কোমল পানীয় হৃদরোগের ঝুঁকি ২০ শতাংশ বাড়িয়ে দিতে পারে: গবেষণা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

একটু ভারী খাবার খেলেই কোমল পানীয় পান করার অভ্যাস থাকে অনেকের। সম্প্রতি এক গবেষণা বলছে, যারা কোমল পানীয় পান করেননি তাদের তুলনায় সপ্তাহে দুই লিটার বা তার বেশি কোমল পানীয় পান করা মানুষের হৃদরোগের ঝুঁকি ২০ শতাংশ বাড়িয়ে দিতে পারে।

গবেষণায় বলা হয়, মানুষের শরীরে হার্ট বা হৃদ্‌যন্ত্র হল একটি ইলেকট্রো-মেকানিক্যাল পাম্প। এই অঙ্গের উপরের দু’টি চেম্বারকে বলে ‘অ্যাট্রিয়া’ এবং নিচের দু’টিকে ‘ভেনট্রিকল’। হার্টের উপরের ডান দিকের অ্যাট্রিয়ার সাইনোয়াট্রিয়াল নোড থেকে যে ইলেকট্রিক ডিসচার্জ হয়, তার ফলে যন্ত্রটির উপরের অ্যাট্রিয়াগুলি সংকুচিত হয় এবং রক্ত উপরের চেম্বার থেকে নিচের ভেনট্রিকল-এ পৌঁছায়। এই ইলেকট্রিক সিগন্যালই ভেনট্রিকলে সঞ্চারিত হলে ওই চেম্বারগুলিও সংকুচিত হয়। এই ক্রিয়ার ফলে রক্ত শরীরের বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে পড়ে। হার্টের সংকোচন-প্রসারণের সময় ও ছন্দ হার্টের ইলেকট্রিক্যাল সিস্টেম দ্বারা পরিচালিত হয়। সাধারণত মিনিটে ৬০ থেকে ১০০ বার এই ইলেকট্রিকাল ডিসচার্জ হয়ে থাকে। সাধারণত, হার্ট রেট বা হৃদ্‌স্পন্দন ৭২-এর আশপাশে থাকে। কিন্তু খেলাধুলা বা অন্যান্য কাজের সময়ে এটা বেড়ে যায়। হৃদ্‌স্পন্দনের এই সাধারণ ছন্দ যখন ব্যাহত হয়ে হার্টের উপরের চেম্বারগুলি (অ্যাট্রিয়া) এক সময় তীব্র এবং অসংলগ্ন গতিতে সংকুচিত হয় আর নিচের চেম্বারগুলি (ভেনট্রিকল) অন্য সময়ে সংকুচিত হয়, তখন এই পরিস্থিতিকে বলা হয় অ্যাট্রিয়াল ফিব্রিলেশন (এফিব)। বেশি চিনিযুক্ত পানীয় পান করলে এই অবস্থার ঝুঁকি ১০ শতাংশ বেড়ে যায়।

পেনসিলভানিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটির পুষ্টি বিজ্ঞানের প্রফেসর পেনি ক্রিস-ইথারটন বলেন, এটিই প্রথম গবেষণা- যা কম-ক্যালোরির মিষ্টিযুক্ত পানীয় এবং অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশনের ঝুঁকির মধ্যে একটি সম্পর্ক রয়েছে।

২০১৭ সালের একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে ইউরোপীয়দের এই অবস্থার উত্তরাধিকারসূত্রে প্রায় ২২ শতাংশ ঝুঁকি রয়েছে।

আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন নিউট্রিশন কমিটির সদস্য ক্রিস-ইথারটন বলেন, গবেষণার ফলাফল নিশ্চিত হতে আমাদের কোমল পানীয়র ওপর আরও গবেষণার প্রয়োজন।


অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন বিপজ্জনক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে

বর্তমানে অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্ট্রোকের প্রধান কারণ। এছাড়াও, ইউএস সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন জানায়, হৃদরোগের অন্যান্য অন্তর্নিহিত কারণগুলোর চেয়ে অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন বেশি গুরুতর।

ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিনের অধ্যাপক, সান ফ্রান্সিসকো স্কুল অফ মেডিসিন এবং ইউসিএসএফ স্বাস্থ্যের গবেষণার জন্য কার্ডিওলজির সহযোগী প্রধান ড. গ্রেগরি মার্কাস পূর্বের একটি সাক্ষাৎকারে সিএনএনকে বলেছিলেন, অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন রক্ত ​​​​জমাট বাঁধা, হার্ট ফেইলিওর হতে পারে এবং "হৃদরোগ, ডিমেনশিয়া, কিডনি রোগের ঝুঁকি বাড়াতে পারে। এই সমস্ত জিনিস সম্ভবত দীর্ঘমেয়াদী ঝুঁকি।

