নিউইয়র্কের টেনিস কোর্ট এখন হাসপাতাল

স্পোর্টস এডিটর, বার্তা২৪.কম
বাতিল হতে যাচ্ছে উইম্বলডন চ্যাম্পিয়নশিপস, ছবি: সংগৃহীত

বাতিল হতে যাচ্ছে উইম্বলডন চ্যাম্পিয়নশিপস, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

এই দুর্যোগে এখন লড়াইয়ের সময়। এখন খেলার সময় না। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে এই লড়াইয়ে লড়ছে খেলার জগতের তারকারাও। সেই সঙ্গে খেলার মাঠ, স্টেডিয়াম এখন অস্থায়ী হাসপাতালে রূপ নিয়েছে। নিউইয়র্কের বিখ্যাত টেনিস স্টেডিয়াম ফ্ল্যাসিং মিডো এখন করোনাভাইরাস মোকাবেলায় হাসপাতালে পরিণত হয়েছে। করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রের মতো নাজুক অবস্থায় আছে যুক্তরাজ্যও। দেশটিতে বর্তমানে যা পরিস্থিতি তাতে জুনে অনুষ্ঠিতব্য উইম্বলডন টেনিসও বাতিল হয়েছে।

টেনিস ডট কম জানিয়েছে- ফ্ল্যাসিং মিডোর বিলি জিন কিংয়ের জাতীয় টেনিস সেন্টারের ইনডোর ট্রেনিং সেন্টারের পুরোটা এখন ৩৫০ শয্যার অস্থায়ী হাসপাতাল। লুইস আর্মস্ট্রং স্টেডিয়ামও হাসপাতালের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। সামনের এক সপ্তাহের মধ্যে এই হাসপাতালের কাজ পুরোপুরি সম্পন্ন হবে।

বুধবার, উইম্বলডনের আয়োজক অল ইংল্যান্ড লন টেনিস ক্লাবের কর্তারা এক জরুরি সভায় বসেন। সেই সভায় এই বছরের উইম্বলডনের ভাগ্য নির্ধারিত হয়। করোনাভাইরাস নিয়ে বেসামাল যুক্তরাজ্যে প্রতিদিনই মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। ইংল্যান্ড জুড়ে লকডাউন চলছে। এমন পরিস্থিতিতে দু’মাস পরেও উইম্বলডন টেনিস শুরুর সম্ভাবনা শেষ। উল্লেখ্য দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এবারই প্রথম বাতিল হলো উইম্বলডন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ফ্রান্স ইতোমধ্যেই ফ্রেঞ্চ ওপেন স্থগিত করেছে। চলতি বছর ২৪ মে থেকে ৭ জুন পর্যন্ত ফ্রেঞ্চ ওপেন শুরুর কথা ছিল। আয়োজকরা আপাতত এই টুর্নামেন্ট পিছিয়ে ২০ সেপ্টেম্বরে নিয়ে গেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :