জাবিতে মীর মশাররফ হোসেন হলের প্রথম পুনর্মিলনী

জাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
নানা আয়োজনে মুখর হয়ে ওঠে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়/ছবি: বার্তা২৪.কম

নানা আয়োজনে মুখর হয়ে ওঠে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়/ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রজাপতি হল খ্যাত মীর মশাররফ হোসেন হলের প্রথম পুনর্মিলনী উদযাপিত হয়েছে। ‘এসো প্রাণে প্রাণ মেলাই’ স্লোগানে আয়োজিত পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে দিনব্যাপী নানা আয়োজনে মুখর হয়ে ওঠে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়।

শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে হল প্রাঙ্গণে পুনর্মিলনীর উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম।

উদ্বোধনকালে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম বলেন, ‘পুনর্মিলনীর মাধ্যমে নতুন করে বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীদের জানা ও বোঝার দ্বার উন্মোচিত হয়। একইসাথে বিশ্ববিদ্যালয়কে ঘিরে বর্তমান ও প্রাক্তনদের রোমাঞ্চিত স্মৃতি-বিস্মৃতি সামনে চলে আসবে। এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাকালের ছাত্রহল হিসেবে মীর মশাররফ হোসেন হল এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস ও গৌরবের সাক্ষী। এ হলের ছাত্ররা দেশ-বিদেশে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার মধ্য দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় এবং এ হলের সুনাম বৃদ্ধি করে চলেছেন।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক শরীফ এনামুল কবির বলেন, ‘হলকে ঘিরে সাবেক-বর্তমান প্রত্যেক শিক্ষার্থীর অনেক স্মৃতি জড়িয়ে আছে। কত বন্ধুত্ব, কত স্বপ্ন, কত কথা জড়িয়ে আছে এই হলকে ঘিরে তা বলে শেষ করা যাবে না।’

পুনর্মিলনী আয়োজন কমিটির সদস্য সচিব ও সিরাজগঞ্জ অর্থনৈতিক জোনের নির্বাহী পরিচালক শেখ মনোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় হলের প্রথম প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মেসবাহউদ্দিন আহমেদ, সাবেক প্রাধ্যক্ষ ও সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মো. ইমামউদ্দিন, সাবেক প্রাধ্যক্ষ এবং কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আমির হোসেন খান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

পুনর্মিলনীর আহবায়ক মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আলাউদ্দিনের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আমির হোসেন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক, হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ওবায়দুর রহমানসহ প্রায় তিন হাজার সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পর একটি র‌্যালি বের হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। দিনব্যাপী এ উৎসব সেলিম আল দীন মুক্তমঞ্চে নানা ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে শেষ হয়।

আপনার মতামত লিখুন :