নাসিক নির্বাচন: নিরাপত্তায় ৫ হাজারের বেশি পুলিশ-বিজিবি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রাত পোহালেই নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচন। এ নির্বাচনকে ঘিরে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।ভোটকেন্দ্রে ও কেন্দ্রের বাইরে নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ৫ হাজারের বেশি সদস্য নিয়োজিত থাকবেন।

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, আমরা ১৯২টি ভোট কেন্দ্রকেই গুরুত্বসহকারে দেখছি। আমরা যেহেতু চারটি বাহিনী নিয়ে নিরাপত্তা বলয়ের সৃষ্টি করেছি। প্রত্যেক মানুষই নির্বিঘ্নে ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দিতে পারবে।

তিনি বলেন, পুলিশের প্রায় ৭৬টি টিম রয়েছে, র‌্যাবের ৬৫টি, ১৪ প্লাটুন বিজিবি কাজ করছে সবসময়। ম্যাজিস্ট্রেটরাও কাজ করছে। আগামীকাল আরও কিছু যুক্ত হবে। যাতে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নির্বাচন হয়। প্রতি কেন্দ্রে থাকবেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ২৬ সদস্য।

তিনি আরও বলেন, নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে চলবে এই নির্বাচন। প্রতিটি মহল্লায় নিরাপত্তার বলয়ে আনব। কোথাও যেন কোন সমস্যা না হয় সেদিকে সজাগ থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

নাসিক নির্বাচনে পুলিশের ২৭টি ইউনিট স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে থাকবে। এছাড়াও পুলিশের মোবাইল টিম থাকবে ৬৪টি, প্রতি টিমে সদস্য থাকবেন পাঁচজন। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) ১৪ প্লাটুন সদস্য থাকবে। আরও অতিরিক্ত ৬ প্লাটুনের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক চাহিদা পাঠিয়েছেন বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহফুজা আক্তার।

নির্বাচনের দিন বহিরাগত কাউকে সিটি করপোরেশন এলাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। ১৮ বছরের ওপরে যারা নারায়ণগঞ্জ থেকে বের হবেন- তাদেরকে জাতীয় পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে বলা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

ফরিদপুরে ভেজাল সার কারখানায় অভিযান-সিলগালা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ফরিদপুর
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ফরিদপুরের মধুখালীর বাগাটের বন্দর গ্রামের একটি বাড়ীতে নকল সার তৈরির কারখানার সন্ধান পাওয়া গেছে। ভেজাল ওই কারখানায় অভিযান চালিয়ে প্রায় ৪ লক্ষাধিক টাকার নকল সার ও সার তৈরির উপকরন ধ্বংস করেছে উপজেলা কৃষি সম্প্রসার অধিদপ্তর। এ সময় নকল সার তৈরির কাজে ব্যবহৃত একটি মিক্সিং মেশিন জব্দ করা হয়।

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) বিকালে উপজেলার বাগাট ইউনিয়নের সাহাপাড়া সংলগ্ন বন্দর গ্রামের সুমন সরদারের বাড়ীতে তৈরি ভেজাল কারখানায় অভিযান চালানো হয়। ওই বাড়িটি ভাড়া নিয়ে রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দী উপজেলার আনন্দ বাজার গ্রামের সৈয়দ আলী শেখের ছেলে মো. পারভেজ শেখ ভেজাল সার কারখানাটি গড়ে তােলেন।

এ বিষয়ে বাগাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মতিয়ার রহমান খান জানান, অভিযান পরিচালনার সময় আমি নিজে ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলাম। আমার ইউনিয়নে এই চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে এই অপকর্ম করে আসছিল জানা ছিল না। এই ভেজাল সার কৃষক ও কৃষি জমি ও ফসলের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ আলভীর রহমান জানান, সংবাদ পেয়ে ওই বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করি এবং ওই কারখানাটি সিলগালা করে দেই। এ বিষয়ে মধুখালী থানায় একটি সাধারন ডায়রি করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন এ সময় ওই কারখানাতে এর সাথে জড়িত কেউ উপস্থিত ছিলো না। জড়িতরা আগেই পালিয়ে যায়।

উল্লেখ্য, এ চক্রটি এসিআই সহ বিভিন্ন কােম্পানির প্যাকেট ব্যাবহার করে ভেজাল সার ও কীটনাশক তৈরি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল।

;

ফরিদপুরে স্বামী-স্ত্রীর বিষপান, ঢাকায় নেয়ার পথে স্বামীর মৃত্যু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ফরিদপুর
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় স্বামী-স্ত্রী একসাথে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টার করেছে বলে জানা গেছে। এতে স্ত্রী বেঁচে গেলেও স্বামী মারা গেছে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) বিকালে ফরিদপুর সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আসিকুজ্জামান এর সত্যতা নিশ্চিত করেন।

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেয়ার পথে স্বামী মারা যান। মারা যাওয়া ব্যক্তি উপজেলার যদুনন্দী ইউনিয়নের যগনাথদী গ্রামের আলীম সরদারের পুত্র শাহাদাত সরদার (২৮)।

সরেজমিনে গেলে এলাকাবাসী জানায়, মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি ) রাতে ওই যুবক ও তার স্ত্রী বিষ পান করে। পরিবারের লোকজন রাতেই দুইজনকেই পার্শ্ববর্তী মুকসুদপুর উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসায় স্ত্রী সুস্থ হলেও স্বামী শাহাদত সরদারের অবস্থা অবনতি হয়।

