নজিরবিহীন বিক্ষোভ পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভায়



লুৎফে আলি মহব্বত, কন্ট্রিবিউটিং করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ফিরে যাচ্ছেন রাজ্যপাল। সংগৃহীত

ফিরে যাচ্ছেন রাজ্যপাল। সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভায় নজিরবিহীন বিক্ষোভ করেছে বিরোধীরা। বিজেপি সদস্যদের প্রতিবাদের ফলে বাজেট অধিবেশনের শুরুতে ভাষণ শেষ না করেই বিধানসভা থেকে বেরিয়ে গেলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। সাক্ষী থাকলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর শাসক দল তৃণমূলের সদস্যরা।

শুক্রবার (২ জুলাই) রাজ্যপালের ভাষণ দিয়ে বিধানসভা বাজেট অভিবেশনে শুরু কথা ছিল। সেই মতো চলে আসেন রাজ্যপাল। কিন্তু নজিরবিহীন বিক্ষোভের মুখে পড়ে তিনি সেই ভাষণের পুরোটা পাঠ করতেই পারলেন না। ভাষণ শেষ না করেই ফিরে গেলেন তিনি।

এদিন, বিধানভায় এসেই আম্বদকরের মূর্তিতে মালা দেন রাজ্যপাল। তার পরেই তিনি চলে যান বিধানসভা কক্ষে।  আসন গ্রহণ করে উঠে দাঁড়িয়ে তাঁর ভাষণ পাঠ করতে যান। তখনই প্রবল হই হট্টগোল শুরু করেন বিজেপি বিধায়করা। তাঁদের দাবি, রাজ্যপালের ভাষণে যা রয়েছে তার সত্যি নয়। রাজ্যপাল তাঁর বক্তৃতা শুরু করলেও সবকিছু মিনিট চারেকের মধ্যে মিটে যায়।

বিরোধীদের প্রতিবাদের বিষয় ছিল, ভোট পরবর্তী হিংসা। তাদের দাবি, রাজ্য সরকারের তৈরি করে দেওয়া ভাষণে হিংসার কোনও বিষয় নেই।   রাজ্যের বহু মানুষের উপরে ভোটের পর হামলা হয়েছে তার ধারেকাছে যায়নি সরকার। তাই এই ভাষণের কোনও সারবত্তা নেই।

এদিকে, ভাষণ নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে রাজ্য সরকারে একটা সংঘাত ছিলই। ওই ভাষণের সবটুকু রাজ্যপাল পাঠ করবেন কিনা তা নিয়ে একটা আশঙ্কা ছিলই। তবে রাজ্য সরকার জানিয়ে দেয় মন্ত্রিসভা অনুমোদিত ভাষণই তাঁকে পাঠ করতে হবে। পাশাপাশি সরকারের একটা আশঙ্কা ছিল বিরোধীরা ওই ভাষণ নিয়ে আপত্তি তুলে হইহট্টগোল করতে পারে। সেইমতো সরকার পক্ষের বিধায়কদের সংযম দেখানোর কথাও বলা হয়। কিন্তু শেষপর্যন্ত বিরোধীদের বিক্ষোভে ভাষণ শেষই করতে পারলেন না ধনখড়।