবেল
বিনোদন ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

একের পর এক গান করে বাজিমাত করে গিয়েছেন ভাইরাল বয় মাঈনুল আহসান নোবেল। ভারতের জি বাংলায় সংগীতবিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘সারেগামাপা’তে অংশ নেওয়া বাংলাদেশের এই প্রতিযোগী নিজের কণ্ঠের জাদুতে মুগ্ধ করেছেন সকলকে।

শোনা যাচ্ছে- ‘সারেগামাপা’তে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছেন মাঈনুল আহসান নোবেল। তবে এ বিষয়ে এখনই কোনো মন্তব্য করতে নারাজ তিনি।

গত ২৯ জুন ‘সারেগামাপা’-এর এবারের আসরের চূড়ান্ত পর্ব ধারণ করা হয়েছে। সেখানেই নাকি যৌথভাবে ২য় রানারআপ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে প্রীতম ও মাঈনুল আহসান নোবেলকে!

জানা গেছে- ‘সারেগামাপা’তে প্রথম হয়েছেন অঙ্কিতা। যৌথভাবে ১ম রানারআপ গৌরব ও স্নিগ্ধজিৎ। আগামী ২৮ জুলাই জি বাংলায় প্রচার হবে চূড়ান্ত পর্বটি।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/01/1561974354730.jpgএরইমধ্যে চূড়ান্ত পর্বের একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, প্রথম পুরস্কার বিজয়ী অঙ্কিতার হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে গাড়ির চাবি। পুরস্কার হাতে পাশে দাঁড়িয়েছে আছেন প্রথম রানারআপের দুইজন। তাদের সবার পেছনে রয়েছেন নোবেল।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে জি বাংলায় শুরু হয় ‘সারেগামাপা ২০১৮-১৯’। নির্বাচিত ৪৮ জন প্রতিযোগী অংশ নেয়। প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ থেকে অংশ নেন অবন্তি সিঁথি, তানজীম শরীফ, রোমানা ইতি, মেজবা বাপ্পী, আতিয়া আনিসা, মন্টি সিনহা ও মাঈনুল ইসলাম নোবেল। বাকিরা নানা ধাপে ছিটকে গেলেও গোপালগঞ্জের তরুণ নোবেলই জায়গা করে নেয় চূড়ান্ত পর্বে।

আপনার মতামত লিখুন :

জন্মদিনেও একাকিত্বে প্রবীর মিত্র

জন্মদিনেও একাকিত্বে প্রবীর মিত্র
অভিনেতা প্রবীর মিত্র, ছবি: সংগৃহীত

ঢাকাই সিনেমার রঙিন নবাব সিরাজউদ্দৌলা বলা হয় প্রবীর মিত্রকে। ১৯৮৯ 'রঙিন নবাব সিরাজউদ্দৌলা' সিনেমায় অভিনয় করে ঝড় তুলে ছিলেন ঢাকাই সিনেমার এই বর্ষীয়ান চলচ্চিত্র অভিনেতা।

আজ এই অভিনেতার ৭৮ তম জন্মদিন। অথচ তাঁকে নিয়ে নিয়ে কোন আয়োজন কিংবা আলোচনা। বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমের পক্ষে খোঁজ নিয়ে জানা গেল, জন্মদিনেও রাজধানীর সেগুনবাগিচার বাসায় অসুস্থতা আর একাকিত্বে কাটছে প্রবীর মিত্রের। অস্টিওপরোসিসে আক্রান্ত হয়ে ঠিকমত হাঁটতে পারেন না প্রবীর মিত্র। আর ২০০০ সালে স্ত্রী অজন্তা মিত্র মারা যাওয়ার পর থেকে একাকিত্বে ভুগছেন, বাসায় বসে সারা দিন কাটান বই পড়ে কিংবা পত্রিকা আর টেলিভিশন দেখে। তাই জন্মদিনেও নেই বেশি কোন আয়োজন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/18/1566128171988.jpg

