নওগাঁয় অসুস্থ গরু জবাই, কসাইকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নওগাঁ
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নওগাঁর বদলগাছীতে অসুস্থ গরু জবাই করার অভিযোগে নজরুল ইসলাম (৫৫) নামে এক মাংস ব‍্যবসায়ীর ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়েছে। দন্ডপ্রাপ্ত মাংস ব‍্যবসায়ী নজরুল ইসলাম কোলা গ্রামের মৃত আফাজ উদ্দিনের ছেলে এবং সাবেক ইউপি সদস‍্য।

উপজেলার ভান্ডারপুর হাটে মাংস বিক্রির উদ্দেশ্য অসুস্থ ওই গরুটি জবাই করে ব্যবসায়ী। অনাদায়ে ১৫ দিন কারাদন্ডের আদেশ প্রদান করেছেন ভ্রাম‍্যমান আদালতের বিচারক।

রবিবার (১৯ মে) দুপুরে ভ্রাম‍্যমান আদালতে জরিমানা আরোপ ও আদায় করেন বদলগাছী উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আতিয়া খাতুন।

এদিকে এতো অল্প টাকা জরিমানা করায় ক্ষুব্ধ ও অসন্তোষ হয়েছে স্থানীয় লোকজন। তাদের অভিযোগ এখানকার কসাইয়েরা বারবার অসুস্থ গরু জবাই করে মাংস বিক্রি করে। উপস্থিত করোনা কর্মকার বলেন, অল্প জরিমানা করলে এদের হবেনা। বেশি জরিমানা করতে হবে। অথবা জেল দিতে হবে। নয়তো এরা বারবারই এমন কাজ করবে।

স্থানীয় ও প্রত‍্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার সকাল সাড়ে ৭টায় কসাইয়েরা অসুস্থ গরুটিকে জবাই করে। এই সময় বাজারে আসা লোকজন গরুটিকে জবাই করতে দেখে নিষেধ করলেও শোনে না। অসুস্থ গরু জবাই হলে সাথে সাথে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। উপজেলা ভেটেরিনারি সার্জন নাজমুল হাসান এবং থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। আর প্রশাসন এসে নাম মাত্র জরিমানা করে।

স্থানীয় বাসিন্দা খালিদ বলেন, কোলা গ্রামের রিপন গরুটি কোলাহাট থেকে কিনে। এরপর ইসমাইল পুর গ্রামের লবা, বিতু, কালাম এবং সাবেক মেম্বার নজরুল কসাই ভাগাভাগি করে গরুটিকে এনে জবাই করে। এর আগেও এরা অসুস্থ গরু জবাই করার কারণে জরিমানা গুনতে হয়েছে।

স্থানীয় বাজার বণিক সমিতির সভাপতি সাগর বলেন, এই হাটে প্রায় অসুস্থ গরু এনে জবাই করে এবং অসুস্থ গরুর মাংস বিক্রি করে কসাইরা। এর আগেও ভ্রাম‍্যমান আদালত বসিয়ে জরিমানা করা হয়েছে। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি। কসাইরা প্রাণীসম্পদ ও ভেটেরিনারি হাসপাতাল কর্তৃক পশু জবাইয়ের কোনো ছাড়পত্র ছাড়াই গরু জবাই করে থাকে।

এ ব‍্যপারে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আতিয়া খাতুন বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে নজরুল নামে এক কসাইকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অনাদায়ে কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে এবং তাদের নিষেধ করেছি। পরবর্তীতে এমন কাজ পুনরায় হলে আরও কঠোর ব‍্যবস্থা নেওয়া হবে।

   

মেধাবী মেয়ে শিক্ষার্থীরা ক্যাডেট কলেজে পড়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
মেধাবী মেয়ে শিক্ষার্থীরা ক্যাডেট কলেজে পড়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত

মেধাবী মেয়ে শিক্ষার্থীরা ক্যাডেট কলেজে পড়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের মোট জনসংখ্যার ছেলে ও মেয়ের অনুপাত প্রায় সমান হলেও ক্যাডেট কলেজে মেয়েদের পড়ার সুযোগ কম। সেই সাথে আসন স্বল্পতার জন্য অনেক মেধাবী মেয়েরা ক্যাডেট কলেজে পড়ার সুযোগ হতে বঞ্চিত হচ্ছে বলে সংসদে জানিয়েছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী আনিসুল হক।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে সংসদ সদস্য আব্দুল কাদের আজাদের লিখিত প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন। অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

