পুতিন এখনও ইউক্রেনের বেশিরভাগ অংশ দখল নিতে চায়: যুক্তরাষ্ট্র



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এখনও ইউক্রেনের বেশির ভাগ অংশ দখল করতে চান বলে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার ধারণা।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

মার্কিন ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্সের ডিরেক্টর এভ্রিল হেইন্স বলেছেন, যুদ্ধের কারণে মস্কোর সেনারা এতটাই দুর্বল হয়ে পড়েছে যে, তারা কেবল আঞ্চলিক জয় লাভ করতে সক্ষম হবে। এর মানে যুদ্ধ দীর্ঘ সময় ধরে চলতে পারে বলেন তিনি।

মার্চ মাসে মস্কো কিয়েভ এবং অন্যান্য শহর দখলে ব্যর্থ হওয়ার পরে ইউক্রেনের ডনবাস এলাকা দখলের প্রচেষ্টা পুনরায় ফোকাস করে।

তিনি আরও বলেন, পুতিনের এখনও একই লক্ষ্য রয়েছে যা তিনি সংঘাতের শুরুতে রেখেছিলেন। তিনি ইউক্রেনের বেশিরভাগ অংশ দখলে নিতে চান। কিন্তু রাশিয়ার শিগগিরই এই লক্ষ্য অর্জনের সম্ভাবনা কম।

এভ্রিল হেইন্স বলেন, আমরা পুতিনের সামরিক উদ্দেশ্য এবং তার সামরিক সক্ষমতার মধ্যে সংযোগ বিচ্ছিন্ন দেখতে পাচ্ছি, তার উচ্চাকাঙ্ক্ষা এবং সামরিক বাহিনী যা অর্জন করতে সক্ষম তার মধ্যে এক ধরনের অমিল।

ট্রাম্পের ফ্লোরিডার বাড়ি থেকে ‘গোপন নথি’ জব্দ এফবিআইয়ের



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাসভবন ফ্লোরিডার মার–এ–লাগোতে ‘অভিযান’ চালিয়েছে ‘গোপন নথি’ জব্দ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই।

দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনের বরাতে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

বিবিসির খবরে বলা হয়, নথিগুলোর একটি তালিকা করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে একজন বিচারক সাত পৃষ্ঠার নথি মুক্ত করেন। এর পর নথিগুলোর তালিকা প্রকাশ করা হয়।

তবে জব্দ করা ১১ সেট নথির বিষয়ে ট্রাম্প বলেছেন, তিনি কোনো অপরাধ করেননি। নথিগুলোতে গোপন কিছু নেই এবং নিরাপদ।

গত বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ তল্লাশি পরোয়ানার বিষয়বস্তু প্রকাশ করতে বিচারককে অনুরোধ জানান। ওই পরোয়ানার ভিত্তিতেই গত সোমবার (৮ আগস্ট) মার-এ-লাগোতে তল্লাশি চালায় এফবিআই।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাড়িতে আকস্মিক অভিযান চালিয়েছে এফবিআই। গত সোমবার (৮ আগস্ট) ফ্লোরিডায় তার বিলাসবহুল মার-এ-লাগো বাড়িতে এ অভিযান চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন এ রিপাবলিকান নেতা। ৯ আগস্ট একই অভিযোগ করে ট্রাম্প নিজেই তার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ট্রুথ সোশ্যালে প্রকাশ করেন। এরপরই তার সমর্থকরা মার-এ-লাগো নামের বিলাসবহুল বাড়ির সামনে জড়ো হতে থাকেন।

যুক্তরাষ্ট্রে সাবেক কোনো প্রেসিডেন্টের বাড়িতে এভাবে এফবিআই হানা দেওয়ার ঘটনা অভূতপূর্ব বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এই প্রথম কোনো সাবেক প্রেসিডেন্টের বাড়িতে ফৌজদারি তদন্তে তল্লাশি চালানো হয়।

 

;

নিউইয়র্কে লেখক সালমান রুশদির ওপর হামলা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ লেখক সালমান রুশদি ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) পশ্চিম নিউইয়র্কে চাতুকুয়া ইনস্টিটিউটে এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দিচ্ছেলেন তিনি। খবর দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, চৌতাকুয়া ইনস্টিটিউশনের মঞ্চে থাকা রুশদির দিকে এক ব্যক্তি দৌড়ে গিয়ে তাকে ঘুষি ও ছুরিকাঘাত করে। এসময় লেখক মেঝেতে পড়ে যান।

ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারীকে আটকে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে।

দ্য স্যাটানিক ভার্সেস বইটি লেখার পর থেকেই বুকার পুরস্কারজয়ী সালমান রুশদিকে অসংখ্যবার হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। বইটি ১৯৮৮ সালে ইরানে নিষিদ্ধ হয়। এর এক বছর পর ইরানের প্রয়াত নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনি রুশদিকে হত্যার ফতোয়া দেন। তার মাথার মূল্য ৩০ লাখ ডলার নির্ধারণ করে দেওয়া হয়।

‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’ বইটিকে বহু মুসলিম ধর্ম অবমাননাকারী বলে মনে করে থাকে।

;

