রাবির সাবেক উপ-উপাচার্যের বিরুদ্ধে লিগ্যাল নোটিশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ঢাকাস্থ অতিথি ভবনের জমি ক্রয় সংক্রান্ত অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত কমিটির সভাপতি ও সাবেক উপ-উপাচার্য চৌধুরী সারওয়ার জাহানসহ জড়িত সকলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে উপাচার্য বরাবর লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার (৭ মে) দুপুরে ঢাকা জজ কোর্টের আইনজীবী গোলাম রব্বানী এ নোটিশ পাঠান। শনিবার (৮ মে) নোটিশের একটি কপি গণমাধ্যমকর্মীদের হাতে এসেছে।

নোটিশ প্রাপ্তির সাত দিনের মধ্যে আত্মসাৎকৃত অর্থ ফেরত নেবার ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হলে বর্তমান উপাচার্যের বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইনানুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে নোটিশে জানানো হয়।

নোটিশে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-তত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক এবং সাবেক উপ-উপাচার্য চৌধুরী সারওয়ার জাহানের নেতৃত্বে ঢাকাস্থ অতিথি ভবনের জন্য জমি ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়ম তদন্তের জন্য গত ২০১৭ সালের জুলাই মাসের ২৫ তারিখে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের সাধারণ সভার ৩৪ নম্বর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত কমিটি সার্বিক তদন্ত ও পর্যালোচনা শেষে পর্যবেক্ষণসহ চৌধুরী সারওয়ার জাহানের নেতৃত্বে ঢাকাস্থ অতিথি ভবনের জন্য জমি ক্রয় সংক্রান্ত কমিটিকে দায়ী করে গত ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসের ২৮ তারিখে তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করে।

নেটিশে আরও বলা হয়, উক্ত প্রতিবেদনের পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন আইন উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট রফিকুল হাসানের আইনগত মতামত উপেক্ষা করে ঢাকাস্থ অতিথি ভবনের জন্য ৩ কোটি ৫০ লক্ষ টাকায় জমিটি খরিদ করা হয়। যার সাফ কবলা দলিল গত ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসের ২০ তারিখে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করা হয়। কিন্তু জমির প্রকৃত ক্রয় মূল্য ৩ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা গোপন করে কেবলমাত্র অর্থ আত্মসাতের উদ্দেশ্যে দলিল রেজিস্ট্রেশনের ৩৭ দিন পরে জমির মূল্য ১১ কোটি দেখিয়ে বিক্রেতার সাথে একটি অরেজিস্ট্রিকৃত চুক্তিপত্র সৃজন করা হয়। দলিলে উল্লেখিত জমির প্রকৃত মূল্য ৩ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা বাদে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জমির মূল্য বাবদ গৃহীত অতিরিক্ত ৭ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা কমিটির নিকট হতে আদায়যোগ্য এবং অর্থ আত্মসাৎ সংক্রান্ত অপরাধ সংঘটনের দায়ে চৌধুরী সারওয়ার জাহান ও তার কমিটির সদস্যদের শাস্তির মুখোমুখি করা আবশ্যক।

নোটিশে উপাচার্যকে উদ্দেশ্য করে বলা হয়, নোটিশ প্রাপ্তির ৭ দিনের মধ্যে ঢাকাস্থ অতিথি ভবনের জন্য জমি ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির সভাপতি চৌধুরী সারওয়ার জাহানসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা এবং আত্মসাৎকৃত ৭ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা ফেরত নেবার ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে আপনার বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইনানুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে এবং যার আইনগত সকল দায়-দায়িত্ব আপনাকে বহন করতে হবে।

এ বিষয়ে রুটিন দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।