ঢাবি সিনেট নির্বাচন: ৩ শিক্ষককে অযোগ্য ঘোষণা করতে আইনি নোটিশ



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

যৌন হয়রানি ও অর্থ আত্মসাতে অভিযুক্ত তিন শিক্ষককে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) সিনেটের আসন্ন শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে অযোগ্য ঘোষণা করতে আইনি নোটিশ দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই ও দেশের একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আর আই চৌধুরী।

গত সোমবার (১৬ মে) সিনেটের নির্বাচন কমিশনার ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ ডাকযোগে এ নোটিশ পেয়েছেন বলে জানা যায়।

অভিযুক্ত ওই তিন শিক্ষকের মধ্যে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের চেয়ারপারসন অধ্যাপক আকরাম হোসেনের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তোলেন তারই বিভাগের এক ছাত্রী, যা বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়নবিরোধী সেলে তদন্তাধীন।

এছাড়া গত বছরের ২২ নভেম্বর লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও যৌন হয়রানি নিয়ে ঢাবির প্রযুক্তি ইউনিটের অন্তর্ভুক্ত জাতীয় বস্ত্র প্রকৌশল ও গবেষণা ইন্সটিটিউটের (নিটার) ৩৭ জন শিক্ষক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন।

অন্যদিকে, ডিন থাকাকালীন ফার্মেসি অনুষদের তহবিল থেকে অর্থ আত্মসাৎ করেছেন মর্মে ক্লিনিক্যাল ফার্মেসি ও ফার্মাকোলজি বিভাগের চেয়ারপারসন অধ্যাপক এস এম আব্দুর রহমানের বিরদ্ধে দুদকে একটি মামলা চলমান রয়েছে।

এ বিষয়ে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, মঙ্গলবার সকালে (১৭ মে) এটি (আইনি নোটিশ) আমার অফিসে দিয়ে যাওয়া হয়েছে। আমি নিয়মমাফিক রেজিস্ট্রার বরাবর পাঠিয়ে দিয়েছি। তিনিই বিশ্ববিদ্যালয়ের লিগ্যাল অ্যাডভাইজারের সঙ্গে কথা বলে পরবর্তী করণীয় ঠিক করবেন।

আইনি নোটিশে বলা হয়, অত্যন্ত লজ্জা ও পরিতাপের বিষয় হলেও সত্য যে, বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক ঢাবির মতো একটি পবিত্র বিদ্যাপীঠের অতীব গুরত্বপূর্ণ ও শক্তিশালী বডি (কমিটি) সিনেটে শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচনে নীল দলের প্যানেলে মনোনয়ন পেয়েছেন যৌন হয়রানির অভিযোগে অভিযুক্ত দুজন ও অর্থ আত্মসাতের মামলায় দুদকে অভিযুক্ত একজন শিক্ষক, যা বিভিন্ন জাতীয় গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বহুলভাবে প্রচারিত হয়েছে।

নোটিশে আরও বলা হয়, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী ও টানা ৩য় মেয়াদে সরকারে থাকা রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ পন্থী শিক্ষকদের সংগঠন নীল দলের শিক্ষক প্যানেলের ৩৫ সদস্যের মধ্যে উল্লেখিত তিন শিক্ষক থাকায় অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শুধু একজন অ্যালামনাই হিসেবেই নয়, দেশের একজন সচেতন নাগরিক ও স্বাধীনতার স্বপক্ষের সমর্থক হিসেবে আমি অত্যন্ত মর্মাহত, ব্যথিত ও লজ্জিত।

তিন শিক্ষককে সিনেট নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে অযোগ্য ঘোষণার দাবি জানিয়ে নোটিশে বলা হয়, দেশের মিনি পার্লামেন্ট খ্যাত সকল আন্দোলন-সংগ্রামের সূতিকাগার পবিত্র এ বিদ্যাপীঠের সিনেটে ৩৫ জন শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচনে অভিযুক্তদের প্রার্থী হিসেবে অযোগ্য ঘোষণা করার জন্য আপনাকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। অন্যথায় আপনার বিরুদ্ধে মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগে রিট পিটিশন দায়েরের মাধ্যমে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গত ১২ মে নির্বাচনের প্যানেল মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিনে নীল দল ও সাদা দল (বিএনপি-জামায়াত সমর্থক শিক্ষকদের সংগঠন) তাদের ৩৫ সদস্যের মনোনীত প্যানেল রেজিস্ট্রার কার্যালয়ের নির্বাচন শাখায় জমা দেয়। তবে অভিযুক্তদের কেউই মনোনয়ন প্রত্যাহার করেনি বলে জানিয়েছেন নীল দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক মো. আবদুস সামাদ।

অধ্যাপক সামাদ বলেন, আমাদের কোনো প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করেননি। যাদের নাম জমা দেওয়া হয়েছে তারাই চূড়ান্ত।