তালেবানের ধর্মীয় নেতা রহিমুল্লাহ হাক্কানি নিহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে আত্মঘাতী হামলায় তালেবানের অন্যতম ধর্মীয় নেতা শেখ রহিমুল্লাহ হক্কানি নিহত হয়েছেন। তালেবান প্রশাসনের মুখপাত্র বিলাল কারিমি এ খবর নিশ্চিত করেছেন। খবর আল জাজিরার।

তালেবান প্রশাসনের মুখপাত্র বিলাল কারিমি বলেন, খুব দুঃখের সঙ্গে জানানো হচ্ছে যে সম্মানিত আলেম [শেখ রহিমুল্লাহ হাক্কানি] শত্রুদের কাপুরুষোচিত হামলায় শহীদ হয়েছেন। কাবুলের একটি প্রার্থনা অনুষ্ঠানে হামলার শিকার হন তিনি।

আইএসআইএল (আইএসআইএস) সশস্ত্র গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেছে।

চারটি তালেবান সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, হামলাকারী এমন একজন যিনি আগে তার পা হারিয়েছিলেন । একটি প্লাস্টিকের কৃত্রিম পায়ে বিস্ফোরক লুকিয়ে রেখেছিলেন।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক জ্যেষ্ঠ তালেবান কর্মকর্তা বলেন, এই ব্যক্তিটি কে ছিল তা জানার চেষ্টা করছি। কে তাকে শেখ রহিমুল্লাহ হাক্কানির ব্যক্তিগত অফিসে ঢোকার সুযোগ করে দিয়েছে তা বের করার চেষ্টা করছি। এটা আফগানিস্তানের ইসলামিক এমিরেটের জন্য বড় ক্ষতি।

তালেবানের শীর্ষ নেতা হাক্কানি ওপর আগেও প্রাণঘাতী হয়েছে। ২০২০ সালে পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় শহর পেশোয়ারে আইএস বোমা হামলা চালিয়েছিল হাক্কানিকে লক্ষ্য করে। ওই হামলায় সাতজন নিহত হলেও, প্রাণে বেঁচে যান হাক্কানি।

;

ক্রিমিয়ায় বিস্ফোরণে রুশ ৭ যুদ্ধবিমান ধ্বংস হয়েছে: স্যাটেলাইট চিত্র

  রুশ-ইউক্রেন সংঘাত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

অধিভুক্ত ক্রিমিয়ার একটি বিমান ঘাঁটিতে বিস্ফোরণে রাশিয়ার সাতটি যুদ্ধবিমান ধ্বংস হয়েছে। প্ল্যানেট ল্যাবসের নতুন স্যাটেলাইট ইমেজে উঠে এসেছে এমন তথ্য।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

ওই বিস্ফোরণের দায় প্রকাশ্যে স্বীকার করা থেকে বিরত থেকেছেন ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা। তবে বিস্ফোরণের কারণ নিয়ে রুশ বর্ণনাকে উপহাস করেছেন তারা। রাশিয়ার দাবি সাকি বিমান ঘাঁটির গোলাবারুদে আগুন ধরে বিস্ফোরণ ঘটে।

মঙ্গলবারের (০৯ আগস্ট) ওই বিস্ফোরণ ইউক্রেনীয় হামলায় ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে রাশিয়া হামলা হওয়ার কথা কিংবা বিমান ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কথা অস্বীকার করেছে।

বিস্ফোরণের কয়েক ঘণ্টা পর দেওয়া রাত্রীকালীন ভিডিও বার্তায় ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ফের ক্রিমিয়া উপকূল দখলে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। তিনি বলেন, ইউক্রেন এবং পুরো স্বাধীন ইউরোপের বিরুদ্ধে রাশিয়ার এই যুদ্ধ শুরু হয় ক্রিমিয়া দিয়ে এবং আর তা শেষ করতে হবে ক্রিমিয়া দিয়ে - এর স্বাধীনতার মধ্য দিয়ে।

৯ আগস্টের একটি স্যাটেলাইট ছবিতে দেখা যাচ্ছে, সাকি বিমান ঘাঁটিতে বেশ কয়েকটি ফাইটার জেট বসে আছে ৷ বিস্ফোরণের পর ১০ আগস্টের স্যাটেলাইট ছবিতে দেখা যায়, অন্তত সাতটি ফাইটার জেটের পুড়ে যাওয়ার চিত্র।

ক্রিমিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বিস্ফোরণে অন্তত একজন নিহত এবং অন্তত নয়জন আহত হয়েছেন।

২০১৪ সালে পুরো ক্রিমিয়া উপকূল ইউক্রেনের কাছ থেকে দখল করে নেয় রাশিয়া। তবে বেশির ভাগ দেশ এ দখলদারত্বকে স্বীকৃতি দেয়নি। ইউক্রেনের বিরুদ্ধে চলমান যুদ্ধে রাশিয়ার সেনাদের চলাচল ও রসদ সরবরাহে ক্রিমিয়াকে অন্যতম রুট ও কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। অনেক ইউক্রেনীয় মনে করেন, ক্রিমিয়ার ঘটনার মধ্য দিয়ে রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধ শুরু হয়েছে।

;