ময়মনসিংহে এক হাজার পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী দিল যুবলীগ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
ময়মনসিংহে এক হাজার পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী দিল যুবলীগ

ময়মনসিংহে এক হাজার পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী দিল যুবলীগ

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সারা দেশের মত ময়মনসিংহেও চলছে অঘোষিত লকডাউন। সরকারি নির্দেশনা মেনে নিজ ঘরে অবস্থান করছে মানুষ। পাশাপাশি বন্ধ রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও যানবাহন চলাচল। এতে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন দিনমজুর, শ্রমিক, রিকশাচালকসহ দুস্থ ও অসহায় পরিবারের সদস্যরা। এর ফলে খাদ্য সংকটও দেখা দিয়েছে তাদের। এ অবস্থায় তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগ।

সোমবার (৩০ মার্চ) দুপুরে নগরের ৩০টি স্থানে বাড়ি বাড়ি গিয়ে কর্মহীন এক হাজার অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী তুলে দিয়েছেন মহানগর যুবলীগের আহবায়ক মোহাম্মদ শাহীনূর রহমান। এসময় তাদের মাঝে মসিকের সচেতনতামূলক লিফলেট, সাবান, মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজারও দেওয়া হয়।

শাহীনূর রহমান বলেন, ‘করোনাভাইরাস সংক্রামণ রোধে সরকারি নির্দেশনা মেনে নিজ ঘরে অবস্থান করছেন দুস্থ ও অসহায় মানুষ। হঠাৎ কর্মহীন হয়ে তারা কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন। এ সময়টাতে তাদের কষ্ট কিছুটা লাঘব করতে সাধ্যমত এসব অসহায় মানুষগুলোর পাশে থাকার চেষ্টা করছি। আমরা মসিক মেয়র ইকরামুল হক টিটুর সহযোগিতায় প্রতিটি পরিবারকে তিন দিনের খাদ্যসামগ্রী চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ ও তেল ঘরে ঘরে গিয়ে পৌঁছে দিয়েছে। পাশাপাশি তাদের সচেতনও করা হয়েছে।’

‘অনলাইনে গবাদিপশু ক্রয়ে যাতে কেউ প্রতারিত না হয়’



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, অনলাইনে গবাদিপশু ক্রয়ের ক্ষেত্রে যাতে কেউ প্রতারণার শিকার না হয় সেটি লক্ষ্য রাখতে হবে। ডিজিটাল হাটের সাথে সম্পৃক্ত এটুআই, একশপ, ই-ক্যাবসহ অন্যান্য ফোরাম সম্মিলিতভাবে সেটি নিশ্চিত করতে হবে। যাতে মানুষের আস্থা বাড়ে। যদি কেউ প্রতারিত হয়, তারা আগামী বছর এ প্রক্রিয়ার সাথে সংযুক্ত হতে আগ্রহী থাকবে না।

রবিবার (৩ জুলাই) কোরবানির পশু বিক্রির অনলাইন প্ল্যাটফর্ম 'ডিজিটাল হাট ২০২২' (digitalhatt.gov.bd) এর অনলাইন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে রাজধানীর বেইলি রোডের সরকারি বাসভবন থেকে সংযুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের এটুআই ও একশপ এবং ই-ক্যাব যৌথভাবে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, ঈদ-উল-আজহায় জরিপ অনুযায়ী ৯৭ লক্ষ ৭৫ হাজার কোরবানির পশুর চাহিদা রয়েছে। এ চাহিদা মেটানোর জন্য ১ কোটি ২১ লক্ষ ২৪ হাজার ৩৮৯ টি গবাদিপশু প্রস্তুত রাখা হয়েছে, যাতে কোনভাবে পশুর সংকট না হয়। একসময় ভারত-মিয়ানমার থেকে পশু না এলে কোরবানির পশু নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকতে হতো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যে এগিয়ে চলেছে তার অন্যতম অধ্যায় প্রাণিসম্পদ বিভাগের বৈপ্লবিক পরিবর্তন। এখন চাহিদার চেয়ে উদ্বৃত্ত পশু বাংলাদেশে উৎপাদন হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, কোরবানির পশু ব্যবস্থাপনা নিয়ে একসময় নানা বিড়ম্বনা ও বিভিন্ন রকম প্রতিকূল অবস্থা ছিল। সেটা তথ্যপ্রযুক্তি আধুনিকায়নের মাধ্যমে অনেক সহজ করে দিয়েছে। অনলাইনে পশু ক্রয়ের পর যদি কারো মনোপুত না হয়, সেক্ষেত্রেও তার প্রতিকারের ব্যবস্থা রয়েছে। আর্থিক লেনদেনের জন্য স্মার্ট কার্ডসহ অন্যান্য অ্যাপসের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহণের সুযোগ রাখা হয়েছে। এটি বিশ্বের বুকে বাংলাদেশের সমৃদ্ধ ডিজিটাল দেশে রূপান্তর হওয়ার দৃশ্যমান অবস্থা তুলে ধরেছে।

