কল ড্রপ: এক বছরে গ্রাহকদের ১৮.৫০ কোটি টাকার ক্ষতি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মোবাইল ফোন ব্যবহারে গ্রাহকদের ভোগান্তি কমছেই না। বরং দিন দিন তা বেড়েই চলেছে। এতে গ্রাহকরা যেমন হয়রানির শিকার হচ্ছেন, তেমনি আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন । কথা বলার সময় গত ১২ মাসে ৫২ দশমিক ৫৯ কোটিবার কল কেটে যাওয়ার (কল ড্রপ) শিকার হয়েছেন দেশের মোবাইল ফোন গ্রাহকেরা।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, এতে মোবাইল ফোনের গ্রাহকদের প্রায় ১৮ দশমিক ৫০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। কল ড্রপ তখনই ঘটে যখন কোনও মোবাইল ফোন অপারেটরের সিগন্যাল দুর্বল থাকে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) কর্তৃক টেলিকম পরিষেবার গুণমান মূল্যায়নের জন্য গঠিত কমিটির সাম্প্রতিক প্রতিবেদন অনুসারে, ২০২০-২১ অর্থবছরে গ্রাহকরা ৫২ দশমিক ৫৯ কোটিবার কল ড্রপের শিকার হয়েছেন। কল ড্রপ হলে গ্রাহককে ফ্রি টকটাইম দেওয়ার কথা মোবাইল ফোন অপারেটরদের। কিন্তু টেলিকম কোম্পানিগুলো তা দিচ্ছে না। এর মাধ্যমে তারা কমিশনের ২০১৬ সালের নির্দেশনা লঙ্ঘন করছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অপারেটররা প্রতি তিন থেকে সাত মিনিটের কল ড্রপের জন্য গ্রাহককে এক মিনিট ফ্রি টকটাইম দিচ্ছেন। সে হিসেবে গ্রাহকের টাকার মাত্র ২২ শতাংশ পরিশোধ করেছে মোবাইল ফোন অপারেটররা। এর মানে হল ৫২ দশমিক ৫৯ কোটিবার কল ড্রপের জন্য মাত্র ১১ দশমিক ৬৬ কোটি মিনিট গ্রাহককে ফ্রি টকটাইম দিয়েছেন তারা। এতে গ্রাহকের ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১৮ দশমিক ৪২ কোটি টাকা। যদি প্রতি মিনিটের সর্বনিম্ন কলচার্জ ০.৪৫ পয়সা ধরা হয়।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, গ্রাহকরা একই নেটওয়ার্কে ৩৭ দশমিক ৬ কোটি মিনিট কল ড্রপের শিকার হয়েছেন, যা অন-নেট কল নামে পরিচিত। এবং অন্যান্য নেটওয়ার্কে ১৪ দশমিক ৯৯ কোটি মিনিট, যা অফ-নেট কল নামে পরিচিত। প্রতিবেদন অনুসারে, অপারেটররা গ্রাহকদের অন-নেট কলের জন্য শুধুমাত্র কল ড্রপের অর্থ পরিশোধ করেছেন।

বিটিআরসি কল ড্রপের প্রধান কারণ হিসেবে মোবাইল অপারেটরদের ফাইবার অপটিক ক্যাবলের সঙ্গে তাদের টাওয়ার সংযোগ করার ব্যর্থতাকে দায়ী করেছে।

শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন প্রযুক্তিগত ত্রুটির কথা উল্লেখ করে বিটিআরসিকে গত অর্থবছরের জুলাই ও আগস্ট মাসের অফ-নেট কল ড্রপের ডেটা সরবরাহ করেছে। রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক প্রযুক্তিগত সক্ষমতার অভাবের কারণে কোনও তথ্য দিতে পারেনি।

গ্রামীণফোন এখনও পর্যন্ত তার বেস ট্রান্সসিভার স্টেশনের (বিটিএস) মাত্র ১২ শতাংশ ফাইবার অপটিক ক্যাবলে সংযুক্ত করতে সক্ষম হয়েছে। রবি ১৮ শতাংশ এবং বাংলালিংক ১৩ শতাংশ করতে সক্ষম হয়েছে।

টেলিটক কমিটিকে জানিয়েছে, তাদের ৬০ শতাংশ টাওয়ার ফাইবার অপটিক ক্যাবলের সঙ্গে সংযোগ করা হয়েছে।

গত ২২ সেপ্টেম্বরের বৈঠকে কমিশন সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে গ্রাহকদের তাদের প্রাপ্য মিনিটের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে অপারেটরদের। এর জন্য মিনিটের কোনও উচ্চসীমা নির্ধারণ করা যাবে না। কল ড্রপের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রাহকদের টক-টাইম ফেরত দিতে হবে এবং তাদের এসএমএসের মাধ্যমে অবহিত করতে হবে। সভায় গ্রাহকরা এই টকটাইম ব্যবহার করার জন্য ৩০ দিন সময় পাবেন বলে সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় আরও বলা হয়, টেলিটক তিন মাসের মধ্যে কল ড্রপের ডেটা সংগ্রহের প্রযুক্তিগত সক্ষমতা অর্জন করা এবং সেই অনুযায়ী গ্রাহককে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

রবির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার শাহেদ আলম সম্প্রতি বলেছেন, আমাদের আন্তরিক এবং নিরলস প্রচেষ্টা সত্ত্বেও কল ড্রপের ঘটনা ঘটেছে। যা টেলিযোগাযোগ খাতের একটি নিয়মিত বৈশিষ্ট্য। তবে, আমরা গ্রাহকদের কল ড্রপের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নিয়ম কঠোরভাবে অনুসরণ করি।
বিটিআরসির কোয়ালিটি অব সার্ভিস প্যারামিটার অনুসারে, ২ শতাংশ কল ড্রপ ওয়্যারলেস নেটওয়ার্কে গ্রহণযোগ্য, যা আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের মানদণ্ডের সাথেও সঙ্গতিপূর্ণ।

রবির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার শাহেদ আলমের মতে, গত এক বছরে রবির কল ড্রপ মোট কলের ০.৭ শতাংশ থেকে ০.৮ শতাংশ।

বাংলালিংকের করপোরেট কমিউনিকেশনস অ্যান্ড সাসটেইনেবিলিটির প্রধান অঙ্কিত সুরেকা বলেন, বিটিআরসি কল ড্রপের জন্য ফ্রি টকটাইম চালুর আগেই আমরা গ্রাহকদের টকটাইম দিয়েছি। আমাদের এ ব্যবস্থা এখনও অব্যাহত রয়েছে। এ বিষয়ে আমরা কমিটিকে নিয়মিত রিপোর্ট করছি।

তবে গ্রামীণফোন এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

মোবাইল অপারেটরদের ন্যাশনাল ট্রেড অর্গানাইজেশন অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশের (এমটব) সেক্রেটারি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফরহাদ বলেছেন, লিফট, উঁচু ভবন, ভ্রমণের সময় বা আবহাওয়া খারাপ থাকলে কল ড্রপ হতে পারে।

তিনি জানান, এখন থেকে মোবাইল অপারেটররা সম্প্রতি কেনা স্পেকট্রাম ব্যবহার করবে। এর ফলে কল ড্রপের সমস্যা দূর হবে বলে তিনি মনে করছেন।

বাজারে এলো ইনফিনিক্সের সেরা বাজেট গেমিং স্মার্টফোন ‘হট ১২’



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মাত্র ১৬ হাজার টাকারও কম মূল্যের সেরা বাজেটের এই গেমিং স্মার্টফোনে রয়েছে ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট সম্বলিত ডিসপ্লে, হেলিও জি৮৫ গেমিং প্রসেসর এবং ১১জিবি র‌্যাম+১২৮জিবি রম এর অসধারণ সমন্বয়; যেটি নিঃসন্দেহে লুফে নেবেন গেমিংভক্তরা।

ঢাকা, বাংলাদেশ- ১৭ মে, ২০২২:

জনপ্রিয় মোবাইল নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইনফিনিক্স আজ ব্র্যান্ডটির হট সিরিজের স্মার্টফোনের সর্বশেষ সংস্করণ ‘হট ১২’ বাজারে এনেছে। গ্রাহকদের কাঙ্ক্ষিত এই ডিভাইসে থাকছে হেলিও জি৮৫ প্রসেসর, ৯০ হার্টজের ৬.৮২” ইঞ্চি ‘প্রো-লেভেল পাঞ্চ হোল’ ডিসপ্লে, ১১জিবি র‌্যাম+১২৮জিবি রম এবং ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সুবিধাসম্পন্ন ৫০০০এমএএইচ টেকসই ব্যাটারি। বাহারি এই মোবাইল ফোনের নান্দনিক ‘স্ট্রেইট-এজ’ ডিজাইন প্রথম দেখাতেই স্মার্টফোনপ্রেমীদের মন কেড়ে নেবে।

‘হট ১২’ ডিভাইসটিতে মিডিয়াটেক জি৮৫ গেমিং চিপসেট এর সাহায্যে নির্বিঘ্নে ‘হাই ফ্রেম’ রেট এর গেম খেলা যায় এবং এতে ‘রেসপন্স টাইম’ও কম লাগে ও গেমিং কমিনিউকেশন দ্রুততর হয়। এই স্মার্টফোনের চিপসেটে রয়েছে ‘ডুয়েল কোর ফ্ল্যাগশিপ সিপিইউ আর্কিটেকচার’, ২টি  ‘ফাস্ট এআরএম কর্টেক্স-এ৭৫ কোর’, যেগুলো সর্বোচ্চ ২ গিগাহার্টজ পর্যন্ত পারফরম্যান্স বাড়াতে সক্ষম ও আরো আছে ৬টি স্মল এআরএম কর্টেক্স-এ৫৫ কোর এবং এগুলো ১.৮ গিগাহার্টজ পর্যন্ত পারফরম্যান্স বাড়াতে পারে। মোবাইলটির এই মাল্টিপ্রসেসিং ফিচার প্রয়োজনে একসঙ্গে আটটি কোর-কেও পারফরম্যান্সের জন্য কাজে লাগাতে সক্ষম। তাই এই স্মার্টফোনের মাধ্যমে দ্রুতগতির ও ভারী গেমিং এর অসাধারণ অভিজ্ঞতা উপভোগ করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।

মোবাইলের ১২৮জিবি+৬জিবি’র মেমোরি এবং র‌্যাম ফিচার প্রয়োজন অনুসারে গ্রাহকদের একাধিক এপ্লিকেশন ব্যবহারের সুযোগ করে দেয় এবং পারফরম্যান্সের কোনো ঘাটতি ছাড়াই একটি থেকে অন্য অ্যাপ ব্যবহার করা যায়। অধিকন্তু, ইনফিনিক্সের নিজস্ব প্রযুক্তিতে উদ্ভাবিত ‘র‌্যাম ফিউশন টেকনোলজি’ ব্যবহার করে ‘হট ১২’ গ্রাহকরা বর্ধিত ৫জিবি র‌্যাম (সর্বোচ্চ ১১জিবি পর্যন্ত সমন্বিত র‌্যাম) ব্যবহারের সুযোগ পাবেন; এতে ব্যাকগ্রাউন্ড  ‘ক্যাশড অ্যাপ্লিকেশন’ সক্ষমতার সংখ্যা তিন থেকে ৯টি পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে এবং শীর্ষ ২০টি অ্যাপের ‘অ্যাভারেজ লঞ্চ টাইম’-এ সময় কম লাগবে ১০ থেকে ১৫ শতাংশ। স্মার্টফোনের বাড়তি স্টোরেজ সুবিধা এবং বর্ধিত ১১জিবি র‌্যাম নিঃসন্দেহে ব্যবহারকারীদের দিবে গেমিং এর ব্যতিক্রমী অভিজ্ঞতা।

এই ডিভাইসের ৬.৮২” ইঞ্চির ৯০হার্টজ ‘প্রো-লেভেল ই-স্পোর্টস সিল্কি-স্মুখ স্ক্রিন’ গেমিং ও দরকারি অ্যাপগুলো ব্যবহারের জন্য নির্দ্বিধায় একটি আদর্শ ফোন। মোবাইলটির ১৮০হার্টজ টাচ স্যাম্পলিং রেট সম্পন্ন ডিসপ্লে তাৎক্ষণিকভাবে কার্যকরী এবং সহজেই হাই ফ্রেম রেট সামলিয়ে গ্রাহকদের ধারাবাহিক গেমিং এক্সপেরিয়েন্স দিতে সক্ষম।

ইনফিনিক্স ‘হট ১২’তে আরো আছে ‘হাই-ডেনসিটি’র ৫০০০এমএএইচ এর ‘বিগ ম্যাক’ ও বৃহৎ সক্ষমতার ব্যাটারি এবং এর ফলে গ্রাহকরা দিনভর দরকারি অ্যাপগুলো ব্যবহার ও গেমস খেলতে পারবেন। এছাড়া, ডিভাইসের টাইপ-সি ১৮ ওয়াট সুপারচার্জ ব্যবস্থা ৫০ মিনিটেই স্মার্টফোনের ৫০ শতাংশ চার্জ  পূরণে সক্ষম। এছাড়া, আল্ট্রা-পাওয়ার মুডে ৫ শতাংশ চার্জেও ম্মার্টফোনটি ২.৬ ঘণ্টা ব্যবহার করা যায়। তাই দুশ্চিন্তা ছাড়াই দীর্ঘক্ষণ মোবাইলে গেমস-এ মগ্ন থাকতে পারবেন ইনফিনিক্সভক্তরা। ইনফিনিক্সের নিজস্ব প্রযুক্তিতে উদ্ভাবিত ‘ব্যাটারি-লাস্টিং’ টেকনোলজি এক ক্লিকেই ব্যাটারির স্থায়িত্ব ২৫ শতাংশ বাড়াতে সক্ষম।

দৃষ্টিনন্দন ‘স্ট্রেইট-এজ’ ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন ডিজাইন-এর কারণে ৩এমএম ইনফিনিক্স ‘হট ১২’কে দেখতে আরো আকর্ষণীয় দেখায়। পাশাপাশি ‘অ্যাঙ্গুলার এক্সটেরিয়র’-এ আলোর প্রতিফলন এটির সৌন্দর্য আরো বহুগুণে বাড়িয়ে দেয়। ব্যবহারকারীদের মানসম্পন্ন অডিও অভিজ্ঞতা দিতে ‘হট ১২’-এ রয়েছে ‘আপগ্রেডেড ডুয়েল আপার অ্যান্ড লোয়ার স্পিকার’। এই স্পিকার সিস্টেম গ্রাহকদের গান শোনা, ভিডিও দেখা ও গেম খেলার ক্ষেত্রে  ‘ডিপ লো’স’, ‘ক্লিয়ার মিড’স’, ‘রিচ ক্রিপ হাউ’স’ সম্পন্ন সর্বোচ্চ মানের অডিও সার্ভিস প্রদান করবে।

এই মোবাইলে আরো রয়েছে, ৮ মেগাপিক্সেল এআই ফ্রন্ট ক্যামেরা ও ১৩ মেগাপিক্সেল এআই ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা এবং শক্তিশালী ইমেজ অ্যালগরিদম ফিচার; এতে করে গ্রাহকরা ‘হট ১২’ ব্যবহার করে মনোমুগ্ধকর ছবি তুলতে সক্ষম হবেন। ডিভাইসে আরো আছে ‘এআই পোট্রেট মুড’ যেটি প্রতিটি স্ন্যাপ তুলে যত্নের সঙ্গে।

স্মার্টফোনের ‘এক্সওএস’ ১০ অপারেটিং সিস্টেম ব্র্যান্ড-নিউ ডিজাইন ও গতিশীল দৃশ্যের শৈল্পিকতায় ‘আর্টিস্টিক ক্রোমাটিক অ্যাবেরেশন’ এর মাধ্যমে  নতুন নতুন সব অ্যাপ্লিকেশন এর সমন্বয়ে গ্রাহকদের স্মার্ট লাইফস্টাইল পেতে সাহায্য করে। এছাড়া, এক্সঅ্যারেনা গেমিং অ্যাপ্লিকেশনগুলোকে সমন্বয় করে গ্রাহকদের দেয় সেরা গেমিং পারফরম্যান্স। আরো সহজে ফিচারগুলো ব্যবহার করতে স্মার্টফোনে রয়েছে একটি  ‘কুইক সেটিংস’ ফিচার। এর ফলে গেমিং সেশন চলাকালে ‘অপ্রয়োজনীয় মেসেজ’ মিউট করা যায়। এক বাক্যে বলা যায়, এই স্মার্টফোনে ডার-লিংক ও গেমিং অপ্টিমাইজেশন অ্যালগরিদম ব্যবহারকারীদের গেমিং এর যে অবিশ্বাস্য অভিজ্ঞতা দিচ্ছে, তা এই দামের অন্য মোবাইল সেটে পাওয়া অসম্ভব।

বিশেষ তিনটি রঙ-‘রেসিং ব্ল্যাক’, ‘লিজেন্ড হোয়াইট,’ এবং ‘অরিজিন ব্লু’তে গ্রাহকরা পেতে পারবেন এই স্মার্টফোনটি। মোবাইলটির ৪জিবি(+৩জিবি) /১২৮জিবি র‌্যাম ভ্যারিয়েন্টের দাম ধরা হয়েছে ১৪,৪৯৯ টাকা ও ৬জিবি(+৫জিবি) /১২৮জিবি র‌্যাম ভ্যারিয়েন্টের দাম পড়বে ১৫,৬৯৯ টাকা। 

‘হট ১২’ ছাড়াও মোবাইল ব্যবহারকারীদের একইসঙ্গে আরো একটি রোমাঞ্চকর স্মার্টফোন উপহার দিচ্ছে ইনফিনিক্স। নতুন এই ‘হট ১২ প্লে’ ডিভাইসে রয়েছে ইউএসবি টাইপ-সি চার্জ সম্বলিত ৬০০০এমএএইচ ব্যাটারি। ফলে সকাল-সন্ধ্যা কোনো রকম ভাবনা ছাড়াই স্মার্টফোনটি ব্যবহার করা যাবে। এই মোবাইলে আরো রয়েছে স্বতন্ত্র ‘পাওয়ার ম্যারাথন ফিচার’, যেটি ব্যবহার করে এক ক্লিকেই ‘ব্যাটারি লাইফ’ ২৫% বৃদ্ধি করা যায়। এই ফোনের অক্টা কোর ২.৩গিগাহার্টজ গেমিং প্রসেসর আরো দিবে দ্রুত গেমিং ও নির্বিঘ্ন টেলিকম সংযোগ এর নিশ্চয়তা। ‘হট ১২ প্লে’ বাজারে পাওয়া যাবে দুটি ভ্যারিয়েন্টে; ৪জিবি(+৩জিবি) /১২৮জিবি র‌্যাম ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যাবে ১৩,৫৯৯ টাকায় এবং ৪জিবি(+৩জিবি) /৬৪জিবি র‌্যাম ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যাবে ১২,৫৯৯ টাকায়।

;

টুইটার কেনার ৪৪ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি স্থগিত করলেন মাস্ক



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

স্পাম আর ভুয়া অ্যাকাউন্টের কারণে ৪৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে টুইটার কিনে নেওয়ার চুক্তি স্থগিত করেছেন টেসলার কর্ণধার ইলন মাস্ক। হঠাৎ করেই শুক্রবার তিনি টুইটারের সঙ্গে করা এই সাময়িক স্থগিত চুক্তি করেন।

স্পাম আর ভুয়া অ্যাকাউন্টের কারণে এই চুক্তি স্থগিত করেছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

মাস্ক নিজেই এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, স্প্যাম/জাল অ্যাকাউন্ট প্রকৃতপক্ষে ৫ শতাংশ এরও কম ব্যবহারকারীর প্রতিনিধিত্ব করে এমন হিসাব সমর্থন করে টুইটার চুক্তি সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে।

এদিকে মাস্কের এই ঘোষণার পর প্রিমার্কেট ট্রেডিংয়ে টুইটারের শেয়ার ২০ শতাংশ কমেছে।

এর আগে এপ্রিল মাসের শেষের দিকে মার্কিন ধনকুবের মাস্কের কাছেই ৪ হাজার ৪০০ কোটি মার্কিন ডলারে  টুইটার বিক্রি করে দেওয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ।

;

চলতি বছরই কমবে কলড্রপ: মোস্তাফা জব্বার



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
চলতি বছরই কমবে কলড্রপ: মোস্তাফা জব্বার

চলতি বছরই কমবে কলড্রপ: মোস্তাফা জব্বার

  • Font increase
  • Font Decrease

কলড্রপ কমিয়ে আনতে সম্প্রতি মোবাইল ফোন অপরাটেরদের ১৯০ মেগাহার্টজ অতিরিক্ত তরঙ্গ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেছেন, অতিরিক্ত তরঙ্গ ব্যবহার করলে অপারেটরদের সেবার মান বাড়বে। ফলে এ বছরের মধ্যেই মোবাইল ফোনের কলড্রপ কমে আসবে।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশে অন্তর্ভুক্তিমূলক ডিজিটাল অর্থনীতিতে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অবদানবিষয়ক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

আন্তর্জাতিক সংস্থা ‘অ্যালায়েন্স ফর অ্যাফোর্ডেবল ইন্টারনেট’ এ সভার আয়োজন করে।

মন্ত্রী বলেন, সারা দেশে দ্রুতগতির ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগের পাশাপাশি দক্ষ মানবসম্পদ তৈরি এবং ডিজিটাল সংযোগ সহজলভ্য করতে কাজ করছে সরকার। এরই মধ্যে দেশের প্রায় প্রতিটি ইউনিয়নে উচ্চগতির ব্রডব্যান্ড নেটওয়ার্ক চালুর পাশাপাশি ৯৮ শতাংশ এলাকায় ৪–জি নেটওয়ার্ক পৌঁছে গেছে।

শুধু তা–ই নয়, দেশে স্যামসাংসহ ১৪ ব্র্যান্ডের মোবাইল ফোন তৈরি হচ্ছে, যা চাহিদার ৭০ শতাংশ পূরণ করছে বলে জানান মোস্তফা জব্বার।

;

ইমোর রিওয়ার্ড ক্যাম্পেইনে নতুন অফার



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ইমোর রিওয়ার্ড ক্যাম্পেইনে নতুন অফার

ইমোর রিওয়ার্ড ক্যাম্পেইনে নতুন অফার

  • Font increase
  • Font Decrease

তাৎক্ষণিক যোগাযোগে জনপ্রিয় মেসেজিং অ্যাপ ‘রিওয়ার্ড ক্যাম্পেইন’ চালু করে। এই ক্যাম্পেইনের আওতায়, যেসব ইমো ব্যবহারকারীরা অন্যদের ইমো ডাউনলোড করতে ইনভাইট করে সফল হবেন, তাদের জন্য থাকছে মোবাইল ডেটা প্যাক। গত ০৭ই মে থেকে এ ক্যাম্পেইনের আওতায় ইমো আপগ্রেডেড রিওয়ার্ড অফার নিয়ে এসেছে, যেখানে প্রতিটি সফল ইনভাইটেশনের জন্য থাকছে তিন দিনের মেয়াদে ৫১২ মেগাবাইটের প্যাক। তবে, এ আপগ্রেডেড ক্যাম্পেইনের আওতায় থাকছে শুধুমাত্র দশ হাজার প্যাক। বর্তমানে, যেসব ইমো ব্যবহারকারীরা গ্রামীণফোন মোবাইল নম্বর দিয়ে ইমো অ্যাকাউন্ট খুলেছেন কেবল তারাই এই ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

অন্যদের ইমো ডাউনলোড করতে ইনভাইট করার পর ইনভাইটেশনপ্রাপ্ত গ্রাহকরা ইমো ডাউনলোড করলে, প্রতিটি সফল ইনভাইটেশনের জন্য ইমো ব্যবহারকারী বিনামূল্যে মোবাইল ডেটা প্যাক পাবেন। এই ডেটা প্যাকের পরিমাণ সফল ইনভাইটেশনের সাথে বৃদ্ধি পাবে। বাজারের অন্যান্য অ্যাপের তুলনায় ৩০ শতাংশ পর্যন্ত বেশি ডেটা সাশ্রয়ের সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে ইমো ব্যবহারকারীরা কম খরচে আরও বিভিন্ন সেবা উপভোগ করতে পারবেন।

ব্যবহারকারীরা যাতে কোনো চিন্তা ছাড়াই নির্বিঘ্নে ডিজিটাল কানেকশন উপভোগ করতে পারেন সেজন্য ইন্টারনেট ব্যবহার সহজলভ্য এবং স্বাচ্ছন্দ্যদায়ক করে তুলেছে ইমো। বিনামূল্যে পাওয়া এই ডেটা প্যাক ব্যবহার করে ব্যবহারকারীরা যেকোনো সময় ঝামেলাহীনভাবে ভিডিও কল বা ইনস্ট্যান্ট মেসেজ (আইএম) ফিচারের মাধ্যমে একে অপরের সাথে তাৎক্ষণিকভাবে যোগাযোগ করতে পারবেন! অ্যাপের নির্দেশনাসমূহ সঠিকভাবে অনুসরণ করে অন্যদের ইনভাইট করার মাধ্যমে যেকোনো ইমো ব্যবহারকারী (যাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য) ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণ করে এই অসাধারণ সুযোগটি উপভোগ করতে পারবেন।

;