সংগীতশিল্পী এসপি বালাসুব্রামানিয়াম আর নেই

বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
এসপি বালাসুব্রামানিয়াম

এসপি বালাসুব্রামানিয়াম

  • Font increase
  • Font Decrease

কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী-অভিনেতা এসপি বালাসুব্রামানিয়াম আর নেই। বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত ১টা ৪ মিনিটে চেন্নাইয়ের এমজিএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৭৪ বছর।

এসপি বালাসুব্রামানিয়ামের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার ছেলে এসপি চরণ।

এসপি বালাসুব্রামানিয়ামের মৃত্যুতে চলচ্চিত্র ও সংগীতাঙ্গনে নেমে এসছে শোকের ছায়া। তার মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন লতা মঙ্গেশকর, অক্ষয় কুমার, জুনিয়ার এনটিআর, মহেশ বাবু, ধানুশ, কৃর্তি সুরেশ, আনুশকা শেঠিসহ বলিউড ও দক্ষিণের অন্যান্য তারকা। 

করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ৫ আগস্ট হাসপাতালে ভর্তি হন এসপি এসপি বালাসুব্রামানিয়াম। নিজে সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছিলেন সেকথা। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার কিছুদিন পরই কিংবদন্তি এই সংগীতশিল্পীর স্বাস্থ্যের অবনতি হয়। ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল তাকে। কোমায় চলে গিয়েছিলেন তিনি।

১৯৪৬ সালে নেল্লোরের তেলুগু পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এসপি বালাসুব্রামানিয়াম। ছোটবেলা থেকেই সংগীতের প্রতি ছিলো তার অনুরাগ। সিনেমায় গায়ক হিসেবে তিনি আত্মপ্রকাশ করেন ১৯৬৬ সালে মুক্তি পাওয়া তেলুগু ছবি ‘শ্রী শ্রী মর্যাদা রামান্না’র মধ্য দিয়ে। তারপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে।

এসপি বালাসুব্রামানিয়াম

সংগীত জগতে পাঁচ দশকেরও বেশি সময় ধরে কাজ করেছেন এসপি বালাসুব্রামানিয়াম। রেকর্ড করেছেন ৪০ হাজার গান। তেলুগুর পাশাপাশি তামিল, কান্নাড়া, মালায়ালাম, হিন্দি সিনেমায় সমানতালে গান গেয়েছেন তিনি। সেরা গায়ক হিসেবে পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। ২০১১ সালে পেয়েছেন পদ্মশ্রী সম্মাননা।

বলিউডে তার উল্লেখযোগ্য কাজ হলো- ‘ক্রিমিনাল’, ‘ম্যায়নে প্যায়ার কিয়া’, ‘হাম আপকে হ্যায় কৌন’, ‘রোজা’-র মতো ছবি। গানের পাশাপাশি অভিনেতা হিসেবেও দর্শকদের মন ছুঁয়ে গিয়েছেন এসপি বালাসুব্রামানিয়াম।