আগুন ঝরা পারফরম্যান্সে দর্শক মাতাল মাইলস



বিনোদন রিপোর্ট, বার্তা২৪.কম
আগুন ঝরা পারফরম্যান্সে দর্শক মাতাল মাইলস

আগুন ঝরা পারফরম্যান্সে দর্শক মাতাল মাইলস

  • Font increase
  • Font Decrease

সন্ধ্যা থেকেই মেঘাচ্ছন্ন আবহাওয়া। গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি উপেক্ষা করে ঠিকই যথাসময়ে শুরু হয়ে গেল বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপনে লাল সবুজের মহোৎসব। উপস্থিত হাজারো দর্শক যতটা না ভিজলেন বৃষ্টিতে, নজরুলের কথায় সুরে দেশসেরা শিল্পীদের কন্ঠের মদিরায় ভিজলেন তারও বেশি।

তবে অপেক্ষা ছিল মাইলস এর। মাইলস এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা শাফিন আহমেদের দল ছেড়ে যাওয়ার পর সকলের শঙ্কা ছিল মাইলস কি ফিরবে আবার কনসার্টে? শাফিন আহমেদ এক ভিডিও বার্তায় সম্প্রতি তার দল ছেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি আহবান জানিয়েছিলেন মাইলসের কার্যক্রমও যেন স্থগিত করা হয়। শঙ্কা ছিল সে কারণেই। তবে সে শঙ্কা উড়িয়ে দিয়ে বৃষ্টিস্নাত সন্ধ্যায় এক আগুন ঝরা কনসার্টই উপহার দিল হামিন আহমেদের মাইলস।


একের পর এক গানে দর্শকদের উন্মাদনায় মাতালেন ব্যান্ডের সকলে। মাঝপথে সবাইকে চমকে দিয়ে মঞ্চে উঠে পড়েন উপমহাদেশের অন্যতম সেরা পারকেশনিস্ট শিবামনি। মাইলসের পারফরম্যান্স এ নতুন মাত্রা যোগ করেন তিনি। পাশাপাশি সংগীত পরিচালক কৌশিক হোসেন তাপসকেও মঞ্চে ডেকে নেন হামিন আহমেদ। মাইলসের বিখ্যাত ধিকি ধিকি গানে নতুন মাত্রা যোগ করেন তাপস। সুনিপন বাদ্য আর শক্তিশালী গায়কিতে মাইলস জানান দেয় এখনও পূর্ণ শক্তিতেই মঞ্চে থাকছেন তারা।

এফবিসিসিআই আয়োজিত হাতিরঝিলের অ্যামফিথিয়েটারে চলমান এ উৎসবের চতুর্থ দিন ছিল শনিবার। এদিন নজরুলের সুরেলা শব্দধ্বনিতে সজ্জিত ছিল গোটা আয়োজন।প্রখ্যাত থেকে নতুন প্রজন্মের শিল্পীরা শুনিয়েছেন নজরুলসঙ্গীত। বৈরী আবহাওয়ার ঝিরিঝিরি বৃষ্টির মাঝেও সেই সুরসুধায় স্নাত হন এই শহরের অন্তঃপ্রাণ সুররসিকরা।


ফাতেমাতুজ জোহরার সুললিত কণ্ঠের আশ্রয়ে পরিবেশনা পর্বের সূচনা হয়। শ্রোতার অন্তরে স্নিগ্ধতার বীজ বুনে এই শিল্পী গেয়ে শোনান- আমি পুরব দেশের পুরনারী/গাগরি ভরিয়া এনেছি গো অমৃত-বারি ...। পরে পরিবেশনায় শুনিয়েছেন- দূর দ্বীপবাসিনী, দূর দ্বীপবাসিনী/চিনি তোমারে চিনি দারুচিনিরও দেশে ...।

নজরুলের গজলকে সঙ্গী করে মঞ্চে আসেন সুজিত মোস্তফা। গেয়ে শোনান- মদির আঁখির সুধায় সাকি ডুবাও আমার এ তনু মন ...। পরে গানে প্রকাশ করেন প্রেয়সীর প্রতি অনুরাগ। চর্চিত কণ্ঠের মাধুর্য ছড়িয়ে পরিবেশন করেন- মোর প্রিয়া হবে এসো রানী/দেবো খোপায় তারার ফুল ...। সেই সুরের আবেশে মুগ্ধতার প্রতিফলনে ঝরেছে শ্রোতার করতালি।


নতুন প্রজন্মের শিল্পী হৈমন্তী শুনিয়েছেন- অঞ্জলি লহ মোর সঙ্গীতে ...। এরপর মঞ্চে আসে শামীম ও প্রিয় নামের এই প্রজন্মের আরো দুই শিল্পী। তারা ‘উচাটন মন’, ‘ব্রজ গোপী’সহ কয়েকটি নজরুলসঙ্গীত। পুতুলের গাওয়া গানের শিরোনাম ছিল ‘মোর ঘুম ঘোরে এলে মনোহর’। পুলক শুনিয়েছেন ‘হারানো হিয়া’ ও ‘্ধসঢ়;আলগা করো গো খোঁপার বাঁধন’। লুইপার পরিবেশিত গানের শিরোনাম ছিল ‘আমার আপনার চেয়ে আপন যে জন’ ও ‘পরদেশী মেঘ’।

এদিনের অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ ছিল ব্যান্ডদল মাইলসের পরিবেশনা। জনপ্রিয় সব গানের আশ্রয়ে দলটি মাতিয়ে রাখে শ্রোতাদের।


এদিনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দীন আহমেদ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। সভাপতিত্ব করেন এফবিসিসিআইয়ের সিনিয়ন ভাইস প্রেসিডেন্ট মোস্তফা আজাদ চৌধুরী প্রধান অতিথির বক্তব্যে সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধু এই দেশকে স্বাধীন না করলে বাঙালি কখনো এই দেশ শাসন করতো পারতো না।


বাঙালি ছিল শোষিত জাতি। সেই শোষিত জাতি আজ অবতীর্ণ হয়েছে শাসকের ভূমিকায়। তাই সংগ্রামের মাধ্যমে অর্জিত বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। তার সুযোগকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক সময়ের অচেনা বাংলাদেশকে সারা বিশ্বের রোল মডেলে পরিণত করেছেন।


প্রসঙ্গক্রমে তিনি বলেন, সাহিত্য-সঙ্গীতের মাধ্যমে একটি জাতিকে জাগিয়ে তোলা এক কবি কাজী নজরুল ইসলাম। তিনি আমাদের চলার পথ দেখিয়েছেন।

কে এম খালিদ বলেন, আমাদের যাপিত জীবনের সঙ্গে মিশে আছেন কাজী নজরুল ইসলাম। নানা সংকটে-দুর্যোগে এই কবির সৃষ্টি আমাদের উদ্দীপনা জোগায়।


পঞ্চম দিনের আয়োজনে থাকছে প্রখ্যাত শিল্পীদের আয়োজনে রবীন্দ্রসংগীত পরিবেশনা। সবশেষে মঞ্চ মাতাতে একক কনসার্টে হাজির হবেন তরুণ প্রজন্মের জনপ্রিয় শিল্পী ইমরান।

মালয়েশিয়ার পর এবার ফ্র্যান্সে মুক্তি পাচ্ছে ‘শান’



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সিয়াম আহমেদ ও পূজা চেরি

সিয়াম আহমেদ ও পূজা চেরি

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদুল ফিতরে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়াতে একযোগে মুক্তি পায় সত্য ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত পুলিশি অ্যাকশন থ্রিলার ছবি শান। মুক্তির পরই দর্শক নন্দিত হয় ছবিটি। এবার 'শান' মুক্তি পাচ্ছে ফ্রান্সে।