সংসদে আনিসুল হক জানান, ক্যাডেট কলেজসমূহ বিশেষায়িত আবাসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যাহার সূচনা হয়েছিল ১৯৫৮ সালে। বাংলাদেশে বর্তমানে ১২টি ক্যাডেট কলেজের মধ্যে নয়টি ছেলেদের এবং তিনটি মেয়েদের ক্যাডেট কলেজ রয়েছে। দেশের মোট জনসংখ্যার ছেলে ও মেয়ের অনুপাত প্রায় সমান হলেও ক্যাডেট কলেজে মেয়েদের পড়ার সুযোগ কম। প্রতি বছর সপ্তম শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষায় তুলনামূলক অধিক ভাল ফলাফল অর্জন করা স্বত্ত্বেও শুধুমাত্র আসন স্বল্পতার জন্য অনেক মেধাবী মেয়েরা ক্যাডেট কলেজে পড়ার সুযোগ হতে বঞ্চিত হচ্ছে।

তিনি বলেন, বিদ্যমান গার্লস ক্যাডেট কলেজসমূহের ভৌগলিক অবস্থান অনুযায়ী দেশের দক্ষিণ অঞ্চলে কোন গার্লস ক্যাডেট কলেজ নাই। নবম জাতীয় সংসদে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ২০১১ সালের ৪ জুলাই অনুষ্ঠিত ১৭তম বৈঠকে হাওর অঞ্চলে একটিসহ দেশের পুরাতন ২০টি জেলার যে সকল জেলায় কোন প্রকার ক্যাডেট কলেজ নাই, সেই সকল জেলায় একটি করে ক্যাডেট কলেজ স্থাপনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছিল। উক্ত ২০টি জেলার মধ্যে ফরিদপুর জেলায় একটি গার্লস ক্যাডেট কলেজ স্থাপনের প্রস্তাবনা উত্থাপিত হয়েছিল। পরবর্তীতে আর্থিক সংশ্লেষের কারণে তা স্থাপন করা সম্ভব হয়নি।

সরকারি নীতিগত অনুমোদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে যথাযথ পদ্ধতি অনুসরণ করে ফরিদপুর জেলায় একটি গার্লস ক্যাডেট কলেজ নির্মাণ করা যেতে পারে বলে জানান আনিসুল হক।

;

আশুগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ীর ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মাদক কেনাবেচা নিয়ে মাদক ব্যবসায়ী মো. রুবেলের ছুরির আঘাতে হৃদয় খান (২৬) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) সকালে আশুগঞ্জ উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামের রানী পুকুরের পাড়ে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় ঘাতক রুবেলকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত হৃদয় খান যাত্রাপুর গ্রামের ইমানদির বাড়ির জসীম খানের ছেলে। ঘাতক রুবেল এই গ্রামের রানী পুকুর পাড়ের মৃত আব্দুর রহিমের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সকালে মাদক নেয়ার জন্য রুবেলের বাড়িতে যায় হৃদয়। সেখানে মাদকের টাকা দেয়া নেয়া নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে একপর্যায়ে রুবেল হৃদয়কে ছুরিকাঘাত করে। এসময় হৃদয় চিৎকার করে মাটিতে লুটিয়ে পরে। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত হৃদয়কে উদ্ধার করে প্রথমে আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় প্রেরণ করেন। ঢাকা নেওয়ার পথে গুরুতর আহত হৃদয়ের মৃত্যু হয়।

এব্যাপারে নিহতের পিতা মো. জসিম উদ্দিন বলেন, সকালে আমার ছেলে হৃদয়কে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় রুবেল। কিছুক্ষণ পরে আমার মেয়ের জামাইয়ের ফোনে জানতে পারি আমার ছেলে রক্তাক্ত অবস্থায় উপজেলা হাসপাতালে। পরে ঢাকা নিয়ে পথে হৃদয় মারা যায়।

