নদী ভাঙনে আশ্রয়হীন ৫০ পরিবারের পুর্নবাসন ব্যবস্থা করলো প্রশাসন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নেত্রকোনা
ছবিঃ বার্তা২৪.কম

ছবিঃ বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

নেত্রকোনার খালিয়াজুরি উপজেলার ধনু নদীর ভাঙনে সর্বস্ব হারিয়ে স্থানীয় চরপাড়া গ্রামের আশ্রয়হীন হয়ে পড়া ৫০টি পরিবারের পুর্নবাসন ব্যবস্থা করে দিয়েছেন প্রশাসন।

আপাতত প্রত্যেকটি পরিবারকে চরপাড়া গ্রামের পাশে সরকারি খাস ভূমিতে চার শতাংশ করে বসতবাড়ির জায়গা দিয়ে পরিবারগুলোকে অস্থায়ীভাবে পুর্নবাসিত করেছে প্রশাসন।

মঙ্গলবার (২ জুন) দিনব্যাপী নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম পরিবারগুলোকে পুর্নবাসনের কার্যক্রমের নেতৃত্ব দেন। এ সময় খালিয়াজুরি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া জব্বার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এএইচএম আরিফুল ইসলাম, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. এরশাদুল আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান সুমন চক্রবর্তীসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে ইউএনও আরিফুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জানান, সম্প্রতি খরস্রোতা ধনু নদীর পানির স্রোতে চরপাড়া গ্রামের ৫০টি পরিবারের ভিটেবাড়ি বিলীন হয়ে যায়। তাই আশ্রয়হীন অসহায় পরিবারগুলোকে আপাতত অস্থায়ীভাবে সরকারি খাস জমি দিয়ে পুর্নবাসনের আওতায় আনা হয়েছে। মাস খানেকের মধ্যে তাদের নামে ওই জমি বরাদ্দ দেয়ারও পরিকল্পনা রয়েছে। যদি এ জমি বরাদ্দ দেয়া না হয়; তবে চরপাড়া গ্রামের পাশে প্রস্তাবিত গুচ্ছগ্রামটি নির্মিত হলে সেখানে তাদেরকে বসতি স্থাপনের ব্যবস্থা করে দেয়া হবে।

ছবিঃ বার্তা২৪.কম

এছাড়া পরিবারগুলোকে সপ্তাহ খানেকের খাদ্য সহায়তাও দেয়া হয়েছে জানিয়ে ইউএনও আরো জানান, খরস্রোতা ও গভীর ধনু নদীতে প্রতিরক্ষা বাঁধ দিয়ে ভাঙন রোধ করা অসম্ভব। তাই প্রায় ৬শ’ পরিবারের গ্রামটিকে রক্ষার জন্য গ্রামের কয়েক কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিম দিকে হাওরে তিন-চার কিলোমিটারের মতো খনন করতে হবে। এ খনন কাজ বাস্তবায়নের জন্য ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসক মহোদয় সংশ্লিষ্ট উপর মহলে লিখিত প্রস্তাবও পাঠিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :