মুক্তির আগে আইটেমের চমক!



বিনোদন রিপোর্ট, বার্তা ২৪.কম
গানের দৃশ্য

গানের দৃশ্য

  • Font increase
  • Font Decrease

সুপারহিট সিনেমা ‘ঢাকা অ্যাটাক’র তুমুল জনপ্রিয় আইটেম গান ‘টিকাটুলির মোড়’। এবার ‘মিশন এক্সট্রিম’ সিনেমার জন্য তৈরি হলো এই গানটির সিক্যুয়েল ‘টিকাটুলি-২’। যদিও এবার গানের কথায় উঠে এসেছে পান্থপথের মোড়ের নতুন সিনেমা হলের গল্প।  ‘মিশন এক্সট্রিম’র অন্যতম পরিচালক ও প্রযোজক সানী সানোয়ার গানটির কথা লিখেছেন। মতিন চৌধুরীর কন্ঠে গানটির সংগীতায়োজন করেছেন মীর মাসুম।

রোববার (২৮ নভেম্বর) জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যম্পাসে ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর প্রচারণার সময় গানটির প্রিমিয়ার করা হয়। এর একদিন পর সোমবার (২৯ নভেম্বর) রাতে এটি প্রযোজনা সংস্থা কপ ক্রিয়েশনের ব্যানারে ইউটিউবে প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রকাশের পর দারুণ সাড়া ফেলছে গানটি। সিনেমার প্রচারণার জন্য এমন ভিন্নধর্মী গান উপহার দেওয়ায় সবার প্রশংসা পাচ্ছে ‘মিশন এক্সট্রিম’ টিম।

আগেরটির মতো এবারের গানটিতেও নেচেছেন সাঞ্জু জন। তবে বদলে গেছে তার সহশিল্পী, লামিয়া মিমোর জায়গায় জন নেচেছেন মৌ মারমার সঙ্গে। কোরিওগ্রাফি করেছেন মো. রুহুল আমিন।

গানটির প্রসঙ্গে সানী সানোয়ার বলেন, “মূল গানটি প্রায় ২৩ বছর আগের। আমরা গানের মূল মালিকের থেকে সত্ত্ব কিনে ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর জন্য সেই গায়ককে দিয়েই রিমেক করেছিলাম। সেই রিমেক ভার্সনটি জনপ্রিয়তার সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে যায়।

সিনেমা হলে আধুনিকায়ন নিয়ে লিখা সেই গানটি ২৩ বছর পর কী হতে পারে এবং সেই গানের পরবর্তী গল্পই বা কী হতে পারে তা নিয়ে এবার নতুন করে কথা লিখি। গায়ক এবং মিউজিক কম্পোজিশন একই রেখে গানটি ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর প্রমোশনাল গান হিসেবে এটি প্রকাশ করেছি।”


আগামী ৩ ডিসেম্বর ‘মিশন এক্সট্রিম’ প্রেক্ষাগৃহ মুক্তি পাবে। সানী সানোয়ারের সঙ্গে সিনেমাটি যৌথভাবে পরিচালনা করেছেন ফয়সাল আহমেদ।

সিনেমাটি ৪ টি মহাদেশের প্রায় ৮টি দেশে বাংলাদেশের সাথে ৩ ডিসেম্বর একযোগে মুক্তির বিষয় নিশ্চিত করেছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলারটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে রয়েছেন ‘মাসলম্যান’খ্যাত অভিনেতা আরেফিন শুভ। এছাড়াও অভিনয় করেছেন ‘ঢাকা অ্যাটাক’খ্যাত তাসকিন রহমান, মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী, সাদিয়া নাবিলা ও সুমিত সেনগুপ্ত।

কপ ক্রিয়েশনের ব্যানারে নির্মিত সিনেমাটির অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন- রাইসুল ইসলাম আসাদ, ফজলুর রহমান বাবু, শতাব্দী ওয়াদুদ, মাজনুন মিজান, ইরেশ যাকের, মনোজ প্রামাণিক, আরেফ সৈয়দ, সুদীপ বিশ্বাস দীপ, রাশেদ মামুন অপু, এহসানুল রহমান, দীপু ইমামসহ অনেকে।

কুল নিবেদিত ‘মিশন এক্সট্রিম’ সিনেমাটি পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তথা ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ‘সিটিটিসি’র কিছু শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মিত। গল্প ও চিত্রনাট্য লিখেছেন পুলিশ সুপার সানী সানোয়ার নিজেই। সিনেমাটির সহযোগী প্রযোজক হিসেবে রয়েছে মাইম মাল্টিমিডিয়া ও ঢাকা ডিটেকটিভ ক্লাব।

মধ্যরাতে আসছে ফলাফল



বিনোদন রিপোর্ট, বার্তা ২৪.কম
নির্বাচনে আনন্দনঘন সেলফিতে দুই প্যানেলের শিল্পীরা

নির্বাচনে আনন্দনঘন সেলফিতে দুই প্যানেলের শিল্পীরা

  • Font increase
  • Font Decrease

দিনভর আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে বহুল আলোচিত চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন।

এবার মোট ভোটার ছিলেন ৪২৮ জন। এর মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৩৬৫ জন। কাঞ্চন-নিপুণ এবং মিশা-জায়েদ প্যানেলের প্রার্থীদের উপস্থিতিতে ভোটাররাও দিনভর আনন্দ-উত্তেজনাকে সঙ্গী করে স্বতঃস্ফুর্তভাবে দিয়েছেন ভোট। দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবেই অনুষ্ঠিত হয়েছে নির্বাচন।

সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী নিপূন ও জায়েদ দু’পক্ষকেই অভিযুক্ত করেছেন টাকা দিয়ে ভোট কেনার।

সকাল ৯টা ১২ মিনিটে ভোট শুরু হয়ে শেষ হয় সন্ধ্যা ছয়টার পর। প্রধান নির্বাচন কমিশনার পীরজাদা হারুন জানিয়েছেন, যথাযথ গণনার পর মধ্যরাতে ঘোষিত হবে ফলাফল।

নির্বাচন কমিশনার হিসেবে আরও দায়িত্ব পালন করছেন- বি এইচ নিশান ও বজলুর রাশীদ চৌধুরী। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান। সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মোহাম্মদ হোসেন জেমি ও মোহাম্মদ হোসেন।

নির্বাচনে ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেল থেকে নির্বাচন করেছেন ইলিয়াস কাঞ্চন (সভাপতি), নিপুণ (সাধারণ সম্পাদক), রিয়াজ আহমেদ ও ডি. এ তায়েব (সহসভাপতি), সাইমন সাদিক (সহসাধারণ সম্পাদক), শাহনুর (সাংগঠনিক সম্পাদক), নিরব হোসেন (আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক), আরমান (দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক), মামনুন ইমন (সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক) ও আজাদ খান (কোষাধ্যক্ষ)। কার্যকরী পরিষদের সদস্যপদে প্রার্থী হয়েছেন অমিত হাসান, ফেরদৌস, শাকিল খান, নানা শাহ, আফজাল শরীফ, সাংকো পাঞ্জা, জেসমিন, কেয়া, পরীমনি, গাঙ্গুয়া ও সীমান্ত।

মিশা-জায়েদ প্যানেলে নির্বাচন করছেন মিশা সওদাগর (সভাপতি), জায়েদ খান (সাধারণ সম্পাদক), ডিপজল ও রুবেল (সহসভাপতি), সুব্রত (সহসাধারণ সম্পাদক), আলেকজান্ডার বো (সাংগঠনিক সম্পাদক), জয় চৌধুরী (আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক), জে কে আলমগীর (দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক), জাকির হোসেন (সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক) এবং ফরহাদ (কোষাধ্যক্ষ)। এ প্যানেলের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য পদে প্রার্থী হয়েছেন রোজিনা, অঞ্জনা, সুচরিতা, অরুণা বিশ্বাস, মৌসুমী, আসিফ ইকবাল, বাপ্পারাজ, আলীরাজ, নাদের খান ও হাসান জাহাঙ্গীর।

কার্যকরী পরিষদের সদস্য হিসেবে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন অভিনেতা ডন ও হরবোলা।

চলচ্চিত্র শিল্পিদের পেশাগত স্বার্থ রক্ষার্থে গঠিত হয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। ভারত উপমহাদেশে এর যাত্রা শুরু হয় ১৯৩২ সালে প্রতিষ্ঠিত ভারত চলচ্চিত্র সমিতির মাধ্যমে। ১৯৩৮ সালে কলকাতায় প্রতিষ্ঠিত হয় চিত্র ব্যবসায়ীদের সংগঠন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সমিতি। এরপর ১৯৩৯ সালে কলকাতায় নিখিল বঙ্গ চলচ্চিত্র সংঘ নামে আরএকটি সংগঠন প্রতিষ্ঠিত হয়। দেশ বিভাগের পর পূর্ববঙ্গের রাজধানী ঢাকায় ১৯৫২ সালে পূর্ববঙ্গ চলচ্চিত্র সমিতি নামে আরেকটি সংগঠন গঠিত হয়।

এভাবেই পর্যায়ক্রমে ১৯৮৪ সালে গঠিত হয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি।

;

অভিনয়শিল্পী সংঘের নেতৃত্ব যাদের হাতে



বিনোদন রিপোর্ট, বার্তা ২৪.কম
নাসিম ও রওনক

নাসিম ও রওনক

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত অভিনয় শিল্পী সংঘের সভাপতি পদে জয়ী হয়েছেন আহসান হাবিব নাসিম আর সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন রওনক হাসান।

শুক্রবার রাত ১০টার দিকে এই ফলাফল ঘোষণা করেন শিল্পী সংঘের নির্বাচন কমিশনার অভিনেতা খায়রুল আলম সবুজ। এবারের নির্বাচনে তিন সহসভাপতি পদে জয়ী হয়েছেন আনিসুর রহমান মিলন, ইকবাল বাবু, সেলিম মাহবুব। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে জয়ী হয়েছেন নাজনীন হাসান চুমকী, জামিল হোসেন।

সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন সাজু খাদেম। অর্থ সম্পাদক পদে মুহাম্মদ নূর এ আলম (নয়ন), দপ্তর সম্পাদক শেখ মেরাজুল ইসলাম, অনুষ্ঠান সম্পাদক রাশেদ মামুন অপু, আইন ও কল্যাণ সম্পাদক পদে জয়ী হয়েছেন ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর।

প্রচার ও প্রকাশনা পদে প্রাণ রায়, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক হয়েছেন সুজাত শিমুল। সাত কার্যনির্বাহী সদস্য পদে জয়ী হয়েছেন শামস সুমন, আইনুন নাহার পুতুল, তানভীর মাসুদ, মাজনুন মিজান, আশরাফুল আশীষ, সূচনা সিকদার ও হিমে হাফিজ।

নির্বাচনে ৭৫২ জন ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছেন ৬৪৪ জন। নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে ২১ পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ৪৮ অভিনয়শিল্পী।

দিনভর অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন অভিনয়শিল্পী খায়রুল আলম সবুজ। কমিশনের সদস্য হিসেবে রয়েছেন নরেশ ভূঁইয়া ও মাসুম আজিজ।

;

জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী মৌসুমী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
মৌসুমী

মৌসুমী

  • Font increase
  • Font Decrease

‘আমি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। আমাদের পুরো প্যানেল জয়লাভ করবে।’

শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ভোটগ্রহণ শুরু হয়। এফডিসিতে সমিতির স্টাডি রুমে চলে এই ভোটগ্রহণ। ভোট দেওয়ার পর সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এমন আশা প্রকাশ করেন তিনি।

সাংবাদিকদের মৌসুমী বলেন, ‌‘খুব সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন হচ্ছে। রেজাল্ট যাই হোক মেনে নিব।’

মৌসুমী আরও বলেন, অনেক দিন পর একটা উৎসব মুখর পরিবেশ দেখতে পাচ্ছি এফডিসিতে। জয়ের ব্যাপারে আমি আশাবাদী। এর আগে এত শান্তিপূর্ণ নির্বাচন দেখিনি। আশা করছি, আমাদের পুরো প্যানেল জয়লাভ করবে।

মিশা-জায়েদ প্যানেল থেকে এবার নির্বাচন করছেন এই জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা মৌসুমী।

;

প্রথমবার ভোট দিয়ে উচ্ছ্বসিত দীঘি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
চিত্রনায়ক রুবেলের সঙ্গে এফডিসিতে দীঘি

চিত্রনায়ক রুবেলের সঙ্গে এফডিসিতে দীঘি

  • Font increase
  • Font Decrease

কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে চলছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২২-২৪ মেয়াদের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন। এবার নতুন অনেক শিল্পী দিচ্ছেন ভোট। প্রতিবার বাবার জন্য ভোট চেয়ে আসলেও এবার নিজেই ভোট দিয়ে খুশি দীঘি। প্রথমবার ভোট দিয়ে উচ্ছ্বসিতও তিনি।

শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে এ ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। এফডিসিতে সমিতির স্টাডি রুমে চলছে এই ভোটগ্রহণ। ভোট দেয়ার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আনন্দ প্রকাশ করেন দীঘি।

সম্প্রতি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সদস্য হয়েছেন দীঘি। এবারই প্রথম ভোট দিয়েছেন এই তরুণ নায়িকা। প্রথমবার ভোট দিয়ে ভীষণ উচ্ছ্বসিত তিনি।

নির্বাচনে জয়-পরাজয় থাকবে। বাবার জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী তিনি।

সাংবাদিকদের তিনি জানান, নির্বাচনে প্রতিবার বাবার সঙ্গে আসতাম। আর আমি দাঁড়িয়ে থাকতাম এবং ভোট চাইতাম। এবার আমি নিজে ভোটার।

দীঘির বাবা অভিনেতা সুব্রত বরাবরই শিল্পী সমিতির নির্বাচনে অংশ নিয়ে আসছেন।

এ বছর মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান প্যানেল থেকে সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন দীঘির বাবা অভিনেতা সুব্রত।
বাবার জয় নিয়ে শতভাগ আশাবাদী দীঘি।

তিনি বলেন, বাবাকে আমি কখনও নির্বাচনে হারতে দেখিনি। তিনি সবসময় তার কর্মগুণে জয়ী হয়েছেন।

এদিকে নির্বাচন দেখতে আসছে বিভিন্ন দর্শক-শ্রোতা। এবার সকল শ্রেণির মানুষের ভেতরে প্রবেশের বাধ্যবাধকতা থাকার কারণে শুধু পাস ধারীদের ভিতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়েছে।

নির্বাচন শুরু হওয়ার পর থেকে এফডিসির সামনে উৎসুক জনতার ভিড় লক্ষ করা গেছে। যা সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

কাঞ্চন-নিপুণ ও মিশা-জায়েদ প্যানেল ছাড়াও এবারের নির্বাচনে আছেন দুজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। এবার মোট ভোটার ৪২৮ জন।শিল্পী সমিতির নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন পীরজাদা হারুন।

;