যাচ্ছি; যেন যাচ্ছি না এক ভঙ্গিতে

দেব জ্যোতি ভক্ত
অলঙ্করণ কাব্য কারিম

অলঙ্করণ কাব্য কারিম

  • Font increase
  • Font Decrease

ভদ্রলোকের মৃত্যু যেভাবে হয়

দুঃসাহস বুকে নিয়ে মরে যাওয়া এক ভদ্রলোকের
প্যান্টের পকেটে আছে তিন প্যাকেট ভয়

বোতলজাত শোক সারা গায়ে মেখে লাশের পাশে
এক মহিলা দাঁড়ায়ে আছে স্ত্রীর মর্যাদায়।

বিরামচিহ্ন

প্রেমিকার স্মৃতি
              সতর্ক হয়ে
                       শুয়ে থাকে;

দূর থেকে দেখে মনে হয় মৃত
             অথচ
জীবনের মতো ভীষণ অস্থির
             কখনো
জীবনের চেয়েও বেশি টগবগে;

উপেক্ষার নির্জন কার্নিশ ছুঁয়ে
                                    একা
                                    একা
                                    মেঘ
                                    হয়ে
                                    যায়
                                    সেই
                                    সব
                                    পাখি
                                    যারা জাদুবিদ্যার ঝড় বোঝে

                             এক
                          জীবনের
                      বহু স্রোত ছিঁড়ে
                   যেভাবে বেঁচে আছি
                মৃত্যুর সংশয় বুকে নিয়ে
                  সেভাবে ফুরিয়ে যাক
                      সময়ের সব ঋণ
                           অসুখের
                               ঘুমে

 রেইনি সিজন

ভুল হওয়া এক অংকের নিচে
কিছু মিথ্যা খুব অনুরোধ করে
পাওয়া আশ্রয় ছেড়ে
যদি চলে যায় দূর জানলা ছিঁড়ে
তবে আমি কেন
আর থাকব এই নামতার ঘোরে।

যাচ্ছি; যেন যাচ্ছি না এক ভঙ্গিতে
তুমি ডাকলেও আর ফিরব না
তবু ডাক দিও
আর
আচমকা কোনো দুপুরের দিকে
হেঁটে যেতে যেতে
থেমে যাওয়া এক হাওয়ার কাছে
শিখে নিও তুমি উড়াউড়ি।

এই বৃষ্টির মৌসুম
তুমি স্নান করা শহরের
বের হওয়া ক্লান্তির পথ
ছুঁয়ে ছুঁয়ে থেকো।

যেভাবে ভাবা উচিত, সেভাবে না ভেবে

ধরো, তোমাকে ছেড়ে
                   দূরে কোথাও
                        হারায়ে যেতে যেতে
                                 আবার ফিরে এলাম।

                                 অথবা
                         ফিরে এলাম না;
                                 তাহলে
                          কি ধরে নেবে
                                 নিখোঁজ
                         রোদের ভুল হয়ে
                                 ছিলাম
                          তোমার কাছে মৃত
                                 অথবা
                           সময় রেখার ছায়া                                                              

পথ বেয়ে বেয়ে ধূসর কোনো আকাশের দিকে
                                                 আমি আছি
                                    নাকি ছিলাম কখনো
                           এই প্রশ্নটাকে উপেক্ষা করে
                    স্যাঁতসেঁতে নিস্তব্ধ এক মন নিয়ে
            ম্রিয়মাণ মমতার জলে আমার স্নানের
     শব্দ কিভাবে অবরুদ্ধ রেখেছে শ্রেষ্ঠ অসুখ;
তা তুচ্ছ একটি গল্প হয়ে তোমার চুল ছুঁয়ে হাঁটে

                                   আষাঢ়
                            মাসের আর্তনাদ
                                   গড়িয়ে
                            যে পুকুরে পড়েছে
                                   সেখানে
                            তোমার ভুলগুলোর
                                   শ্মশান
                            হাওয়ার চিহ্ন মেখে
                                    পুড়ছে
                            পুরনো সব জঞ্জাল          

তাই
  তোমাকে
          ছেড়ে
                যারা
                    যায়নি
                           তারা
                               ক্যানো
                                      ঘাস
                                           আর
                                                ঘড়ির
                                            ঘোর
                                        ছিঁড়ে
                                     ঘর
                              খোঁজে
                            যা
                       আমি
                  উড়িয়ে
             দিয়েছি
       হাওয়ার
গাঙচিলে।

                  যা কিছু উড়িয়ে দিতে চেয়েছি
                         তা আমার মতো
                              উড়নচণ্ডী;
                                 তুমি
                                  তা
                                 খুব
                              যত্ন রেখো
                         কোলাহল মাখা
                প্রিয় কোনো শার্টের পকেটে

                                          এইভাবে আমার এই শহর
                                                         তোমার সন্ধ্যায়
                                                              হারায়ে যায়
                                                                   প্রতিদিন
                                                                        আর
                                                                           যে
                                                                          নদী
                                                                       ঘুমের
                                                                 গাঢ় জলে
                                                              দ্রবীভূত হয়
                                                সেখানে ঘুম হয়ে থেকো

আপনার মতামত লিখুন :