ইন্দোনেশিয়ায় ১৬ ভাষায় কোরআন অনুবাদ

ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ইন্দোনেশিয়ায় ১৬ ভাষায় কোরআন অনুবাদ, ছবি: সংগৃহীত

ইন্দোনেশিয়ায় ১৬ ভাষায় কোরআন অনুবাদ, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বের বৃহৎ মুসলিম এবং এশিয়ার অর্থনীতিতে একটি সমৃদ্ধ দেশ ইন্দোনেশিয়া। দেশটির মোট জনসংখ্যা প্রায় ২৬ কোটি। তন্মধ্যে মুসলিম ৮৬%, খ্রিস্টান ৮.৭%, হিন্দু ৩%, বৌদ্ধ ১.৮% অন্যান্য ০.৫%।

ইন্দোনেশিয়ার সরকারি ভাষা বাহাসা হলেও দেশটিতে ৭৪২টি ভাষার প্রচলন রয়েছে। দেশটিতে ব্যাপক সাংস্কৃতিক ভিন্নতা রয়েছে। তবে ধর্ম বিশ্বাসের ক্ষেত্রে তারা বেশ শক্তিশালী।

সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ার ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে সেদেশের ১৬টি স্থানীয় ভাষায় কোরআনে কারিম অনুবাদ করা হয়েছে। শীঘ্রই আরও বেশ কয়েকটি স্থানীয় ভাষায় কোরআন অনুবাদ করা হবে।

এ প্রকল্পের প্রধান মুফতি হামেদ আবেদি গণমাধ্যমকে বলেছেন, ইন্দোনেশিয়ায় স্থানীয়ভাবে অনেক ভাষা রয়েছে। এসব ভাষায় কোরআন অনুবাদ করা খুব একটা সহজ কাজ নয়, তার পরও আমরা ১৬টি স্থানীয় ভাষায় কোরআনে কারিমের অনুবাদ শেষ করে প্রকাশ করতে সক্ষম হয়েছি।

ইন্দোনেশিয়ার ধর্মমন্ত্রী লোকমান হাকিম সেইফুদ্দিন এ প্রসঙ্গে বলেন, স্থানীয় ভাষায় পবিত্র কোরআনের অনুবাদ করা সহজ নয়। খুব সতর্কভাবে কাজ করতে হয়েছে। কারণ প্রতিটি ভাষার প্রতিটি শব্দের পৃথক পৃথক অর্থ রয়েছে। আমাদের বিশেষজ্ঞরা এগুলো তত্ত্বাবধান করেছেন।

তিনি আরও বলেন, প্রত্যেক ভাষায় কোরআন অনুবাদ করার ক্ষেত্রে প্রায় ১ থেকে ২ বছর সময় ব্যয় হয়েছে।

আমরা জানি, কোনো কিছু এক ভাষা থেকে অন্য ভাষায় অনুবাদ করা সহজ কাজ নয়। বিশেষ করে পবিত্র কোরআন অনুবাদ করা। অনুবাদকের একটু ভুলের কারণে আয়াতের অর্থ পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে। এ জন্য অনুবাদকদের ধৈর্যের সঙ্গে অনুবাদ করতে হয়েছে।

বস্তুত কোরআনের অনুবাদ স্বয়ং কোরআন নয়। অনুবাদের মাধ্যমে আরবি ভাষা থেকে অন্য ভাষায় কোরআনের অর্থকে বোঝানো হয়। দেরিতে হলেও স্থানীয় ভাষায় কোরআনের অনুবাদ পেয়ে মুসলমানরা বেশ খুশি।

আপনার মতামত লিখুন :