উল্লেখ্য, আগামী ২৪ মে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সিনেটে ৩৫ জন শিক্ষক প্রতিনিধির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। প্রায় ২ হাজার শিক্ষক ভোটার হিসেবে ভোট দেবেন এ নির্বাচনে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের প্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মমতাজ উদ্দিন আহমেদ।

সিনেটে সর্বশেষ শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৭ সালের ২২ মে। সে সময় আওয়ামীপন্থী নীল দলের ৩৩ জন ও বিএনপিপন্থী সাদা দলের দুই জন শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়।

শিক্ষার্থীদের অধিকার রক্ষায় রাবিতে শিক্ষকদের প্রতীকী অনশন



রাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
প্রতীকী অনশন

প্রতীকী অনশন

  • Font increase
  • Font Decrease

শিক্ষার্থীদের ন্যায়সঙ্গত অধিকার রক্ষায়, নিপীড়ন এবং দখলদারিত্ব মুক্ত শিক্ষাঙ্গনের দাবিতে প্রতীকী অনশন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষকরা।

রোববার (২৬ জুন) সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের জোহা চত্বরে অবস্থান করেন তারা।

অনশনে অংশগ্রহণ করে অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন খান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিনিয়ত শিক্ষার্থীরা নিপীড়ন ও লাঞ্ছনার শিকার হচ্ছে। কিন্তু এ বিষয়ে প্রশাসনের কার্যকরী কোন পদক্ষেপ দেখা যাচ্ছে না। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মুক্ত চিন্তার বিকাশ ঘটে, কিন্তু একশ্রেণির শিক্ষার্থী দ্বারা সেটা সম্ভব হচ্ছে না। স্বাধীনতার এতো বছর পরে এসে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন কার্যক্রম চলতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, আবাসিক হলগুলোতে ছাত্রলীগের একক আধিপত্য ও দখলদারিত্বের ফলে শিক্ষার্থীবান্ধব পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। শিক্ষার্থীকে মারধর- লাঞ্ছনা, সিট বাণিজ্য ও দখলদারি মনোভাবের ফলে প্রতিনিয়ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মান ও মর্যাদার হানি হচ্ছে। এটা কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘটতে পারে না। বিশ্ববিদ্যালয় এমন ঘটনার কার্যকরী কোন পদক্ষেপে না নেওয়ায় আমরা অনশনে বসেছি।

অনশনে সংহতি জানিয়ে অধ্যাপক ড. ইফতিখারুল আলম মাসউদ বলেন, প্রশাসন থাকা সত্ত্বেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে একজন বন্ধু আরেকজন বন্ধুকে, একজন ছাত্র আরেকজন ছাত্রকে হল থেকে বের করার ঘটনা ঘটছে। এটা শুধু একটা কালচারের পরিবর্তনই নয় বরং মূল্যবোধের চরম অবক্ষয়। এটা এক প্রকার জঙ্গি আচরণ। এই কালচারের পরিবর্তন না হলে পরবর্তীতে এই সন্ত্রাসীরা পুরো বিশ্ববিদ্যালয়কে গিলে খাবে।

অনশনে বীর মক্তিযোদ্ধা মাহমুদ জামাল কাদেরী বলেন, একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে যেকোনো অন্যায়ের প্রতিবাদ করা নৈতিক দায়িত্ব। এই দায়িত্ব নিয়েই আমরা একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে গিয়েছিলাম। সেই চেতনা থেকে যেখানেই কোনো অন্যায়-অত্যাচার হয় সেখানেই তার প্রতিবাদে সামিল হই। এছাড়া শিক্ষপ্রতিষ্ঠানে চলমান এমন নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদগুলো সারা দেশব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়া উচিত। সবাই প্রতিবাদ করলে এমন অচলায়তন ভাঙবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

রাকসু আন্দোলন মঞ্চের আহবায়ক আব্দুল মজিদ অন্তর বলেন, হলে সাধারণ শিক্ষার্থীদেরকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা প্রতিনিয়ত নির্যাতন করে চলেছে বৈধভাবে হলে সিট পেলেও সেখান উঠতে দিচ্ছে না ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সেই সিটগুলো দখল করে সিট বাণিজ্য করছেন তারা। প্রতিনিয়ত ছাত্রদের কাছ থেকে পাওয়া অভিযোগ পেয়ে আমরা প্রশাসনের বরাবর জানাচ্ছি কিন্তু কোনো প্রতিকার পাচ্ছি না। তারই প্রতিবাদে আমরা প্রতীকী অনশন করছি।

এসময় অনশনে সংহতি জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সালেহ হাসান নকীব এবং অভিভাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্ষমতাসীন দল ছাত্রলীগের একক আধিপত্য, হলে সিট বাণিজ্য, আবাসিক শিক্ষার্থীকে হলে নির্যাতন ও নামিয়ে দেওয়ার ঘটনা আলোচনার শীর্ষে। আবাসিক হলে ছাত্রলীগের এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ এবং কার্যকরি পদক্ষেপ গ্রহণসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও প্রাধ্যক্ষ পরিষদ ও মুক্তিযোদ্ধা।

;

‘শিক্ষার গুণগত পরিবর্তনে বিশ্ববিদ্যালয় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে’



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল

  • Font increase
  • Font Decrease

শিক্ষার গুণগত পরিবর্তনে বিশ্ববিদ্যালয় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার শিক্ষার মাধ্যমে একটি কল্যাণকর ও সমৃদ্ধ রাষ্ট্র তৈরিতে কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষক, গবেষক ও শিক্ষার্থীদের সমন্বিত উদ্যোগের প্রয়োজন।

রোববার (২৬ জুন) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মুজাফফর আহমেদ চৌধুরী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সেন্টার অন বাজেট এন্ড পলিসি’র উদ্যোগে ‘বাজেট ২০২২-২৩ : শিক্ষা ও কর্মসংস্থান’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ও সেন্টার অন বাজেট এন্ড পলিসি’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়টির উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. জিয়া রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এর আগে স্বাগত বক্তব্য দেন ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী মারুফুল ইসলাম।

উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, শিক্ষা ও কর্মসংস্থান ওতপ্রোতভাবে জড়িত। বিশ্ববিদ্যালয়কে উদ্ভাবনের প্রাণকেন্দ্র হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, উচ্চশিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি ও উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণের ক্ষেত্রে শিক্ষক ও গবেষকদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

এর আগে সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক ড. এম আবু ইউসুফ মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মাহবুবুল মোকাদ্দেম আকাশ এবং ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রাশেদ আল মাহমুদ তিতুমীর প্রবন্ধের উপর আলোচনায় অংশ নেন।

মূল প্রবন্ধে কোভিড পরবর্তী বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে অগ্রসর হওয়ার লক্ষ্যে জাতীয় বাজেটে শিক্ষা ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিকে অগ্রাধিকার দেয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়। প্রবন্ধকার বলেন, এক্ষেত্রে উদীয়মান চ্যালেঞ্জগুলোকে মোকাবেলা করতে বরাদ্দকৃত অর্থের যথাযথ ব্যাবহার নিশ্চিত করতে হবে।

;

ঢাবি ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল সোমবার



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে কলা অনুষদভুক্ত ‘খ’ ইউনিটের অধীনে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষার ফল সোমবার (২৭ জুন) প্রকাশিত হবে।

রোববার (২৬ জুন) বিকেলে জনসংযোগ দফতরের পরিচালক মাহমুদ আলম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সোমবার (২৭ জুন) দুপুর ১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনস্থ অধ্যাপক আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ফলাফল প্রকাশ করবেন।

এর আগে, ৪ জুন সকাল ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত (দেড় ঘণ্টা) এই ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা চলে। ঢাকা ও ঢাকার বাইরে সাতটি বিভাগীয় শহরে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

যেখানে ১ হাজার ৭৮৮ আসনের বিপরীতে এবার আবেদন করেছিলেন ৫৮ হাজার ৫৬৫ জন। সেই হিসাবে এবার প্রতি আসনের বিপরীতে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল প্রায় ৩৩ জন শিক্ষার্থী।

;

৯ দিনের ঈদের ছুটিতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়



ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
৯ দিনের ঈদের ছুটিতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

৯ দিনের ঈদের ছুটিতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

  • Font increase
  • Font Decrease

 

আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে নয়দিনের ছুটিতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)। আগামী ৮ জুলাই থেকে পবিত্র ঈদুল আযহার ছুটি শুরু হবে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রবীর কুমার সরকার।

প্রবীর কুমার সরকার শনিবার (২৫ জুন) জানান, আগামী ৭ জুলাই আমাদের শেষ কর্ম দিবস ; কেননা ৮ জুলাই সাপ্তাহিক ছুটির দিন। আর ৯ জুলাই থেকে ঈদের ছুটি শুরু হবে। ক্যাম্পাস বন্ধ থাকবে ১৬ জুলাই পর্যন্ত। ঈদের ছুটি শেষে ১৭ জুলাই থেকে ক্লাস ও অফিস কার্যক্রম শুরু হবে।

আরবি ক্যালেন্ডার অনুযায়ী আগামী ১ জুলাই (চাঁদ দেখা সাপেক্ষে) থেকে জিলহজ মাস শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। ধর্মীয় হিসাব অনুযায়ী, জিলহজ মাসের ১০ তারিখে ঈদুল আযহা উদযাপিত হয়ে থাকে। এদিকে চাঁদ দেখা সাপেক্ষ আগামী ১০ জুলাই দেশে ঈদুল আযহা উদযাপিত হবে।

;