করোনাভাইরাস নিয়ে রাজনীতি করছি না: ফখরুল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ছবি: বার্তা২৪.কম

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস একটা মহামারী আকারে ধারণ করেছে। এর সাথে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই। আর রাজনীতি নেই বলে আমরা কি সরকারের দোষ-ত্রুটি ধরে দিতে পারব না? আমরা এ বিষয়ে কিছু বললেই তারা বলবেন, রাজনীতি করবেন না। আমরা করোনাভাইরাস নিয়ে কোনো রাজনীতি করছি না।

বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নয়াপল্টনে এলাকায় করোনাভাইরাস সচেতনতায় লিফলেট বিতরণ কর্মসূচির পূর্বে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দল হিসেবে আমাদের যে দায়িত্ব আমরা সে দায়িত্ব পালন করছি। তাই আজকে আমরা লিফলেট বিতরণ করব। সারাদেশে আমরা আমাদের সমস্ত শাখাগুলোকে বলে দিয়েছি তারা তাদের অবস্থান থেকে সচেতনতা সৃষ্টি করবে এবং আক্রান্ত মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়াবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে বিশ্বের প্রত্যেকটি দেশে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করছে। কিন্তু দুর্ভাগ্য আমাদের দেশে এই ব্যাপারে সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়নি। এটাকে প্রথমে গুরুত্বই দেওয়া হয়নি। তাদের ভাষ্যমতে তিনজন আক্রান্ত হওয়ার পর কিছু কিছু ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আদালতগুলোতে থার্মাল স্ক্যানারের ব্যবস্থা নেই। বিমানবন্দরগুলোতে থার্মাল স্ক্যানার এতটাই অপর্যাপ্ত যে চীনা রাষ্ট্রদূতকে বলতে হয়েছে এখানে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই। অন্যদিকে চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোতে সব রকম সুযোগ সুবিধা তৈরি করা হয়নি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমাদের বক্তব্য তারা অনেক দেরি করে কাজগুলো শুরু করেছে। বিশেষ বর্ষ পালনের কারণে তারা এদিকে নজর দিতে পারেনি। বিশ্বজুড়ে এ ভাইরাস সম্পর্কে খুব বেশি একটা ধারণা নেই। দুর্ভাগ্য যে আমাদের উন্নয়নের ডামাডোল বাজানো হচ্ছে কিন্তু স্বাস্থ্যখাত এতই দুর্বল যে সাধারণ মানুষ স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছে না।

মির্জা ফখরুল বলেন, যেহেতু এই সরকার জোর করে ক্ষমতায় এসেছে, তাই জনগণের কাছে তাদের কোনো জবাবদিহিতা নেই। আর জবাবদিহিতা নেই বলেই স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে এখনো তারা জনগণের সামনে দাঁড়াতে পারছে না।

খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয় তিনি বলেন, তার মুক্তি আজ একটি জাতীয়তা দাবি, গণদাবি। এর সাথে রাজনীতির কোনো প্রশ্ন নেই। মানবিক কারণে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়া একটি জরুরি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

গতরাতে প্রকাশিত হিউম্যান রাইটসের উপর মার্কিন এক প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, সেখানে বেগম খালেদা জিয়ার বিষয়টা অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে দেখা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে বেগম খালেদার বিরুদ্ধে জুডিশিয়াল যে মামলা হয়েছে তা ত্রুটিহীন নয়। এবং সেখানে বলা হয়েছে তার মুক্তির বিষয়টি রাজনৈতিক কারণে বিলম্বিত হচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :