ঈদে নতুন মডেলের ওয়াশিং মেশিন আনল ওয়ালটন



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসির সদর দফতরে নতুন মডেলের ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন উদ্বোধন করছেন অতিথিরা।

ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসির সদর দফতরে নতুন মডেলের ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন উদ্বোধন করছেন অতিথিরা।

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অত্যাধুনিক ফিচার সমৃদ্ধ নতুন মডেলের ওয়াশিং মেশিন বাজারে ছেড়েছে দেশের সুপারব্র্যান্ড ওয়ালটন। টপ লোডিং সিস্টেমের নতুন ‘এটিভি ৯০’ মডেলের ওয়াশিং মেশিনটির ধারণক্ষমতা ৯ কেজি এবং দাম ৩২ হাজার ৯৫০ টাকা।

শনিবার (১৬ এপ্রিল) গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি’র সদর দফতরে ওই নতুন মডেলের ওয়াশিং মেশিন উদ্বোধন করা হয়।

নেদারল্যান্ডের একটি প্রতিনিধিদল নিয়ে ওয়ালটন সদর দফতর পরিদর্শনে এসে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ গ্রেড-১ এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর বিকর্ণ কুমার ঘোষ ওয়াশিং মেশিনের ওই নতুন মডেলের উদ্বোধন করেন।

তার সফরসঙ্গী ছিলেন নেদারল্যান্ডের আইনদোভেন ইন্টারন্যাশনাল প্রোজেক্ট অফিসের (ইআইপিও) সহ প্রতিষ্ঠাতা পিটার পোর্থেইন ও জুস্ট হ্যালম, স্টার্ট-আপ বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শামি আহমেদ।

শনিবার সকালে অতিথিরা ওয়ালটন কারখানা প্রাঙ্গণে পৌঁছলে তাদেরকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান ওয়ালটনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ। সে সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর লিয়াকত আলী, ওয়ালটন হাই-টেকের মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান কর্নেল (অব.) এস এম শাহাদাত আলম, এডমিন বিভাগের প্রধান ইয়াসির আল ইমরান প্রমুখ।

এরপর অতিথিরা ওয়ালটন সদর দফতরের কনফারেন্স রুমে একটি করপোরেট ভিডিও ডকুমেন্টারি উপভোগ করেন। পরে ওয়ালটনের সুসজ্জিত প্রোডাক্ট ডিসপ্লে সেন্টার ঘুরে দেখার পাশাপাশি অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও মেশিনারিজ সমৃদ্ধ রেফ্রিজারেটর, কম্প্রেসর, এসএমটি, পিসিবি, ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শন শেষে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক গ্রেড-১ এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর বিকর্ণ কুমার ঘোষ, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনিমার্ণের মাইলফলক অর্জনের পথে বড় অবদান রাখছে ওয়ালটন। বিশেষ করে আইটি ও ইলেকট্রনিক্স পণ্য উৎপাদন খাতে বাংলাদেশের যে অভাবনীয় উন্নতি ও সাফল্য, ওয়ালটন হাই-টেক পরিদর্শন করলে তা উপলব্ধি ও দেখা যাবে। ওয়ালটনের সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে বাংলাদেশের আইটি ও ইলেকট্রনিক্স খাতে বিনিয়োগ করছে দেশি, বিদেশি অনেক প্রতিষ্ঠান।

এদিকে ওয়ালটনের অসংখ্য প্রোডাক্ট ক্যাটাগরি, অত্যাধুনিক প্রোডাকশন লাইন, ডিজাইনিং ও কারখানার উন্নত কর্ম পরিবেশ দেখে অভিভূত হন নেদারল্যান্ডের আইনদোভেন ইন্টারন্যাশনাল প্রোজেক্ট অফিসের (ইআইপিও) সহ প্রতিষ্ঠাতা পিটার পোর্থেইন ও জুস্ট হ্যালম।

জুস্ট হ্যালম বলেন, ওয়ালটন টেকনোলজি, নতুন পণ্য ডিজাইনিং ও ইনোভেশনে প্রচুর বিনিয়োগ করেছে। কর্ম পরিবেশও অনেক উন্নত। ওয়ালটন বাংলাদেশের জন্য এক গর্ব। গ্লোবাল ব্র্যান্ড ফিলিপসের সঙ্গে ওয়ালটনের তুলনা করে তিনি বলেন, ওয়ালটনের সামগ্রিক অগ্রগতি ফিলিপসের মতোই। তার প্রত্যাশা- ওয়ালটনেরই হাত ধরেই বাংলাদেশের আইসিটি ও হাই- টেক শিল্পের টেকসই ভীত গড়ে উঠবে।

পিটার পোর্থেইন বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর ভিশন ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বাস্তবায়নের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত ওয়ালটন। সাশ্রয়ী দামে গুণগতমানের পণ্য সরবরাহের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রতিযোগিতামূলক বাজারে দ্রুত শীর্ষে উঠেছে ওয়ালটন। ওয়ালটন ইন্টারন্যাশনাল কোয়ালিটি স্ট্যান্ডার্ড মেনে পণ্য উৎপাদন করছে। জার্মানিসহ ইউরোপের আরও অনেক দেশে টেলিভিশন রফতানি করছে ওয়ালটন। ভবিষ্যতে ইউরোপ জুড়ে ওয়ালটনের এক বিশাল রিটেইল নেটওয়ার্ক তৈরি হবে বলে তিনি আশাবাদী।

ওয়ালটনের সদর দফতরে ওয়াশিং মেশিন ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্টের দুটি সর্বাধুনিক প্রোডাকশন লাইন রয়েছে। সেখানে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ফ্রন্ট লোড, টপ লোড অটোমেটিক ও সেমি অটোমেটিক টাইপের মোট ৩০ মডেলের ওয়াশিং মেশিন উৎপাদন করা হচ্ছে।

নতুন ‘এটিভি৯০’ মডেলের ওয়াশিং মেশিনের প্রযুক্তি ও ফিচার সমন্ধে ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিনের রিসার্চ এন্ড ইনোভেশন (আরএন্ডআই) সেন্টারের বিভাগীয় প্রধান হাবিব ইফতেখার আলম জানান, ইউরোপীয় এনার্জি স্ট্যান্ডার্ড তৈরি নতুন মডেলের ওয়াশিং মেশিনে প্রতি ওয়াশে বিদ্যুৎ খরচ হবে ১ টাকারও কম। ভেতরে ২.৩ মিমি ছোট ছিদ্র কাপড় আটকে যাওয়া থেকে রক্ষা করে। এছাড়া ৫টি ভিন্ন ধরণের ঘূর্ণন কৌশল কাপড়কে কোনো ক্ষতি ছাড়াই ওয়াশ করে।

ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্সের চিফ বিজনেস অফিসার (সিবিও) আল ইমরান জানান, ওয়ালটন প্রতিনিয়ত বিশ্বের লেটেস্ট প্রযুক্তি ও ফিচার সমৃদ্ধ নতুন নতুন মডেলের ওয়াশিং মেশিন সাশ্রয়ী দামে ক্রেতাদের হাতে তুলে দিচ্ছে। তাই স্থানীয় বাজারে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ওয়াশিং মেশিনের গ্রাহকপ্রিয়তা বাড়ছে অতি দ্রুত। এরই ধারাবাহিকতায় আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও ফিচারের বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী নতুন মডেলের ওয়াশিং মেশিন বাজারে ছেড়েছে ওয়ালটন।

ক্রেতারা জিরো ইন্টারেস্টে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধার পাশাপাশি ২৯টি ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড পেমেন্টর মাধ্যমে কিনতে পারছেন ওয়ালটনের ওয়াশিং মেশিন।
কর্মকর্তারা জানান, ওয়ালটন ওয়াশিং মেশিন কেনায় বাংলাদেশের ক্রেতারা পাচ্ছেন ফ্রি ইনস্টলেশন সুবিধা। তিন বছরের বিক্রয়োত্তর সুবিধার সঙ্গে থাকছে এক বছর পর্যন্ত হোম সার্ভিস। ইনভার্টার মোটরে ক্রেতারা উপভোগ করছেন সর্বোচ্চ ১২ বছরের ওয়ারেন্টি সুবিধা। আছে ৩ মাসের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টি।

উপায়-এর মাধ্যমে উপবৃত্তির টাকা বিতরণ



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
উপায়-এর মাধ্যমে উপবৃত্তির টাকা বিতরণ

উপায়-এর মাধ্যমে উপবৃত্তির টাকা বিতরণ

  • Font increase
  • Font Decrease

ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনা থেকে ঝরে পড়া রোধে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিচালিত উপবৃত্তির টাকা মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডার ‘উপায়’-এর মাধ্যমে বিতরণ শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রাইমারি এডুকেশন স্টাইপেন্ড প্রোগ্রাম এবং প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের আওতায় সুবিধাভোগীদের উপায় একাউন্টে প্রাইমারি থেকে স্নাতক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের এই বৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে।

উপায় এর মাধ্যমে সরকারি বৃত্তি/ উপবৃত্তির টাকা পেতে শিক্ষার্থী বা তাদের বাবা-মা অথবা অভিভাবকদের উপায় একাউন্ট খুলতে হবে। যেকোনো উপায় পয়েন্ট অথবা উপায় অ্যাপে সেলফ রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে উপায় একাউন্ট খোলা যাবে।

২০২১ সালের মার্চ মাসে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের সাবসিডিয়ারি ‘উপায়’। বর্তমানে উপায় বিস্তৃত পরিসরে এমএফএস সেবা প্রদান করছে ইউএসএসডি এবং মোবাইল অ্যাপ উভয়ের মাধ্যমে। উপায় এর মাধ্যমে গ্রাহকরা সব ধরনের আর্থিক লেনদেন যেমন: ক্যাশ-ইন, ক্যাশ-আউট, ইউটিলিটি বিল পেমেন্ট, মার্চেন্ট ও ই-কমার্স পেমেন্ট; রেমিট্যান্স, বেতন ও সরকারি ভাতা গ্রহণ এবং মোবাইল রিচার্জ ছাড়াও ট্রাফিক ফাইন পেমেন্ট এবং ভারতীয় ভিসা ফি পেমেন্টের মতো এক্সক্লুসিভ সেবা গ্রহণ করতে পারছেন।

;

সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের ১০% লভ্যাংশ অনুমোদন



Mansura chamily
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড- এর ২৭তম বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) ০৬ জুলাই ২০২২ ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বার্ষিক সাধারণ সভায় ২০২১ সালের জন্য ১০ শতাংশ লভ্যাংশ অনুমোদন করা হয়, এর মধ্যে ৫ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ স্টক। সভায় সভাপতিত্ব করেন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ড. মোঃ মাহবুব উল আলম। সভায় পরিচালনা পর্ষদের ভাইস চেয়ারম্যান, পরিচালকবৃন্দ ও শেয়ারহোল্ডারবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। এছাড়াও সভায় উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী জাফর আলম, অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালকগণ।

ভার্চুয়াল এই সাধারণ সভায় শেয়ারহোল্ডারগণ ব্যাংকের সার্বিক উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করেন। সভা পরিচালনা করেন ব্যাংকের কোম্পানী সচিব (চলতি দায়িত্ব) মোঃ নাজমুল আহসান, এফসিএস।

ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. মোঃ মাহবুব উল আলম তাঁর স্বাগত বক্তব্যে বলেন, চলমান অতিমারির মধ্যেও সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের উন্নয়নের ধারা যেমন অব্যাহত রয়েছে, তেমনি ব্যবসায়িক সূচকেও ইতিবাচক ধারা অব্যাহত। আগামীতেও এ অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী জাফর আলম সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি শেয়ারহোল্ডার ও গ্রাহকবৃন্দকে অতীতের ন্যায় আগামীতেও ব্যাংকের অগ্রগতিতে সহযোগিতার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার অনুরোধ জানান। পরিচালনা পর্ষদের দক্ষ ও বিচক্ষণ দিক নির্দেশনায় সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক তার কাক্সিক্ষত লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছুতে সক্ষম হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

;

‘স্মার্ট বাংলাদেশ, স্মার্ট হাট’-এ বিকাশ পেমেন্টে কেনা যাচ্ছে কোরবানির পশু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
‘স্মার্ট বাংলাদেশ, স্মার্ট হাট’-এ বিকাশ পেমেন্টে কেনা যাচ্ছে কোরবানির পশু

‘স্মার্ট বাংলাদেশ, স্মার্ট হাট’-এ বিকাশ পেমেন্টে কেনা যাচ্ছে কোরবানির পশু

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রথমবারের মত ঢাকার হাটে সব ধরনের ডিজিটাল পেমেন্টের মাধ্যমে কোরবানির পশু কেনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংক ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত ‘স্মার্ট বাংলাদেশ, স্মার্ট হাট’ উদ্যোগে সহজেই বিকাশে পেমেন্টে কোরবানির পশুর মূল্য ও হাসিল পরিশোধের সুযোগ পাচ্ছেন গ্রাহকরা। 

পরীক্ষামূলকভাবে এবার ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ ছয়টি হাট - গাবতলী, বসিলা, আফতাবনগর, ভাটারা, কাওলা ও উত্তরা ১৭ নম্বর সেক্টর-এ ক্যাশ টাকা ছাড়াই বিকাশ পেমেন্টে কোরবানির পশু কেনার সুযোগ রাখা হয়েছে। যারা হাটে গিয়ে পছন্দ করে কোরবানির পশু কিনতে চান, তাদের জন্য বিকাশ পেমেন্ট এনেছে বাড়তি সুবিধা। অন্যদিকে বিক্রেতারাও তাদের বিকাশ মার্চেন্ট অ্যাকাউন্টে আসা টাকা এজেন্ট থেকে খরচ ছাড়াই ক্যাশ আউট করতে পারছেন কিংবা সরাসরি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পেয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া, ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়েরই ক্যাশ আউট সেবা নিশ্চিত করতে হাটে উপস্থিত থাকছেন বিকাশ এজেন্টরা।

হাট ইজারাদার, ক্রেতা ও বিক্রেতার ডিজিটাল পেমেন্টের পরিপূর্ণ সেবা নিশ্চিত করতে প্রথমবারের মত হাসিল ব্যবস্থাপনাকেও ডিজিটাল করা হয়েছে। যারা ক্যাশ টাকা ছাড়া বা ক্যাশ দিয়ে পশু কিনবেন উভয়েই হাসিলের অর্থ বিকাশেই পরিশোধ করতে পারবেন। হাটের বিভিন্ন স্থানে দেয়া বিকাশের কিউআর কোড স্ক্যান করে খুব সহজেই হাসিল পরিশোধ করতে পারবেন গ্রাহক। অন্যদিকে ইজারাদারও তার বিকাশ মার্চেন্ট অ্যাকাউন্টে আসা টাকা এজেন্টের কাছ থেকে কোনো খরচ ছাড়াই ক্যাশ আউট করতে পারছেন কিংবা সরাসরি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে নিয়ে যেতে পারছেন। বিকাশে হাসিল পরিশোধের সুযোগ পুরো হাট ব্যবস্থাপনাকে আরো সহজ করেছে। পাশাপাশি ইজারাদারের হাসিলের হিসাব রাখা সহজ ও স্বচ্ছ হয়েছে।

বিক্রেতা ও হাট ইজারাদাদের সহজেই বিকাশ অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের সুযোগ করে দিতে হাটেই ‘পার্সোনাল রিটেইল অ্যাকাউন্ট’ খোলার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুসারে, হাটের জন্য খোলা এই বিশেষ অ্যাকাউন্টগুলোর ক্যাশ আউটের দৈনিক লেনদেন সীমা প্রযোজ্য হবে না এবং মাসিক লেনদেন সীমা ৩ লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০ লাখ করা হয়েছে। একইভাবে পেমেন্টের ক্ষেত্রেও মাসিক লেনদেন সীমা ৫ লাখ থেকে ১০ লাখ টাকা করা হয়েছে। ১২ জুলাইয়ের পর এই নির্দেশনা অনুসারেই আবার দৈনিক লেনদেন সীমা পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসবে।

উল্লেখ্য, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ, হাট কেন্দ্রিক ক্যাশ টাকার নির্ভরতা কমানো, ক্রেতা ও বিক্রেতাদের টাকার নিরাপত্তা ও প্রতারণামূলক কর্মকাণ্ড ঠেকাতে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ, স্মার্ট হাট’ পাইলট প্রকল্প পরিচালনা করছে বাংলাদেশ ব্যাংক ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মারস অ্যাসোসিয়েশন সহযোগী হিসেবে রয়েছে। এই হাটগুলোর প্রত্যেকটিতে এমএফএস পেমেন্ট পার্টনার হিসেবে রয়েছে দেশের বৃহত্তম মোবাইল আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশ।

;

যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের সকল ফি দেওয়া যাবে ‘নগদ’-এ



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদফতরের সকল ফি দেওয়া যাবে ‘নগদ’-এ

যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদফতরের সকল ফি দেওয়া যাবে ‘নগদ’-এ

  • Font increase
  • Font Decrease

গ্রাহক ও উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন ফি পরিশোধের সুবিধার্থে যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদফতরের (আরজেএসসি) সকল ফি পরিশোধ করা যাবে ‘নগদ’-এর মাধ্যমে। বর্তমানে আরজেএসসি-এর অধীনে প্রায় ২ লাখ ৭২ হাজারের অধিক প্রতিষ্ঠান নিবন্ধিত রয়েছে, এই প্রতিষ্ঠানগুলো এখন সহজেই তাদের নামের ছাড়পত্র গ্রহণ, কোম্পানি বা সোসাইটি নিবন্ধন সহ যেকোন সার্টিফাইড কপি প্রাপ্তির আবেদন ফি সহজেই পরিশোধ করতে পারবে ‘নগদ’-এর মাধ্যমে।

সম্প্রতি যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদফতরের প্রধান কার্যালয়ে এ সম্পর্কিত একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এ সময় ‘নগদ’-এর নির্বাহী পরিচালক মো. সাফায়েত আলম, হেড অব বিজনেস সেলস মো. সাইদুর রহমান, হেড অব ইউটিলিটি অ্যান্ড এডুকেশন পেমেন্ট সোহেল এস তাসনীম এবং যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদপ্তরের নিবন্ধক (অতিরিক্ত সচিব) শেখ শোয়েবুল আলম এনডিসি, অতিরিক্ত নিবন্ধক (যুগ্ম সচিব) সন্তোষ কুমার পন্ডিত পিএএ, উপনিবন্ধক রণজিৎ কুমার রায়সহ দুই প্রতিষ্ঠানের ঊচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আরজেএসসি ও ‘নগদ’-এর মধ্যে এই চুক্তির ফলে এখন থেকে গ্রাহক ও উদ্যোক্তারা খুব সহজেই যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদফতরের নামের ছাড়পত্রের ফি, কোম্পানি নিবন্ধন ও সার্টিফাইড কপি গ্রহনের ফি নগদের মাধ্যমে প্রদান করবে। পরবর্তীতে অন্যান্য সেবার ফিও নগদের মাধ্যমে গ্রহন করা হবে। যেমন- রিটার্ন ও উইনিং আপ। ফলে গ্রাহকেরা ফি পরিশোধের ক্ষেত্রে বাঁচাতে পারবেন তাদের মূল্যবান সময় ও অর্থ। পাশাপাশি গ্রাহকদের এই ধরনের অর্থ লেনদেন প্রক্রিয়া হবে অনেকটাই ঝামেলাহীন ও ঝুঁকিমুক্ত।

ফি পরিশোধের ক্ষেত্রে গ্রাহকেরা ‘নগদ’ অ্যাপ এবং ইউএসএসডি (*১৬৭#) এই দুটি অপশন ব্যবহার করে আরজেএসসি-এর পেমেন্ট করতে পারবেন। এ ছাড়া কেউ চাইলে উদ্যোক্তার মাধ্যমেও আরজেএসসি-এর ফি পরিশোধ করতে পারবেন। তবে আরজেএসসি-এর এই ফি পরিশোধের ক্ষেত্রে ফি প্রদানকারীকে এক শতাংশ চার্জ দিতে হবে, যা সর্বোচ্চ ১০০ টাকা।

‘নগদ’ অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমে আরজেএসসি-এর ফি পরিশোধের জন্য প্রথমে ‘নগদ’ অ্যাপের হোম স্ক্রিন থেকে ‘বিল পে’ অপশন নির্বাচন করতে হবে। তারপর RJSC/১৪২০ টাইপ করে সাবমিশন বা রেফারেন্স আইডি দিতে হবে এবং সকল তথ্য যাচাই করে পিন টাইপ করে ট্যাপ অপশনে ধরে রাখতে হবে। বিল পেমেন্ট সম্পন্ন হয়ে গেলে গ্রাহকদের একটি কনফার্মেশন এসএমএস-এর মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।

এ ছাড়া আরজেএসসি-এর ফি ‘নগদ’ ইউএসএসডি’র মাধ্যমে পরিশোধ করতে চাইলে প্রথমে *১৬৭# ডায়াল করতে হবে। তারপর ৫ নম্বরে বিল পে সিলেক্ট করে ১২ নম্বরে অন্যান্য অপশন নির্বাচন করতে হবে। বিলারের অ্যাকাউন্ট নম্বর টাইপ করে সাবমিশন বা রেফারেন্স আইডি দিতে এবং সকল তথ্য যাচাই করে পিন টাইপ করে বিল পে করতে হবে। বিল পেমেন্ট সম্পন্ন হলে গ্রাহকেরা একটি কনফার্মেশন এসএমএস পাবেন।

গ্রাহকেরা আরজেএসসি-এর বিল পেমেন্ট করার সময় কোনো সমস্যার সম্মুখীন হলে ‘নগদ’-এর গ্রাহক সেবা নম্বর ০৯৬ ০৯৬ ১৬১৬৭ অথবা ১৬১৬৭ এই নম্বরে যোগাযোগ করতে পারবেন।

এই চুক্তির বিষয়ে ‘নগদ’-এর নির্বাহী পরিচালক মো. সাফায়েত আলম বলেন, ‘ডাক বিভাগের সেবা হিসেবে ‘নগদ’ শুরু থেকে সরকারের বিভিন্ন ধরনের সেবার সঙ্গে সম্পৃক্ত থেকেছে। আরজেএসসি-এর এই চুক্তির ফলে কয়েক কোটি মানুষের জীবন আরো সহজ হয়ে যাবে।’

যৌথমূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদপ্তর (আরজেএসসি) হলো বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশ সরকারের একমাত্র অফিস, যা বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী কোম্পানি ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান গঠনের সুবিধা প্রদান করে এবং এর মালিকানা সম্পর্কিত সকল নথিপত্র সংরক্ষণ করে।

;