শ ম রেজাউল করিম আরও যোগ করেন, গতবছর অনলাইনে ৩ লাখ ৭৫ হাজার গবাদিপশু বিক্রয় হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি কারণে অনেকেই কোরবানির জন্য আগ্রহী হয়নি। এ বছর আশা করা হচ্ছে আরো বেশি গবাদিপশু বিক্রয় হবে।

মন্ত্রী বলেন, অনলাইনে ক্রয়কৃত গবাদিপশু পছন্দ না হলে ফেরত প্রদানের ব্যবস্থা অব্যাহত থাকবে যাতে এটা সবার কল্যাণে কাজে লাগে এবং কেউ যেন কোনভাবে প্রতারণার শিকার না হয়। অনলাইন প্লাটফর্মে এবছর ভার্চুয়াল ক্যালকুলেটর নতুন সংযোজন করা হয়েছে। এটি ক্রেতা-বিক্রেতা সবাইকে অনাহুত সমস্যা থেকে মুক্ত করবে এবং তাদের দুশ্চিন্তা দূর করবে।

তিনি আরও যোগ করেন, অনলাইনে আপলোডকৃত গবাদিপশুর মালিকানা, ঠিকানা, মালিকের মোবাইল নম্বর, পশুর বয়স, ওজন এবং ছবি সম্বলিত তথ্য প্রদান নিশ্চিত করা জরুরি। আপলোডের ক্ষেত্রে গবাদিপশুর স্বাস্থ্য সনদ নিতে হবে। এক্ষেত্রে আমাদের ভেটারিনারী সার্জনরা সেবা প্রদান করবে। তাতে রোগাক্রান্ত ও কোরবানির অনুপযুক্ত পশু নির্ণয় করা যাবে। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর খামারিদের অনলাইন প্ল্যাটফর্মের সাথে সংযুক্ত করতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান করবে। এক্ষেত্রে ডেইরি ফার্মারস অ্যাসোসিয়েশন ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

প্রধান অতিথি আরও জানান, অনলাইনে পশু ক্রয়-বিক্রয়ের ক্ষেত্রে হাসিল আদায় করা যাবে না। এ ক্ষেত্রকে ইজারা বহির্ভূত রাখা হবে এবং এ সংক্রান্ত হয়রানি রাতে কেউ না হয় সেটা নিশ্চিত করতে হবে। এমনকি বাজারের বাইরে বাড়িতে বা রাস্তায় কেউ পশু বিক্রি করলে কোনভাবেই তাদের কাছ থেকে হাসিল বা চাঁদা আদায় করা যাবে না। কোরবানির পশু পরিবহনকারী যানবাহন সড়কে, সেতুতে এবং ফেরিতে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। অনলাইনে ক্রয়কৃত পশু আনা-নেয়ার ক্ষেত্রে কেউ সমস্যার মুখোমুখি হলে তা সমাধানে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ কাজ করবে। ক্রেতা-বিক্রেতা কেউ যেন সমস্যার মুখোমুখি না হয় সেটা আমাদের লক্ষ্য।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য প্রদান করেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. হাফিজুর রহমান ও এ এইচ এম শফিকুজ্জামান, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্মসচিব ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ মাহে আলম, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল টেকনোলজি-২ প্রকল্পের পরিচালক আ ন ম গোলাম মহিউদ্দিন, ইউএনডিপি'র জাতীয় প্রকল্প ব্যাবস্থাপক কাজল চ্যাটার্জী, ই-ক্যাবের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল ওয়াহেদ তমাল প্রমুখ। ই-ক্যাবের সভাপতি শমী কায়সার অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন। ডিজিটাল হাট প্লাটফর্ম নিয়ে উপস্থাপন করেন এটুআই এর হেড অব ই-কমার্স রেজওয়ানুল হক জেমি।