তিনি বলেন, আমার ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে। খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তিনি।

এদিকে ঘাতক রুবেলের মা লালু বেগম জানান, বাড়ির উঠানেই হৃদয়ের সঙ্গে রুবেলের হাতাহাতির এক পর্যায়ে রুবেল হৃদয়কে ছুরিকাঘাত করে। আমার এই ছেলে মাদকাসক্ত, তার অত্যাচারে আমার পরিবারটি ধ্বংস হয়ে গেছে। এ ব্যাপারে বার বার পুলিশকে বলেও এর কোনো প্রতিকার পায়নি। তার জন্য আমার স্বামী স্ট্রোক করে মারা গেছেন। আমি নিজে স্ট্রোক করে চিকিৎসাধীন আছি। সে যেন জেল থেকে বেরিয়ে আসতে না পারে। নিজের ছেলের কঠিন শাস্তি দাবি করেন মা লালু বেগম।

আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহামোহাম্মদ নাহিদ আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সকালে মাদক কেনাবেচা নিয়ে রুবেল ও হৃদয়ের কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ী রুবেল তার কাছে থাকা ছুরি দিয়ে হৃদয়কে একাধিক আঘাত করে। এসময় হৃদয় লুটিয়ে পড়লে রুবেল পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঘাতক রুবেলকে আটক করা হয়েছে। এই ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাদের কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ পেলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

;

ময়মনসিংহে ১৫০ বস্তা ভারতীয় চিনিসহ গ্রেফতার ১



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে মিনিট্রাক বোঝাই ১৫০ বস্তা ভারতীয় চিনিসহ মিঠুনূর রহমান পাপ্পু (২৮) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) দুপুরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ইনচার্জ (ওসি) মো.ফারুক হোসেন স্বক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

গ্রেফতারকৃত মিঠুনূর রহমান পাপ্পু নেত্রকোণা জেলার মদন থানার কাপাসাটিয়া এলাকার মিজানুর রহমানের ছেলে।

এর আগে গতকাল ১২ জুন ঈশ্বরগঞ্জ থানার আঠারোবাড়ী বাজার থেকে ভারতীয় চিনি বোঝাই মিনিট্রাকটি জব্দ করে ও মিঠুনূর রহমান পাপ্পুকে গ্রেফতার করা হয়।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ইনচার্জ (ওসি) মো.ফারুক হোসেন বলেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আঠারোবাড়ী বাজার থেকে চোরাচালানের মাধ্যমে অবৈধভাবে নিয়ে আসা ১৫০ বস্তা ভারতীয় চিনি বোঝাই একটি মিনিট্রাক জব্দ করা হয়। এ সময় চালক মিঠুনূর রহমান পাপ্পুকে আটক করা হয়।

ডিবির ইনচার্জ (ওসি) মো.ফারুক হোসেন আরও বলেন, এ ঘটনা ঈশ্বরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করে আসামিকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।ভারতীয় চিনি অবৈধভাবে নিয়ে আসার সাথে জড়িত অন্যান্য পলাতক আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

;

অবশেষে রাজধানীতে স্বস্তির বৃষ্টি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বেশ কয়েকদিন ধরেই রাজধানী ঢাকাতে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এতে জনজীবনে নেমে এসেছিল অস্বস্তি। সেই অস্বস্তির মধ্যেই রাজধানীতে শুরু হয়েছে বৃষ্টি। এতে রাজধানীতে নেমে এসেছে স্বস্তির ছোঁয়া।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকেল ৪টা ৩০ মিনিটের কিছু পরেই শুরু হয় বৃষ্টি।

মিরপুর, মোহাম্মদপুর, কারওয়ান বাজার, কমলাপুর, উত্তরা, আগারগাঁও, গুলশান, বনানী, নিকেতন, নাখালপাড়াসহ আরও বেশ কিছু এলাকায় বৃষ্টির খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, আজ দেশের ৮টি বিভাগের রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়, ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রাজশাহী, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দু’-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

সেই সাথে রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে।

তাপপ্রবাহ নিয়ে বলা হয়েছে, দেশের উত্তরাঞ্চলে দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র তা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

সিনপটিক অবস্থায়, মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

;