ধর্মের নাম করে অধর্মের কাজ বরদাস্ত করা হবে না: হানিফ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, ধর্মের নামে যারা অধর্মের কাজ করবে, তাদের হাত থেকে ধর্মকে রক্ষা করতে হবে। ধর্মের নাম করে যারাই ভাঙচুর করেছে, এদের ছাড় দেওয়া হবে না।

বুধবার (০৭ এপ্রিল) দুপুর ১২টার দিকে সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে মাহবুব উল আলম হানিফ এসব কথা বলেন। এর আগে সকাল ১০টার পরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল সোনারগাঁও-এর উদ্দেশে যাত্রা করেন।

তিনি বলেন, একজন ধর্ম ব্যবসায়ীকে কেন্দ্র করে যে ঘটনা ঘটেছে। তাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের অফিস ভাঙচুর করা হয়েছে, যুবলীগের নেতার বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়েছে, ছাত্রলীগের নেতার বাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে, সাধারণ মানুষের ওপর অত্যাচার নির্যাতন করা হয়েছে। এই বিষয় পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিতে চাই- ধর্ম ব্যবসায়ী মামুনুল তার স্ত্রীর নাম দিয়ে এখানে এসেছিলেন এবং অনৈতিক কাজে জড়িত ছিলেন বলেই সাধারণ মানুষ তাকে ধরেছে। এই বিষয়টি কেন্দ্র করে তথাকথিত ধর্ম ব্যবসায়ীরা যে ভাঙচুর ও নির্যাতন করেছে। এটার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সকলের নাম ঠিকানার সংগ্রহ করার জন্য আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীদের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, যারা আওয়ামী লীগের অফিসে হামলা করেছে, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বাড়িঘরে হামলা করেছে, মানুষের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা করেছে। হামলার সাথে যুক্তদের পরিচয় সংগ্রহ করুন, বাড়ির ঠিকানা সংগ্রহ করুন, কে কি ব্যবসা সাথে যুক্ত সেগুলো সংগ্রহ করুন, আমরা চাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ শান্তিপূর্ণ পরিবেশ উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকুক। কিন্তু ধর্মের নাম করে অধর্মের কাজ করা, ভাঙচুর করা বরদাস্ত করা হবে না। এই ঘটনার সাথে জড়িত প্রত্যেককেই আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

হামলার শিকার হয়ে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তারা প্রত্যেককে সুনির্দিষ্ট ভাবে মামলা করুন। আমাদের ওপর যে আঘাত করা হয়েছে, এই আঘাতের প্রতিঘাত করা হবে।

সারাদেশে এই ধর্মের নাম দিয়ে, বিএনপি, জামায়াত এবং হেফাজতের নামে যারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করছে, এখন থেকে আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীরা সরকারের পাশে থেকে এই সকল অপশক্তিকে কঠোরভাবে দমন করা হবে। আশা করি আমাদের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হবেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে করোনাকালীন এই দুর্যোগের সময়ে স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে এবং মাস্ক পরিধান করে পুরো জাতিকে করোনার সুরক্ষা দিতে হবে। এবং আগামী দিনে সকল অপশক্তিকে দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে।

আওয়ামী লীগের অফিসে হামলা মানে প্রতিটি নেতাকর্মীদের বাড়িঘরে হামলা করা, এদের কাউকেই ছাড় দেওয়া যাবে না।