;

শিশু অপরাধী বৃদ্ধিতে বয়স কমানোর সুপারিশ



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

শিশুর সংজ্ঞায় বয়স ১৮ বছর থেকে কমানোর সুপারিশ করেছে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

রোববার (৩ জুলাই) সচিবালয়ে কমিটির বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, আমরা এ বিষয়ে আইনমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি। এ নিয়ে পরবর্তী সময়ে আরও আলোচনা করা হবে।

সাম্প্রতিক সময়ে কিশোর অপরাধ বাড়ছে। আন্তর্জাতিক সংজ্ঞা অনুযায়ী ১৮ বছর পর্যন্ত শিশু। এর ফলে অনেক ক্ষেত্রে অপরাধ করলেও ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না। এ কারণেই শিশুর বয়স কমানোর সুপারিশ করা হয়েছে।

;

রাজশাহীতে ট্রেনের টিকিটের জন্য দীর্ঘ অপেক্ষা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজশাহী
রাজশাহীতে ট্রেনের টিকিটের জন্য দীর্ঘ অপেক্ষা

রাজশাহীতে ট্রেনের টিকিটের জন্য দীর্ঘ অপেক্ষা

  • Font increase
  • Font Decrease

এবার ঈদের আগে রাজশাহী থেকে ঢাকামুখী ট্রেনের টিকিটের জন্যও স্টেশনে দীর্ঘ অপেক্ষা করতে হচ্ছে। রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাউন্টারের সামনে দাঁড়িয়ে মানুষ টিকিট সংগ্রহ করছেন। তবে এখানে টিকিটের আসল চাপ দেখা যাবে ঈদের পরের ফিরতি ট্রেনের জন্য।

ঈদুল ফিতরেও ঈদের আগে ঢাকামুখী ট্রেনের জন্য স্টেশনে অস্বাভাবিক ভিড় দেখা যায়নি। ঈদের পরের ফিরতি ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হলে ভিড় শুরু হয়। তবে এবার ঈদের আগের ঢাকামুখী ট্রেনগুলোর জন্যই দীর্ঘ লাইন দেখা যাচ্ছে কাউন্টারের সামনে। রাজশাহী থেকে ঢাকামুখী চারটি আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট নিতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

রোববার (৩ জুলাই) দুপুরে গিয়েও কাউন্টারের সামনে দীর্ঘ লাইন দেখা যায়। এবারও ট্রেনের অর্ধেক টিকিট অনলাইনে ও অর্ধেক কাউন্টারে বিক্রি করা হচ্ছে। অনলাইনে সার্ভার জটিলতার কারণে যাত্রীরা ভরসা রাখছেন কাউন্টারেই। এ জন্য তাদের দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে। কেউ কেউ আগের রাতে এসেই লাইনে দাঁড়িয়ে যাচ্ছেন। রাজশাহী স্টেশনে ১ জুলাই ৫ জুলাইয়ের, ২ জুলাই ৬ জুলাইয়ের এবং রোববার ৭ জুলাইয়ের টিকিট দেওয়া হচ্ছিল। দুপুরের পরও কাউন্টারে মিলেছে এসব দিনের টিকিট।