আগামী ২৭ মে থেকে ফ্রান্সের প্যারিস শহরের গোমো সেন্ট ড্যানি ও পাথে লা ভিলেত হলে ছবিটি প্রদশির্ত হবে। সেখানে ছবিটি ডিস্টিবিউশন করছে দেসি এন্টারটেইনমেন্ট।

প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার রাব্বানী খান বলেন, ‘আমরা আপাতত প্যারিস শহরতলীর দুটি থিয়েটারে মুক্তি দিচ্ছি ছবিটি। পরের সপ্তাহে তুলুজে রিলিজের সম্ভাবনা আছে। দুটি হলে প্রথম সপ্তাহে ১৮টি শো দেখানো হবে। দর্শকদের রেসপন্স বাড়লে পরবর্তীতে শো আরও বাড়ানো হবে।’

শান এ মূখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সিয়াম আহমেদ। তার বিপরীতে আছেন পূজা চেরি। ঈদুল ফিতরে বাংলাদেশের সব বড় বড় হলে মুক্তি পায় ছবিটি। মুক্তির প্রথম দিন থেকেই রাজধানীতে বেশ সাড়া ফেলে। অলমোস্ট হাউজফুল যায় শান।

ছবিটি পরিচালনা করেছেন এম রাহিম। ফ্রান্সে ছবিটির মুক্তি নিশ্চিত করে তিনি বলেন, ‘ঈদে দর্শক টেনেছে ছবিটি। আমরা চাই ছবিটি প্রবাসী বাংলাদেশীরাও দেখার সুযোগ পাক। এবার ফ্যান্সে ছবিটি মুক্তি দিচ্ছে দেসি এন্টারটেইনমেন্ট। বাংলা সিনেমা বিদেশে মুক্তি দিতে তাদের এগিয়ে আসার উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। আশা করি ২৭ মে ছবিটি ফ্যান্সের দর্শকরাও হলে এসে দেখবেন।’

'শান' ছবিটির কাহিনি সাজিয়েছেন আজাদ খান। ছবিটির ক্রিয়েটিভ প্রধানও তিনি। চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন যৌথভাবে আজাদ খান ও নাজিম উদ দৌলা। ফিলম্যান প্রডাকশনের ব্যানারে সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন ওয়াহিদুর রহমান এবং এম আতিকুর রহমান।

আজাদ খান বলেন, 'শানের মতো পুলিশ অ্যাকশন ছবি এর আগে বাংলাদেশে হয়নি। যে ভাবনা নিয়ে শান নির্মাণ করতে চেয়েছিলাম সেই ভাবনাকেও হার মানিয়েছে। ছবিটি মুক্তির পর দর্শকদের সাড়া পেয়েছি এটা আমাদের পরবর্তী সিনেমা নির্মাণে আগ্রহী করেছে। এবার ছবিটি ফ্রান্সে মুক্তি পাচ্ছে এটা আমাদের জন্য দারুণ সুখবর।'

বিদেশে মুক্তি নিয়ে সিয়াম আহমেদ বলেন, ‘শান ছবিটি এবার ফ্রান্সে মুক্তি পাচ্ছে। ভালো লাগছে সেখানকার প্রবাসী ভাই-বোনরা ছবিটি এবার দেখতে পাবেন। আমি সবাইকে হলে এসে ছবিটি দেখার জন্য আহ্বান করবো।’

ছবিটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন তাসকিন রহমান, সৈয়দ হাসান ইমাম, চম্পা, অরুনা বিশ্বাস প্রমুখ।

;

৪ জুন আসছে তাহসান-তিশার ‘মানি মেশিন’



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
‘মানি মেশিন’র দৃশ্য

‘মানি মেশিন’র দৃশ্য

  • Font increase
  • Font Decrease

‘বেচতে জানলে টাকাও বেচা যায়!’ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া এই সংলাপটি বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়ার ব্যানারে নির্মিত আরটিভি প্লাস এর ওয়েব ফিল্ম ‘মানি মেশিন’ এর।

আগামী ৪ জুন রাত ৮টায় আরটিভি প্লাসে আসছে বহুল প্রতীক্ষিত ওয়েব ফিল্ম ‘মানি মেশিন’।

বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া লিমিটেড এর ব্যানারে সৈয়দ আশিক রহমানের প্রযোজনায় মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ-এর গল্প ও পরিচালনায় ‘মানি মেশিন’ এর শুটিং শেষ হয় গত বছরের শেষদিকে। চিত্রনাট্য লিখেছেন মারুফ রহমান।

অভিনয় করেছেন- তাহসান খান, তানজিন তিশা, শতাব্দী ওয়াদুদ, মুনিরা আক্তার মিঠু, ফজলুল বাশার, মিলি বাশার প্রমুখ।

ওয়েবফিল্ম মানি মেশিন এর প্রযোজক ও আরটিভি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক রহমান বলেন- মানি মেশিন অত্যন্ত সুন্দর একটি ওয়েবফিল্ম হিসেবে দর্শকরা গ্রহণ করবে বলে আমি মনে করি, কারণ মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ কাজটি খুব যত্ম নিয়ে করেছেন। তাহসান ও তিশাসহ অভিনয়শিল্পীরা অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে কাজটি করেছেন।

;

চরকিতে আসছে ‘হাইলাইট’



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
‘হাইলাইট’র দৃশ্য

‘হাইলাইট’র দৃশ্য

  • Font increase
  • Font Decrease

চরকিতে প্রত্যেক বৃহস্পতিবার মানেই নতুন কনটেন্ট। অরিজিনাল বা ডাব কনটেন্ট; যেটাই হোক চরকিতে প্রতি সপ্তাহে নতুন কনটেন্ট মুক্তি পাবেই। এর ধারাবাহিকতায় আগামী বৃহস্পতিবারেও এর ব্যতিক্রম হবে না।

আগামী ২৬ মে রাত ৮টায় বিশ্বব্যাপী মুক্তি পাচ্ছে ইরানি সিনেমা ‘হাইলাইট’। আসগার নাইমী পরিচালিত ৮০ মিনিটের এই সিনেমাটি এবার বাংলা ভাষায় দেখতে পারবে দর্শক।

একটি দুর্ঘটনায় আহত হয় নাসরিন ও কৌরশ নামে দুইজন। আর এরপরই জানা যায় তাদের এই সফরের ব্যাপারে কেউ কিছুই জানত না, এমনকি তাদের স্বামী-স্ত্রীরাও। আর এরপর থেকেই ডানা বাঁধতে থাকে নানা রহস্যের। ঘটনার প্রেক্ষিতে ঘটনা ঘটতে থাকে। সবার মনে নানা রকম প্রশ্নও উঠতে থাকে। এমনই এক গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘হাইলাইট’।

পেজমেন বাজেঘী, আজেদেহ জারেই, স্যাম ঘারিবিয়ানসহ আরও অনেক অভিনয় শিল্পীর দেখা মিলবে এই সিনেমায়।

‘হাইলাইট’ ফ্যামিলি-ড্রামা ঘরানার ছবি। অ্যাকশন, ড্রামা, ইমোশন সব আছে এই এক সিনেমায়। সিনেমাটি দর্শক উপভোগ করতে পারবে পরিবার নিয়ে।

ইরানি চলচ্চিত্র ‘হাইলাইট’ ২০১৮ সালে মুক্তি পর বেশ আলোচনায় এসেছিল। চরকিতে শুধু ‘হাইলাইট’-ই নয়; সময় নিয়ে দেখে ফেলতে পারেন বাংলায় ডাব করা পিগ জেনে, জিরো ফ্লোর, মিরাকেল ইন সেল নং ৭ এর মতো ইরানি, টার্কিশসহ ভিনদেশী ভাষার দুর্দান্ত সব সিনেমাগুলো।

;

