চসিক নির্বাচন: সেবা দিয়ে যোগ্যতা প্রমাণ করতে চান আ.লীগ প্রার্থী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে বিপুল জনগোষ্টিকে নূন্যতম সেবা দিয়ে নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিতে চান আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরীর। তিনি বলেন, ‘অঙ্গীকারের কাচ্চি বিরিয়ানি নয়, মানুষকে সেবা দিতে পারাটাই আসল যোগ্যতা। সবার সহযোগিতা পেলে সেই যোগ্যতার পরীক্ষায় জিতব বলে আশা করছি।’

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) দুপুরে নগরের প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে দলটির ইশতেহার ঘোষণা কালে তিনি এসব কথা বলেন।

ইশতেহারে রেজাউল করিম নগর উন্নয়ন এবং পরিচালনায় ৩৭ দফা প্রতিশ্রুতি তুলে ধরেন। তার মধ্যে- জলাবদ্ধতা নিরসন, ১০০ দিনের অগ্রাধিকার কর্মসূচি, যানজট সমস্যা থেকে উত্তরণ, সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা, নালা-নর্দমা, খাল-নদী দখলদার উচ্ছেদ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, পর্যটন রাজধানী হিসেবে চট্টগ্রামকে গড়ে তোলা, হোল্ডিং ট্যাক্স এবং চলমান উন্নয়ন প্রকল্পে সমন্বয়কের ভূমিকা পালনের প্রতিশ্রুতি অন্যতম।

রেজাউল করিম বলেন, ‘যানজট নিরসনে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে বসে যত দ্রুত সম্ভব তা দূরীকরণে মনোযোগী হবো। সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ডিজিটাল ট্রাফিক সিস্টেম এবং নিরাপদ পথচারী পারাপারে আন্ডারপাস চালু করতে চাই। নালা–খাল–নদীর দখলদার উচ্ছেদে অভিযান চালানোর পাশাপাশি খাল–নদীর নাব্যতা ফেরাতে কাজ করবো।’

এ সময় তিনি নগরের বর্জ্য অপসারণে নজরদারি বাড়ানো, পলিথিন ও প্লাস্টিক বর্জ্যের ডাম্পিং ইয়ার্ড করে রিসাইক্লিং প্ল্যান্ট তৈরি করার আশ্বাস দেন। এছাড়া পর্যটনসুবিধা কাজে লাগিয়ে ও সৈকত পর্যটনের আধুনিক সুবিধা যোগ করে নগর উন্নয়নে বাড়তি আয়ের ওপর জোর দিতে চান তিনি।

তিনি বলেন, ‘এই শহরে এককভাবে অনেকে অনেক চিন্তা করেন। ব্যক্তি ও সমষ্টির চিন্তায় পার্থক্য আছে। শুধু স্মৃতিসৌধ নয়, এই নগরে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত অনেক কিছু আছে। লক্ষ্য নগরীর সব শ্রেণি–পেশার মানুষকে নিয়ে কীভাবে নান্দনিক আধুনিক শহর করা যায়। নতুন প্রজন্ম যেন জানতে পারে, চট্টগ্রামে ছয় দফা ঘোষণা হয়েছে।’

অতীতের সব ভুল ছুড়ে ফেলে চট্টগ্রামকে সর্বাধুনিক বাসযোগ্য বিশ্বমানের উন্নত ও নান্দনিক নগর হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী।

ইশতেহার ঘোষণার সময় উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য শিক্ষাবিদ অনুপম সেন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, উত্তর জেলা কমিটির সভাপতি এম এ সালাম, নগর কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন, দক্ষিণ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান প্রমুখ।