টাই ম্যাচে দিল্লির জয় এবং আম্পায়ারের বড় ভুল!

স্পোর্টস এডিটর, বার্তা২৪.কম
মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ব্যাটে হাফসেঞ্চুরি

মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ব্যাটে হাফসেঞ্চুরি

  • Font increase
  • Font Decrease

শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিল ১৩ রানের। প্রথম  তিন বলে ছক্কা, দুই ও  চার হাঁকিয়ে কিংস এলেভেন পাঞ্জাবকে জয়ের একেবারে কাছে পৌঁছে দিয়েছিলেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। দুদলের স্কোর তখন সমান। জেতার জন্য পরের তিন বলে আর মাত্র একরান চাই। কিন্তু শেষের তিন বলে জাদু দেখান দিল্লির অলরাউন্ডার মার্কাস স্টয়নিস। চতুর্থ বল ডট। পরের দুই বলে দুই উইকেট তুলে নিলেন। ব্যাস ম্যাচ টাই।

সেই টাই ম্যাচের সুপার ওভারে পাঞ্জাব মাত্র দুই রান করে। জবাবে কোন উইকেট না হারিয়ে মাত্র দুই বলেই জয়সূচক তিন রান তুলে নিয়ে ম্যাচ জিতে নেয়।

তবে সমস্যা বাধালো ম্যাচে আম্পায়ারের একটি ভুলে। ম্যাচে পাঞ্জাব যখন জয়ের প্রায় কাছাকাছি তখন আম্পায়ার বড় একটা ভুল করে বসেন। মায়াঙ্ক আগারওয়াল দ্বিতীয় রানের জন্য ছুটেন। কিন্তু সেই ডেলিভারি শেষে লেগ আম্পায়ার নিতিন এক রান শর্টের ঈশারা করেন। তিনি জানান, অপরপ্রান্তের ব্যাটসম্যান ক্রিস জর্ডান রান নেয়ার সময় নাকি পপিং ক্রিজের মধ্যে ব্যাট ছোঁয়াননি। তাই এক রান শর্টের ঈশারা দেন তিনি। ব্যস তাতেই পাঞ্জাবের স্কোর থেকে একটা রান কমে গেল। অথচ পরে রিপ্লেতে দেখা গেল, জর্ডানের ব্যাট ঠিকই পপিং ক্রিজের ভেতরে ছুঁয়ে এসেছিল। আম্পায়ারের সেই ভুলেই শেষ ওভারে ম্যাচ জিততে পাঞ্জাবের টার্গেট দাড়ায় ১৩ রানের। কিন্তু জর্ডানের সেই বৈধ রানকে অবৈধ ঘোষণা না করলে সেই হিসেবটা দাঁড়াতো ১২ রানের। শেষ ওভারের প্রথম তিন বলেই মায়াঙ্ক আগারওয়াল ১২ রান তুলে নিয়েছিলেন। কিন্তু শেষ তিন বলে স্টয়নিচ দুর্দান্ত বোলিংয়ে ম্যাচে ফেরান দিল্লিকে। ম্যাচ টাই করেন। পরে সুপার ওভারে ম্যাচ জিতে নিল দিল্লি।

ম্যাচ শেষে দিল্লি ম্যাচ রেফারির কাছে আম্পায়ারের সেই ভুলের জন্য রিপোর্ট করেছে। কিন্তু তাতে যে ম্যাচের ফল বদল হওয়ার আর কোন সম্ভাবনা নেই। খুব বেশি হলে এখন শাস্তিটা জুটবে কেবল ম্যাচে সেই ভুল করা আম্পায়ার নিতিনের।

উভয় দলের করা ১৫৭ রানের সমান স্কোরের টাই ম্যাচ শেষে সুপার ওভারে দিল্লির জয়ের চেয়ে আম্পায়ারের ভুলটাই এখন বেশি আলোচনা ছড়াচ্ছে। পাঞ্জাব এই ম্যাচে হারের জন্য আম্পায়ারের এই ভুলকেই দায়ী করছে। আম্পায়ার সেই বৈধ রানকে ভুল করে অবৈধ ঘোষণা না করলে তো এই ম্যাচ শেষ ওভারের প্রথম বলে পাঞ্জাবই জিতে নিত।