স্ট্যাটাস দিয়ে প্রমাণ দিতে হলো বেঁচে আছি: হানিফ সংকেত



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
হানিফ সংকেত

হানিফ সংকেত

  • Font increase
  • Font Decrease

সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে নির্মাতা ও উপস্থাপক হানিফ সংকেতের। মঙ্গলবার (২৪ মে) রাতে হঠাৎ করেই তাঁর মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এমন মিথ্যা গুজব নিয়ে তিনি আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন।

বুধবার (২৫ মে) নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট দিয়ে হানিফ সংকেত লিখেছেন, “আমার ভাবতে কষ্ট হচ্ছে আমাকে স্ট্যাটাস দিয়ে প্রমাণ দিতে হলো, আমি বেঁচে আছি। আমার মৃত্যু নিয়ে এ ধরণের স্ট্যাটাস কখনও দিতে হবে ভাবিনি।”

“সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারী এক শ্রেণির বিকৃত মানসিকতার মানুষ তাদের ভিউ ব্যবসা ও ফলোয়ার বাড়াবার প্রত্যাশায় মানুষের মৃত্যু নিয়ে মিথ্যে ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে অসামাজিক কাজ করছে। ছড়িয়েছে আমার মৃত্যু সংবাদ। একজন সুস্থ মানুষকে মেরে ফেলার পেছনে এদের কি ধরণের মানসিকতা কাজ করে আমার বোধগম্য নয়। তারা কী একবারও চিন্তা করে না আমাদেরও পরিবার আছে, আত্মীয়-স্বজন আছে, শুভাকাঙ্ক্ষী আছে? এ ধরণের সংবাদে তাদের মানসিক অবস্থা কি হতে পারে? আমি আপনাদের সবার দোয়া ও ভালোবাসায় সুস্থ আছি। ভালো আছি। আমার কোনরকম কোন দুর্ঘটনাও ঘটেনি। গত দু’দিন ধরে আমি ও আমার পরিবার এই মৃত্যু গুজবের কারণে নিদারুণ মানসিক কষ্টে আছি। শত শত মানুষ যোগাযোগ করেছেন, এখনও করছেন। সুস্থতা কামনা করছেন। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে শুধুমাত্র ভিউ, লাইক, শেয়ার পাবার জন্য একজন মানুষকে এরা মেরে ফেলবে? এ কি ধরণের মানসিকতা? নাকি এদের অন্য কোন উদ্দেশ্য আছে? এর আগেও বেশ কয়েকজন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বের মৃত্যুর আগেই মৃত্যুর গুজব ছড়িয়েছে একটি মহল। সময় এসেছে এদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হবার। যেসব মাধ্যম এবং পেজ থেকে এ ধরণের সংবাদ আপলোড হচ্ছে, শেয়ার হচ্ছে তাদের আপনারা বুঝিয়ে দিন, না জেনে না শুনে নিশ্চিত না হয়ে কোন কিছু শেয়ার করা শুধু অন্যায় নয়, অপরাধও। দেশ বিদেশ থেকে আমার অনেক শুভাকাঙ্ক্ষী, আত্মীয়-স্বজন ও ভালোবাসার মানুষরা আমাকে সমবেদনা জানিয়েছেন। ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।”

“আমার আকস্মিক মৃত্যু গুজবে যারা কষ্ট পেয়েছেন, সমবেদনা জানিয়েছেন সবার প্রতি আমার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা। আর যারা এ ধরণের গুজব ছড়িয়েছে তাদের প্রতি অন্তর থেকে ঘৃণা প্রকাশ করছি। ইতোমধ্যে আমি সাইবার ক্রাইম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তারা শীঘ্রই ব্যবস্থা নেবেন বলে আমাকে আশ্বস্ত করেছেন। আর একটি অনুরোধ, ‘গুজবে কখনও কান দিবেন না’।”

সবশেষ সকলের কাছে দোআ চেয়ে তিনি লিখেছেন, “আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন। আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসাই আমার পাথেয়।”

;