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের ব্যবস্থাপক আবদুল করিম বলেন, ঈদুল ফিতরে ঈদের আগের ট্রেনগুলোর জন্য টিকিটের চাপ থাকে কম। অনেকে ওই ঈদে বাড়ি যান না বলে এটা হয়। কিন্তু ঈদুল আজহায় সবাই বাড়ি গিয়ে কোরবানি করতে চান। সে কারণে এবার ঈদের আগের ট্রেনগুলোর টিকিটেরও চাপ দেখা যাচ্ছে। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টিকিট বিক্রির সময়। দুপুরের পরও এখন ঢাকামুখী ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে।

তিনি জানান, এই স্টেশনে ট্রেনের টিকিটের আসল চাপ দেখা যাবে ৭ জুলাই থেকে। সেদিন থেকে ঈদের পরের ঢাকামুখী ফিরতি ট্রেনের টিকিট দেওয়া হবে। ৭ জুলাই দেওয়া হবে ১২ জুলাইয়ের টিকিট। এরপর ৮ জুলাই ১৩ জুলাইয়ের, ৯ জুলাই ১৪ জুলাইয়ের, ১০ জুলাই ১৫ জুলাইয়ের এবং ১১ জুলাই ১৬ জুলাইয়ের টিকিট দেওয়া হবে।

;

বাসে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় চট্টগ্রাম থেকে আসামি গ্রেফতার



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, লক্ষ্মীপুর
বাসে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় চট্টগ্রাম থেকে যুবক গ্রেফতার

বাসে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় চট্টগ্রাম থেকে যুবক গ্রেফতার

  • Font increase
  • Font Decrease

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে বাসে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় এমরান হোসেন নামে এক আসামিকে গ্রেফতারের পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে। রোববার (৩ জুলাই) দুপুর ২ টার দিকে রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে শনিবার (২ জুলাই) রাত ১ টার দিকে তাকে চট্টগ্রামের ডাবলমুরিং থানা এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবন থেকে গ্রেফতার করা হয়। এমরান রামগঞ্জ পৌরসভার কাজীরখীল গ্রামের আখন্দ বাড়ির বেলাল হোসেনের ছেলে।

পুলিশ জানায়, গত ৩ জুন চাটখিল থেকে নোয়াখালীর পরিবর্তে এক গৃহবধূ ভুলে রামগঞ্জগামী জননী পরিবহনে উঠেন। রামগঞ্জ বাস স্ট্যান্ডে আসলে তিনি বাসের সুপার ভাইজারকে বিষয়টি বলেন। পরে সুপারভাইজার তাকে চট্টগ্রামগামী নীলাচল বাসে বসতে বলেন। এ সুযোগে বাসের সহকারী আজাদ হোসেন ও এমরান হোসেনসহ ৩ জন ওই গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় তার চিৎকারে বাজারের নৈশপ্রহরী মো. শাহজাহান ছুটে আসলে আজাদ ছাড়া অন্য দুইজন পালিয়ে যায়। একপর্যায়ে আশপাশের লোকজনও এগিয়ে আসে। হঠাৎ নৈশপ্রহরী শাহজাহানের বুকে ব্যথা উঠলে হাসপাতাল নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাস সহকারী আজাদকে আটক করে। পরে গৃহবধূ বাদী হয়ে আজাদ ও এমরানসহ ৩ জনের নামে রামগঞ্জ থানায় ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় মামলা দায়ের করেন। পরদিন আজাদকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

এদিকে প্রায় ১ মাস পলাতক থাকার পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রামগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) দিবাকর রায়সহ পুলিশ সদস্যারা চট্টগ্রামের ডাবলমুরিং থানা এলাকায় অভিযানে যায়। সেখানে একটি নির্মাণাধীন ভবন থেকে এমরানকে গ্রেফতার করা হয়।

রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক বলেন, আসামি এমরান দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন। দুপুরে তাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

;