যে আমলে আত্মা থাকবে সতেজ



মাহমুদ আহমদ
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

সুস্থ-সুন্দর ভাবে জীবন পরিচালনার জন্য সতেজ আত্মার খুব প্রয়োজন। দেহকে সজীব ও প্রাণবন্ত রাখার জন্য যেমন খাবারের প্রয়োজন, তেমনি আত্মাকে জীবিত ও সতেজ রাখার জন্যও খাবারের প্রয়োজন হয়। আত্মার এ সতেজতার খাবার বাহ্যিক নয় বরং তা আধ্যাত্মিক আর আত্মার সেই খাবার হলো- তার জিকির বা তাকে স্মরণ করা। অর্থাৎ আল্লাহর স্মরণেই হৃদয় জীবিত রাখা। আল্লাহতয়ালা ইরশাদ করেন-‘যারা ঈমান আনে এবং আল্লাহর স্মরণে যাদের চিত্ত প্রশান্ত হয়। জেনে রেখো, আল্লাহর স্মরণেই শুধু চিত্ত প্রশান্ত হয়।’ (সুরা আর-রাদ : আয়াত ২৮)

এ আয়াত থেকেই সুস্পষ্ট হয়ে যায় যে, আল্লাহর স্মরণের হৃদয় প্রশান্ত হয়, আত্মায় সতেজতা ফিরে আসে। তাই আমরা যদি আমাদের আত্মাকে সতেজ রাখতে চাই তবে সব সময় তাকে স্মরণ রাখতে হবে। কেননা আমরা তাকে স্মরণ করলে তিনিও আমাদের স্মরণ করবেন বলে কুরআনুল কারিমের একাধিক আয়াতে এভাবে ঘোষণা দিয়েছেন- ‘সুতরাং তোমরা আমাকে স্মরণ করো, আমিও তোমাদের স্মরণ করব আর তোমরা আমার প্রতি কৃতজ্ঞ হও এবং অকৃতজ্ঞ হয়ো না।’ (সুরা আল-বাকারা : আয়াত ১৫২)

আল্লাহতায়ালা বান্দাকে কীভাবে স্মরণ করেন, সে বিষয়টি সুস্পষ্ট করে দেয়া হয়েছে হাদিসে কুদসিতে। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন- ‘বান্দা আল্লাহকে যেভাবে স্মরণ করেন, আল্লাহও বান্দাকে সেভাবে স্মরণ করেন। আল্লাহতায়ালা বলেন-‘হে মানুষ! যদি তুমি আমাকে মনে মনে স্মরণ করো, তবে আমি তোমাকে মনে মনে স্মরণ করব আর যদি তুমি আমাকে কোনো বৈঠকে স্মরণ করো তবে আমি তাদের চেয়ে উত্তম বৈঠকে তোমার স্মরণ করব।’ (কানজুল উম্মাল)

হাদিসে আরও বর্ণিত আছে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি নীরবে বসে আল্লাহর জিকির করে আর তার চোখ থেকে অশ্রু প্রবাহিত হতে থাকে; আল্লাহ তাআলা তাকে তার রহমতের ছায়ায় আশ্রয় দান করবেন।’ (বুখারি ও মুসলিম)

তাই আসুন, আত্মার মরিচিকা দূর করার লক্ষ্যে বেশি বেশি আল্লাহকে স্মরণ করি। কেননা আল্লাহর স্মরণেই আত্মা সতেজ হয়। আল্লাহতায়ালা আমাদেরকে সর্বদা তার স্মরণে অতিবাহিত করার তৌফিক দিন, আমিন।

লেখক: ইসলামী গবেষক ও কলামিস্ট, ই-মেইল- [email protected]