নর্থ সাউথে করোনা মোকাবিলায় প্রযুক্তি ও ডিজিটাল বাংলাদেশ শীর্ষক কনফারেন্স অনুষ্ঠিত



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
নর্থ সাউথে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় প্রযুক্তি ও ডিজিটাল বাংলাদেশ শীর্ষক ভার্চুয়াল কনফারেন্স অনুষ্ঠিত

নর্থ সাউথে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় প্রযুক্তি ও ডিজিটাল বাংলাদেশ শীর্ষক ভার্চুয়াল কনফারেন্স অনুষ্ঠিত

  • Font increase
  • Font Decrease

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর ইনফ্রাস্ট্রাকচার রিসার্চ এন্ড সার্ভিসেস (সিআইএসআর) এবং ডিপার্টমেন্ট অব ইলেকট্রিকাল এন্ড কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এর যৌথ উদ্যোগে ‘কোভিড-১৯ মোকাবিলায় প্রযুক্তি ও ডিজিটাল বাংলাদেশ’ শীর্ষক ভার্চুয়াল কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কনফারেন্সের বিষয় ছিল করোনাকালে উন্নততর প্রযুক্তি যথা- তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার ও অনলাইন সেবা কার্যক্রম বৃদ্ধির মাধ্যমে অর্থনীতিকে সচল রাখার প্রচেষ্টা নিয়ে আলোচনা।

মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জুমে শুরু হওয়া এ কনফারেন্সের মিডিয়া পার্টনার ছিল প্রথম আলো। অনুষ্ঠানে আইটি/টেকনোলজি ম্যানেজমেন্টের বিশিষ্ট বিশেষজ্ঞরা বক্তব্য রাখেন।

উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান জনাব এম. এ. কাসেম।

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান এম. এ. কাসেম বলেন, একটির পর আর একটি সমস্যা আসবে আমাদের এ সকল সমস্যা সমাধান করে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। এসকল সমস্যা সমাধানে সকলকে সততার সাথে নিজ নিজ কর্তব্য পালনে এগিয়ে আসতে হবে। তাহলেই আমরা আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব। এসময় তিনি আরও বলেন, সামনে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব আসবে, আমাদের নিজেদের এই চতুর্থ শিল্প বিপ্লব এর সাথে তাল মিলাতে প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার শিখতে হবে। এসময় তিনি ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমাদের মনের জোর রাখতে হবে, মনোবল হারালে চলবে না, নিজেদের এবং নিজেদের পরিবারের যত্ন নিতে হবে এবং নিজের কাজ ভালোভাবে করতে হবে।

অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম বলেন, সারা পৃথিবীতে প্রায় ১.৫ বিলিয়ন ছাত্রছাত্রী করোনা পরিস্থিতির জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তাদের স্বাভাবিক জীবন ব্যাহত হয়েছে। বিশ্বজুড়ে সব বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করেছে। এসময় তিনি উল্লেখ করেন, বর্তমানে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি সফলতার সাথে প্রতি সপ্তাহে ৩০০০ এরও বেশি অনলাইন ক্লাস নিচ্ছে এবং এসব অনলাইন ক্লাসে উপস্থিতি ৯৩ শতাংশ এর মতো যা স্বাভাবিক সময়ের থেকেও বেশি। এসময় তিনি অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণ এবং প্রক্টরিং এর আধুনিক সফটওয়্যার চালু করার ঘোষণা দেন যা বর্তমান সংকট মোকাবিলায় বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

ভার্চুয়াল কনফারেন্সে বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইটি এক্সপার্ট এবং প্রথম আলো এর ইয়ুথ প্রোগ্রামের প্রধান মুনির হাসান, দি সিটি ব্যাংকের আইটি বিভাগের প্রধান মোহাম্মাদ আনিসুর রাহমান, এসবি ফাউন্ডেশন ও এসবি কে টেক ভেঞ্চুরেস এর প্রতিষ্ঠাতা এবং মাইক্রোসফট বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান, লাওস আর মিয়ানমারের প্রাক্তন ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির, চালডাল ডটকমের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা (সিওও) জিয়া আশরাফ এবং ইন্সপায়ারিং বাংলাদেশ লিমিটেড এর ফাউন্ডার ম্যানেজিং ডিরেক্টর ইমরান ফাহাদ।

অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ফিজিক্যাল সায়েন্স এর ডিন প্রফেসর ড. জাবেদ বারি, সেন্টার ফর ইনফ্রাস্ট্রাকচার রিসার্চ এন্ড সার্ভিসেস এর ডিরেক্টর অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম এবং ডিপার্টমেন্ট অব ইলেকট্রিকাল এন্ড কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এর চেয়ারম্যান ড. মহাম্মাদ রিজাউল বারি, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গবেষকবৃন্দ, গণমাধ্যমের প্রতিনিধিবৃন্দসহ আরও অনেকে।