পরে বুধবার দিবাগত রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য চিকিৎসক তাকে ঢাকায় রেফার্ড করেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা নেয়ার পথে ওই যুবকের মৃত্যু হয়।

ফরিদপুরের সালথা থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আসিকুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ফরিদপুরের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

;

বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের অর্থের হিসাব নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের সর্বনাশ করতে বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের বিপুল অর্থ খরচ করার হিসাব নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, বাংলাদেশকে ধ্বংস এবং মিথ্যা অপবাদ আর অসত্য তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য তারা লবিস্ট নিয়োগ করেছে। বিদেশি ফার্মকে এই কোটি কোটি ডলার তারা পেমেন্ট করলো- এই অর্থ কিভাবে বিদেশে গেলো? এটা কোথা থেকে এলো তার জবাব তাদের দিতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) রাতে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনা এবং ১৬তম অধিবেশনের সমাপনী আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী সংসদে এসব কথা বলেন।

সরকার প্রধান বলেন, এদের (বিএনপি) দেশের জনগণের প্রতি কোনো দায়বদ্ধতা নেই। তাই দেশের অগ্রযাত্রাকে বন্ধ করতে, দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে নানা চক্রান্ত করছে। বিএনপি দেশকে ধ্বংস করা, লুটপাট করা, জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাস সৃষ্টি করা ছাড়া কিছুই দিতে পারেনি। কিন্তু দেশের জনগণের প্রতি আমার আস্থা ও বিশ্বাস আছে যে, কোনো অসত্য অপ্রপ্রচার ও মিথ্যাচারে দেশের জনগণ বিভ্রান্ত হবে না। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবেই।

শেখ হাসিনা বলেন, দেশ সব দিক দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে, এটি যাদের পছন্দ নয় তারাই শত শত কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা খরচ করে লবিস্ট নিয়োগ করে দেশের সর্বনাশ করছে। এত বিপুল অর্থ কোথায় থেকে আসল, বিদেশে খরচ হলো- এর জবাব ও ব্যাখ্যা বিএনপিকে দিতে হবে। আর দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করতে লবিস্ট নিয়োগের খরচের পাই পাই হিসাব নেওয়া হবে।

নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগের রাজনীতি হচ্ছে দেশের জনগণের ভোটের অধিকার রক্ষা করা, কেড়ে নেওয়া নয়। আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে যে দেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন তার বড় প্রমাণ। বিএনপি এই নির্বাচনেও নানা খেলার চেষ্টা করেছে, কিন্তু পারেনি। বাংলাদেশে সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি, ছবিযুক্ত ভোটার তালিকা প্রণয়ন, স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স, জনগণের ভোটের অধিকার রক্ষাসহ সব কিছু আওয়ামী লীগের আন্দোলনের ফসল। আওয়ামী লীগের আমলেই দেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত থাকে।

র‌্যাব কর্মকর্তাদের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে দেশ থেকে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ, উগ্রবাদ দমনে করেছে- তারা এত খারাপ হয়ে গেল কেন? আমরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে দোষ দেই না। দেশের ভাবমূর্তি ধ্বংস করতে তারা শত শত কোটি টাকা খরচ করে লবিস্ট নিয়োগ করেছে বিএনপি। তারা যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা, বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বাঁচানো, নির্বাচনকে বানচাল ও প্রশ্নবিদ্ধ করা, দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য বিএনপি শত শত কোটি টাকা খরচ করে লবিস্ট নিয়োগ করে, কোনো ভালো কাজের জন্য নয়। এতো অর্থ বিএনপি কোথায় থেকে পেল, কীভাবে সেখানে গেল- এর জবাব একদিন বিএনপিকে দিতেই হবে।

;

‘প্রধানমন্ত্রীর পদক্ষেপের ফলে দেশে আজ ব্যাপক উন্নতি হচ্ছে’



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ

পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্রনায়কোচিত পদক্ষেপের ফলে আজ বাংলাদেশের ব্যাপক উন্নতি হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) রাজারবাগ পুলিশ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত পুলিশ সপ্তাহ-২০২২ এর ৫ম ও শেষ দিনের প্রথম অধিবেশনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

পুলিশের মহাপরিদর্শক বলেন, এই উন্নয়নের মূলে রয়েছে পুলিশ। কারণ পুলিশ সামাজিক শৃঙ্খলা, সামাজিক স্থিতিশীলতা, সামাজিক নিরাপত্তা বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে। ফলে দেশের অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগ বাড়ছে, পাশাপাশি বিদেশিরাও আমাদের দেশে বিনিয়োগ করছে। ফলে দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি সাধিত হচ্ছে।

নিরাপত্তাকে উন্নয়নের অক্সিজেন হিসেবে আখ্যায়িত করে আইজিপি বলেন, দেশ যে গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে সে একই গতিতে পুলিশের অগ্রগতিও প্রয়োজন। সে লক্ষ্যে পুলিশের ন্যায্য বিষয়গুলো বিবেচনার অনুরোধ জানান তিনি।

সভায় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লাহ খন্দকার, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা (ওঅ্যান্ডএম) অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব খোরশেদা ইয়াসমীন, বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত আইজিগণ, সকল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি ও জেলার পুলিশ সুপারগণ উপস্থিত ছিলেন।

;