হোয়াটসঅ্যাপে দুর্বলতার ফাঁদ, শত্রুতা করে বন্ধ করতে পারবে অ্যাকাউন্ট



মহিউদ্দিন আহমেদ, কন্ট্রিবিউটার এডিটর, বার্তা২৪.কম
ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সম্প্রতি বিনামুল্যের মেসেজিং অ্যাপ হোয়াটসঅ্যাপের বড় একটি দুর্বলতার বিষয় সবার সম্মুখে উন্মোচিত হয়ে পড়েছে। যার কারণে যথেষ্ট উদ্বিগ্নের সাথে দিন কাটাচ্ছে অনেক ব্যবহারকারী। কিন্তু এই রিপোর্ট প্রকাশ হওয়া পর্যন্ত বিষয়টি সমাধানে কোন কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ করেনি ফেসবুক ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হোয়াটসঅ্যাপ।

ফাঁস হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ দুর্বলতার সবচেয়ে ভয়ংকর বিষয় হলো এই ফাঁদ ব্যবহার করে একজন হ্যাকার যে কোন হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট ধারীর অ্যাকাউন্ট তার অনিচ্ছা সত্বেও সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ করে দিতে পারবে। এমনটি কারো সাথে ঘটলে সেই ব্যবহারকারীকে অ্যাকাউন্ট উদ্ধার করার জন্য একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করা ছাড়া আর কোন গত্যন্তর নেই।

বিষয়টি কিভাবে কাজ করে এবার চলুন সেটা দেখি। ধরুন একজন শত্রুতা:বশত অন্য কারো অ্যাকাউন্ট বন্ধ করতে চাচ্ছে। সেক্ষেত্রে সে নতুন একটি মোবাইলে যার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করতে চাচ্ছে তার নাম্বারটি বারবার প্রবেশ করাবে এবং ভেরিফাই করার জন্য কোড পাঠাবে। কিন্তু সঙ্গত কারণেই সে অ্যাকাউন্টটি ভেরিফাই করতে পারবে না। কারণ মোবাইল তো তার কাছে নেই। যার কাছে মোবাইল তার কাছে বার বার কোড যাবে। কিন্তু যেহেতু একাধিক বার এই ব্যর্থ চেষ্টা করা হবে তাই হোয়াটসঅ্যাপ ১২ ঘন্টার জন্য অ্যাকাউন্টে লগইন বন্ধ করে দিবে।

এবার শত্রু পক্ষ হোয়াটসঅ্যাপের সেই দুর্বলতাকে কাজে লাগাবে। তারা হোয়াটসঅ্যাপে তাদের ইমেইল এড্রেস থেকে মেইল করে জানাবে যে তার মোবাইল ফোনটি হারিয়ে গেছে বা চুরি হয়ে গেছে। তাই উক্ত মোবাইল নাম্বারের সাথে সংযুক্ত হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টটি যেন বন্ধ করে দেয়া হয়। এর বিপরীতে হোয়াটসঅ্যাপ শুধু মাত্র একটি রিপ্লাই ইমেইল দিয়ে বিষয়টি ভেরিফাই করে সোজা অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দিবে। অথচ ব্যবহারকারী অ্যাকাউন্ট বন্ধের বিষয়ে কিছুই জানবে না তাৎক্ষনিকভাবে।

কারো ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট বন্ধের এমন একটি ফাঁদ বন্ধের বিষয়ে এখনো কোন কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় একজন ব্যবহারকারী মন্তব্য করেছেন, এই ত্রুটিটি ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা জাকারবার্গের হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টের ওপর প্রয়োগ করা উচিত। কারণ এখন তো হ্যাকিং সাইটে তার ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বার পাওয়া যাচ্ছে। এর ফলে তার প্রতিষ্ঠান যদি এসব বিষয় দ্রুত সমাধান করার দিকে মনে দেয়।