হার্ট রিদম সোসাইটি অনুসারে, বিশ্বব্যাপী প্রায় ৪০ মিলিয়ন মানুষ অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশনের সাথে বসবাস করছে। যার মধ্যে ৬ মিলিয়ন মানুষ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের।

অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশনে আক্রান্তদের অনেকেই বুকে ব্যথা, ধড়ফড়, শ্বাসকষ্ট এবং ক্লান্তিতে ভোগেন। কিন্তু অনেকের জন্য এটি লক্ষণহীন, একটি সম্ভাব্য নীরব ঘাতক। একবার এটি সনাক্ত করা গেলে জীবনযাত্রার পরিবর্তন, ওষুধ এবং প্রয়োজনে হৃৎপিণ্ডের স্বাভাবিক ছন্দকে ধীর বা পুনরুদ্ধার করার জন্য অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে চিকিত্সা করা যেতে পারে।

মার্কিন জনসংখ্যায় অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশনের হার বাড়ছে: সিডিসি অনুমান করছে ২০৩০ সালের মধ্যে প্রায় ১২ মিলিয়ন আমেরিকানদের অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন থাকবে।

মার্কাস বলেন, এ রোগে বয়স সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঝুঁকির কারণগুলোর মধ্যে একটি, তাই জনসংখ্যার বার্ধক্যের সাথে এটি আরও সাধারণ হয়ে উঠছে।

অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশনকে মহামারীটি উল্লেখ করে তিনি বলেন, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ, ধূমপান এবং অ্যালকোহল পানের মতো অন্যান্য কারণগুলোর সাথে স্থূলতাও এ রোগ বৃদ্ধির কারণ।

কিংস কলেজ লন্ডনের পুষ্টি ও ডায়েটিক্সের ইমেরিটাস প্রফেসর টম স্যান্ডার্স বলেন, আগের গবেষণায় দেখা গেছে উচ্চ কোমল পানীয় গ্রহণ অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন এর ঝুঁকির সাথে যুক্ত। তিনি নতুন গবেষণায় জড়িত ছিলেন না।

সম্ভাব্য 'অতিরিক্ত স্বাস্থ্য ঝুঁকি'

সার্কুলেশন: অ্যারিথমিয়া এবং ইলেক্ট্রোফিজিওলজি জার্নালে গত মঙ্গলবার প্রকাশিত এই গবেষণাটি ইউকে বায়োব্যাঙ্ক নামে একটি বৃহৎ, বায়োমেডিকাল ডাটাবেসে অংশগ্রহণকারী প্রায় ২ লাখ ২ হাজার মানুষের তথ্য বিশ্লেষণ করেছে। গড়ে ১০ বছর ধরে তাদের অনুসরণ করা হয়েছে। গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের বয়স ৩৭ থেকে ৭৩ বছর পর্যন্ত ছিলো। যাদের অর্ধেকেরও বেশি নারী।

গবেষণায় দেখা যায়, কৃত্রিমভাবে চিনি-মিষ্টিযুক্ত কোমল পানীয়ের পান করা কম বয়সী মহিলাদের ওজন বাড়া ও টাইপ ২ ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। বেশি চিনিযুক্ত কোমল পানীয় পান করা কম বয়সী পুরুষদের মধ্যে ওজন বৃদ্ধি এবং হৃদরোগের প্রবণতা বেশি ছিল।

বিবৃতি অনুসারে যারা চিনি-মিষ্টিযুক্ত পানীয় এবং বিশুদ্ধ জুস উভয়ই পান করেন তারা "যারা কৃত্রিমভাবে মিষ্টি করা পানীয় পান করেন তাদের তুলনায় মোট চিনির পরিমাণ বেশি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি ছিল"।

গবেষণার প্রধান লেখক চীনের সাংহাই নবম পিপলস হাসপাতাল এবং সাংহাই জিয়াও টং ইউনিভার্সিটি স্কুল অফ মেডিসিনের অধ্যাপক ড. নিংজিয়ান ওয়াং বলেন, একটি পানীয় আমাদের খাদ্যের জটিলতার কারণে আরেকটি পানীয়ের চেয়ে বেশি স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি করে এবং কারণ কিছু লোক একাধিক ধরনের পানীয় পান করতে পারে। এ জন্য আমাদের গবেষণার ফলাফলগুলো নিশ্চিতভাবে উপসংহারে পৌঁছাতে পারে না।

তিনি বলেন, তবে, এই ফলাফলগুলোর উপর ভিত্তি করে কৃত্রিমভাবে মিষ্টি এবং চিনি-মিষ্টিযুক্ত পানীয় কমাতে বা এড়াতে সুপারিশ করি।

তিনি আরও বলেন, এটি কখনই ভাববেন না যে কম চিনি এবং কম-ক্যালোরিযুক্ত কৃত্রিমভাবে মিষ্টিযুক্ত পানীয় পান করা স্বাস্থ্যকর, এটি সম্ভাব্য স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি করতে পারে।

   

সব হিন্দু শরণার্থী নাগরিকত্ব পাবে: নির্বাচনী প্রচারণায় অমিত শাহ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের প্রথম দফার ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এবার সবার নজরে দ্বিতীয় দফার ভোট। আর তাই মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) প্রচার প্রচারণার জন্য ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা অমিত শাহ এসেছিলেন পশ্চিম বঙ্গে।

এ সময় ভাষণে অমিত শাহ বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলাদেশ থেকে আসা শরণার্থীদের আশ্রয় দিতে চাইছেন না। হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দিতে চাইছেন না। আমি কথা দিচ্ছি সব হিন্দু শরণার্থী নাগরিকত্ব পাবে।

এ বিষয়ে তৃণমূল কংগ্রেস নেতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কড়া সমালোচনা করে তিনি বলেন, এবার আমরা এই বাংলা থেকে কাটমানির কালচার বন্ধ করে দুর্নীতিমুক্ত বাংলা গড়বো। সিএএ কার্যকর হবে। সিএএ ও এনআরসি বন্ধ করতে পারবে না মমতাদি।’

রাজ্যের মানুষ কেন কেন্দ্রীয় প্রকল্পের সুবিধা ভোগ করতে পারছে না, তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। বলেন, মোদিজি গরিব মানুষের জন্য কাজ করেছেন। ১২ কোটির বেশি শৌচালয় বানানো হয়েছে। ৪ কোটির বেশি মানুষ নিজের বাড়ি পেয়েছেন। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় প্রকল্প এখানে আসতে দেন না।

এছাড়াও তিনি আরও বলেন, তৃণমূলের এক মন্ত্রীর বাড়ি থেকে ৫১ কোটি টাকা পাওয়া গেছে। তৃণমূলের যে নেতারা দশ বছর আগে ঝুপড়ি থাকত, সাইকেলে ঘুরত, তাদের এখন চারতলা বাড়ি।

এ সময় ভোটের টার্গেটের কথাও শোনান তিনি। পশ্চিম বঙ্গে বিজেপির লক্ষ্যমাত্রা ৪২টি সিটের মধ্যে তিরিশটির বেশি আসন জয়। শেষে বাংলার মানুষের কাছে চান ভোটের প্রতিশ্রুতি।

 

;

চলমান যুদ্ধের মধ্যেই রাশিয়ার উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী আটক



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঘুষ নেয়ার অভিযোগে রাশিয়ার উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী তৈমুর ইভানভ কে আটক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশিত হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রাশিয়ার একজন উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে ঘুষ নেওয়ার সন্দেহে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির শীর্ষ তদন্তকারী সংস্থা। তদন্ত কমিটি মঙ্গলবার বলেছে, তৈমুর ইভানভকে আটক করা হচ্ছে এবং তার বিরুদ্ধে তদন্ত করা হচ্ছে।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ, রুশ সংবাদ সংস্থার বরাত দিয়ে বলেছেন, ইভানভকে আটকের বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের কাছে উপস্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া তাকে আটকের বিষয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রীকে আগেই জানানো হয়েছে।

দেশটির সংবাদ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অভিযোগ প্রমাণিত হলে ৪৮ বছর বয়সী ইভানভের ১৫ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে।

বিবিসি বলছে, ২০১৬ সালে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে নিযুক্ত হওয়া ৪৭ বছর বয়সী তৈমুর ইভানভ দেশটির সামরিক অবকাঠামো প্রকল্পের দায়িত্বে ছিলেন। মূলত অ্যাক্টিভিস্টরা দীর্ঘদিন ধরে রাশিয়ায় কথিত ব্যাপক মাত্রার দুর্নীতির সমালোচনা করে আসছেন।

তৈমুর ইভানভ পূর্বে মস্কো অঞ্চলের উপ-প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। আর এখানেই বর্তমান প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য গভর্নর হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি শোইগুর ঘনিষ্ঠ সহযোগী ছিলেন বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য, ইভানভের ওপর যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন তার বিরুদ্ধে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরাপের পাশাপাশি তার সম্পদও জব্দ করেছে।

;

জিবুতিতে নৌকাডুবি, ৩৫ অভিবাসীর মৃত্যু



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: বিবিসি

ছবি: বিবিসি

  • Font increase
  • Font Decrease

লোহিত সাগরের জিবুতি উপকূলে অভিবাসী বহনকারী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ৩৫ অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। মৃত এসব অভিবাসীর মধ্যে শিশুও রয়েছে।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশিত হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, উত্তর আফ্রিকার দেশ তিউনিশিয়ায় ১৯ অভিসানপ্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে জিবুতি উপকূলে একটি নৌকাডুবে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং নিখোঁজ রয়েছেন আরও ২৮ জন।

তিউনিসিয়ার কোস্টগার্ড জানিয়েছে, এরই মধ্যে ১৯ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তারা ইউরোপের দেশ ইতালি যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

উদ্ধারের পর জিবুতির উপকূলে গডোরিয়া শহরে নিয়ে আসা জীবিতদের চেহারায় বিপর্যয় এবং ভয় স্পষ্ট ছিল। পরে সেখানে চিকিৎসার জন্য তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে জাতিসংঘের অভিবাসন বিষয়ক সংস্থা আইওএম তাদের ইথিওপিয়ায় প্রত্যাবাসন করে।

জিবুতি কোস্টগার্ডের সিনিয়র কর্মকর্তা ইস ইইয়াহ বলেছেন, যারা ডুবে যাওয়া নৌকায় ছিলেন তারা ইয়েমেন ছেড়ে চলে যেতে চেয়েছিলেন। কারণ তাদের নিজের দেশের তুলনায় সেখানে জীবন আরও বেশি সংগ্রামের ছিল।

এ ঘটনায় জিবুতিতে নিযুক্ত ইথিওপিয়ার রাষ্ট্রদূত বারহানু সেগায়ে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্সে অভিবাসীদের মৃত্যুর জন্য শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘জিবুতি থেকে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে অবৈধপন্থায় ভ্রমণ অত্যন্ত বিপজ্জনক এবং এতে করে ক্রমাগত আমাদের নাগরিকরা তাদের জীবন হারাচ্ছেন।’

প্রসঙ্গত, যুদ্ধ, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও উন্নত জীবনের আশায় প্রতি বছর হাজার হাজার আফ্রিকান অভিবাসনপ্রাত্যাশী লোহিত সাগরের ওপারে সৌদি আরবে যাওয়ার চেষ্টা করেন। নৌকাডুবে মারা যান অনেকে।

;

ফের বৃষ্টির শঙ্কা দুবাইয়ে



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সংযুক্ত আরব আমিরাতের আমিরশাহির আবহাওয়া অফিস ‘দ্য ন্যাশনাল সেন্টার অব মেটেরিয়োলজি’ (এনসিএম) দুবাইয়ে ফের বৃষ্টির সতর্কবার্তা দিয়েছে।

তবে সংস্থাটি জানিয়েছে, ফের বৃষ্টি হলেও তা গত সপ্তাহের মতো ভয়াবহ অবস্থা হবে না। বুধবার (২৪ এপ্রিল) নাগাদ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। তবে তাপমাত্রা ৫-৭ ডিগ্রি কমতে পারে।

গত সপ্তাহে এক দিনে ৭৫ বছরের মধ্যে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে দেশটিতে। রেকর্ড গড়া বৃষ্টিতে চার দিন ধরে পানিতে ডুবে ছিল দুবাই বিমানবন্দর। আবু ধাবি, শারজার অবস্থাও শোচনীয় হয়েছিল।

এনসিএম-এর জলবায়ু বিশেষজ্ঞ আহমেদ হাবিব বলেন, ‘‘চিন্তার কিছু নেই। বর্তমান পরিস্থিতিতে আর যাই হোক, ভারী বৃষ্টি হবে না। গত সপ্তাহের সঙ্গে তুলনার প্রশ্নই নেই। মাঝারি বৃষ্টি হবে। মেঘ পশ্চিম উপকূল থেকে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে ঢুকছে।’’

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব প্রায় গোটা পৃথিবী জুড়েই স্পষ্ট। মরুভূমির দেশের বৃষ্টি হচ্ছে, মেরু অঞ্চলে হিমবাহ গলছে। সম্প্রতি ওমানে প্রবল ঝড় হয়। ২০ জনের মৃত্যু হয় সে দেশে। তার পরে সেই ঝড়-বৃষ্টি ধেয়ে যায় সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে।

;