 

প্রবীর মিত্র 'লালকুটি' থিয়েটার গ্রুপে অভিনয়ের মাধ্যমে তার কর্মজীবন শুরু করেন। স্কুলজীবনে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের 'ডাকঘর' নাটকে অভিনয় করেছিলেন প্রবীর মিত্র। পরবর্তীতে পরিচালক এইচ আকবরের হাত ধরে 'জলছবি' নামে একটি চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়েছে বড়পর্দায় তার অভিষেক হয়।

অভিনয়ের বাইরে প্রবীর মিত্র ষাটের দশকে ঢাকা ফার্স্ট ডিভিশন ক্রিকেট খেলেছেন, ছিলেন অধিনায়ক। একই সময় তিনি ফার্স্ট ডিভিশন হকি খেলেছেন ফায়ার সার্ভিসের হয়ে। এছাড়া কামাল স্পোর্টিংয়ের হয়ে সেকেন্ড ডিভিশন ফুটবলও খেলেছেন।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয়ী প্রবীর মিত্র চাঁদপুর শহরে জন্ম গ্রহণ করেন। ব্যক্তিজীবনে তার এক মেয়ে তিন ছেলে। তবে ছোট ছেলে মারা গেছেন ২০১২ সালে।

১৫ বছর পর আবারও স্ত্রীকে গান উৎসর্গ করলেন আসিফ

১৫ বছর পর আবারও স্ত্রীকে গান উৎসর্গ করলেন আসিফ
কণ্ঠশিল্পী আসিফ ও তার স্ত্রী সালমা আসিফ মিতু

 

কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবরের প্রেম কাহিনী কম বেশি সবার জানা। বহু কাঠখড় পুড়িয়ে দীর্ঘদিন প্রেম করে বিয়ে করেছেন স্ত্রী মিতুকে। সেই মানুষটাকে ২০০৪ সালে নিজের প্রথম কোন গান উৎসর্গ করেছিলেন আসিফ আকবর।

গানটি ছিল আসিফের ১১তম একক অ্যালবাম ‘তবুও ভালোবাসি’র ৪নম্বর  ট্র্যাক ‘কোন একদিন যদি চলে যাই, তারাদের চেয়েও আরও দূরে’। শফিক তুহিনের কথায় গানটির সুর করেছিলেন রাজেশ। এরপর চলে গেছে ১৫টি বছর। কিন্তু প্রিয় সেই মানুষকে আর কোন গান উৎসর্গ করা হয়নি আসিফের।

তবে এবার আর ভুল করলেন না আসিফ। প্রায় ১৫ বছর পর আবারও স্ত্রী মিতুকে উৎসর্গ করে গান গাইলেন আসিফ আকবর। গানের শিরোনাম ‘ভালো থাকার জন্য’। আহমেদ রিজভী’র কথা ও সুরে গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন কিশোর দাস। গানটি প্রকাশ করে আর্ব এন্টারটেইনমেন্ট।

গানটি প্রসঙ্গে আসিফ আকবর বলেন, 'মিতু আর আমি এক আত্মা। আমার দীর্ঘ ক্যারিয়ারে আমাকে গুছিয়ে রেখেছে মিতু।  ওকে শুধু ভালোবাসি বললে কম হয়ে যায়। এর থেকে বড় কোন শব্দ যদি প্রেমে থেকে থাকে তাহলে সেটা মিতুর জন্যই প্রযোজ্য।'

সালমা আসিফ মিতু বলেন, 'আসিফ একটু পাগলাটে। তবে আমি মানিয়ে নিয়েছি। ওর ব্যক্তিত্ব আমাকে বরাবরই মুগ্ধ করে। ওর সব গানই আমার প্রিয়। তবে যে গানটা একান্তই আমাকে নিয়ে করা , সেই গানের প্রতি একটু বেশিই মুগ্ধতা থাকে। আমরা ভালো আছি। এভাবেই ভালো থাকতে চাই। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।' 

 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র