নিম্ন আয়ের মানুষকে ‘ঘরে-ফেরা’ কর্মসূচির আওতায় সহায়তা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাসের কারণে যারা কাজ হারিয়েছেন। আমরা তাদের পাশে দাড়াব বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে অনেক মানুষ কাজ হারিয়েছেন। আমাদের তাঁদের পাশে দাঁড়াতে হবে। নিম্নআয়ের ব্যক্তিদের ‘ঘরে-ফেরা’ কর্মসূচির আওতায় নিজ নিজ গ্রামে সহায়তা প্রদান করা হবে। গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জন্য বিনামূল্যে ঘর, ৬ মাসের খাদ্য এবং নগদ অর্থ প্রদান করা হবে।   জেলা প্রশাসনকে এ ব্যাপারে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (২৫ মার্চ) সন্ধ্যায় স্বাধীনতা দিবস ও করোনার সংক্রমণ রোধে জনসাধারণের করনীয় সম্পর্কে জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, ভাষাণচরে ১ লাখ মানুষের থাকার ও কর্মসংস্থান উপযোগী আবাসন ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছে। সেখানে কেউ যেতে চাইলে সরকার ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। বিনামূল্যে ভিজিডি, ভিজিএফ এবং ১০ টাকা কেজি দরে চাল সরবরাহ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। একইভাবে বিনামুল্যে ওষুধ ও চিকিৎসা সেবা ও দেওয়া হচ্ছে।

করোনা রফতানিতে আঘাত করতে পারে জানিয়ে আমাদের শিল্প উৎপাদন এবং রপ্তানি বাণিজ্যে আঘাত আসতে পারে। এই আঘাত মোকাবিলায় আমরা কিছু আপৎকালীন ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

রপ্তানিমুখী শিল্প প্রতিষ্ঠানের জন্য আমি ৫ হাজার কোটি টাকার একটি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করছি। এ তহবিলের অর্থ দ্বারা কেবল শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা যাবে।

এছাড়া, বাংলাদেশ ব্যাংক ইতোমধ্যে ব্যবসায়-বান্ধব বেশকিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক আগামী জুন মাস পর্যন্ত কোন গ্রাহককে ঋণ খেলাপি না করার ঘোষণা দিয়েছে।

আরও পুড়ন: সমগ্র বিশ্ব এক অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে চলছে: প্রধানমন্ত্রী

করোনা যুদ্ধে দেশবাসীর দায়িত্ব ঘরে থাকা: প্রধানমন্ত্রী

বাঙালি বীরের জাতি, যুদ্ধে জিতবেই: প্রধানমন্ত্রী

আতঙ্কিত হবেন না, সতর্ক হোন: প্রধানমন্ত্রী

যে যেখানে আছেন, সেখানেই অবস্থান করুন: প্রধানমন্ত্রী

‘সরকারের দায়িত্ব ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করা’

ক্ষুধামুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার দ্বারপ্রান্তে আমরা

জনসমাগম না করার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর

জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী