Barta24

শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বন্ধুর ছুরিকাঘাতে বন্ধুর মৃত্যু

বন্ধুর ছুরিকাঘাতে বন্ধুর মৃত্যু
ছবি: সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম।


  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রামে তুচ্ছ ঘটনার জেরে বন্ধুর উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে অপর বন্ধুর মৃত্যু হয়েছে।বৃহস্পতিবার (১৮এপ্রিল) দুপুর দুইটায় নগরীর রেলকলোলি হামজারবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন অভিযুক্ত ঘাতক ফরহাদ হোসেন (২১)।

নিহত শাহাদাত হোসেন (২২) স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল হালিমের ছেলে।

বায়োজিদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতাউর রহমান খন্দকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বার্তা২৪.কমকে বলেন, দুইজনের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনার নিয়ে ঝগড়া হয়। এর এক পর্যায়ে ফরহাদ বাসা থেকে ছুরি নিয়ে এসে শাহাদাতকে আঘাত করেন। তার চিৎকারে স্থানীয়রা তাকে আহতাবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তবরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দির তালুকদার বার্তা২৪.কমকে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

কোরবানির দিন রাতেই বর্জ্য অপসারণ: মেয়র লিটন

কোরবানির দিন রাতেই বর্জ্য অপসারণ: মেয়র লিটন
কমিটির সভায় বক্তব্য দেন মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

নির্দিষ্ট স্থানে কোরবানির পশু জবাই এবং দ্রুত সময়ে বর্জ্য অপসারণে ব্যাপক উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

তিনি বলেছেন, ‘কোরবানির দিন রাতের মধ্যেই সকল বর্জ্য অপসারণ করা হবে। যাতে ঈদের পরদিন পরিচ্ছন্ন শহর দেখতে পারেন নগরবাসী।’

শনিবার (২০ জুলাই) দুপুরে নগর ভবনের সিটি হল সভাকক্ষে রাজশাহী সিটি করপোরেশন পরিষদের বিশেষ সাধারণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভায় পবিত্র ঈদু আজহা উপলক্ষে নিদিষ্ট স্থানে কোরবানির পশু জবাই সম্পর্কে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভা থেকে নগরবাসীকে নির্দিষ্ট স্থানে পশু জবাই করার আহ্বান জানান মেয়র।

সভাপতির বক্তব্যে মেয়র লিটন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মোতাবেক নির্দিষ্ট স্থানে কোরবানির পশু জবাইয়ের কার্যক্রমটি গত কয়েক বছর থেকে হয়ে আসছে। সারাদেশে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ পরিবেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপন উপলক্ষে ব্যাপক কর্মসূচি গৃহীত হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে নগরীর নির্দিষ্ট স্থানে কোরবানির পশু জবাইকরণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।’

বিগত বছরগুলোতে পরিচ্ছন্নতার এ কাজটি সফলভাবে বাস্তবায়নে রাসিকের পরিচ্ছন্ন বিভাগের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধন্যবাদ জানিয়ে মেয়র লিটন বলেন, ‘ঈদু আজহার দিন পরিচ্ছন্ন বিভাগে কর্মরত সকলের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মচারীরা ঈদের দিন থেকে নিরসলভাবে কাজ করবেন। রাতের মধ্যেই সকল বর্জ্য অপসারণ করা হবে। পরদিন পরিচ্ছন্ন নগরী আমরা দেখতে পাব।’

সভায় আরও বক্তব্য দেন- রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিযাম উল আযীম, ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মোমিন, ১৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহাদত হোসেন শাহু, ১১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম তজু, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাওগাতুল আলম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা শাহানা আখতার জাহান, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন ডলার প্রমুখ।

এফএফডব্লিউসির বাংলা ভার্সনে ইংরেজি

এফএফডব্লিউসির বাংলা ভার্সনে ইংরেজি
এফএফডব্লিউসির বাংলা ভার্সনে ইংরেজি

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের (এফএফডব্লিউসি) ওয়েবসাইটে বাংলা ভার্সনে ঝুলছে ইংরেজি মানচিত্র। পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রতিষ্ঠানটির এই কাজকে দায়িত্বজ্ঞানহীন বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে।

ওয়েবসাইটটিতে তিন ক্যাটাগরির মানচিত্র রয়েছে, একটি হচ্ছে নদী ভিত্তিক, বিভাগ ও জেলা ভিত্তিক মানচিত্র। তিনটি মানচিত্রেই ইংরেজি ভার্সন ঝুলছে। আবার মানচিত্রের উপর ওয়াটার লেভেল স্ট্যাটাসের সাংকেতিক চিহ্নও ঝুলছে ইংরেজিতে।

অর্থাৎ যিনি ইংরেজি জানেন না, এই মানচিত্র তার কোনো কাজেই আসবে। সম্ভবত বাংলাদেশের আর কোনো সরকারি ওয়েবসাইটে এমন অসঙ্গতি কমই রয়েছে। এফএফডব্লিউসির উদ্দেশ্য সম্পর্কে এভাবে লেখা হয়েছে, ”BWDB এর মিশন দেশের পানি সম্পদের টেকসই উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা করা হয়”। এরপর রয়েছে দৃষ্টি, এই পেজে প্রদর্শিত হচ্ছে, ”BWDB দৃষ্টি দেশের পানি  সম্পদের বিকাশ ও পরিচালনা করা হয়”।

বাক্য গঠনে ভুলসহ রাষ্ট্রের গুরুত্বপুর্ণ এই ওয়েবসাইটটিতে আরও অনেক অসঙ্গতি রয়েছে। গুরুত্বপুর্ণ লিংকে ইনস্টিটিউট অব ওয়াটার মডেলিং (IWM) কে ইনস্টিটিউট অফ ওয়াটার মডেলিং লেখা হয়েছে। যৌথ নদী কমিশন (JRC) না লিখে, যৌথ নদী কমিশনের (JRC) লেখা হয়েছে।

শনিবার বেলা তিনটা নাগাদ ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত ফোন নম্বরে (০২ ৯৫৫৩১৮৮) এ কল করলে কেউ সাড়া দেন নি। ঘণ্টা খানেক পরে আবার ফোন দিলেও সেটি শুধু বেজেই যাচ্ছিল কিন্তু কেউ রিসিভ করেন নি। অথচ সারা দেশ এখন বন্যায় কাঁপছে। যখন তাদের সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করার কথা, সক্রিয় থাকার কথা।

দ্বিতীয় ফোন নম্বরে (০২ ৯৫৫০৭৫৫) কল দিলে রিসিভ করেন টিসিও জহিরুল ইসলাম। প্রথম নম্বরটি রিসিভ না করার বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, ওই ফোন সেটটি আসলে নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূইয়া স্যারের রুমে থাকে। আজকে ছুটির দিন হওয়ায় উনি নাই এ কারণে ফোনটি কেউ ধরেন নি।

ওয়েবসাইটে অসঙ্গতির বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে প্রথমে বলেন, আসলে সার্বিকভাবে বিষয়টি সবার জন্য গ্রহণযোগ্য হয়-এমন করা হয়েছে।

তাহলে বাংলা ভার্সনে ইংরেজি কেনো এমন প্রশ্নে প্রথমে নানা রকম ব্যাখ্যা দেওয়ার চেষ্টা করেন। পরে বলেন, আসলে আপনি যে বিষয়টি তুলে ধরেছেন সেটি আসলে সঠিক। তবে এতোদিন কেউ এটা নিয়ে প্রশ্ন তোলে নি। এখন আপনি নজরে আনলেন আমি কর্তৃপক্ষকে জানাবো। সংশোধন করার জন্য।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র