Barta24

রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬

English

নাটোরে একসঙ্গে ৪ সন্তানের জন্ম

নাটোরে একসঙ্গে ৪ সন্তানের জন্ম
বিয়ের ১১ বছরের মাথায় একসঙ্গে চার সন্তানের জন্ম দিলেন নাটোরের এক মা/ ছবি: সংগৃহীত
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
নাটোর


  • Font increase
  • Font Decrease

নাটোরে দাম্পত্য জীবনের ১১ বছরের মাথায় একসঙ্গে চার সন্তানের জন্ম দিয়েছেন শাহিদা বেগম (৩৫) নামে এক মা। স্বাভাবিক প্রসবেই এই চার সন্তানের জন্ম দেন তিনি। বর্তমানে মা ও তার সন্তানরা সুস্থ আছেন।

শনিবার (২৫ মে) দুপুর ১টা ৫৫ মিনিটের দিকে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে এই চার সন্তানের জন্ম দেন শাহিদা বেগম। চার সন্তানের মধ্যে একটি ছেলে ও অন্য তিনটি কন্যা সন্তান।

স্বাভাবিক প্রসবের মাধ্যমে চার সন্তানের জন্ম হওয়ায় বাবা, মা থেকে শুরু করে আত্মীয়স্বজন সবাই খুশি। শাহিদা নাটোরের সিংড়া উপজেলার শেরকোল ইউনিয়নের ভাগনারকান্দি গ্রামের মিলনের স্ত্রী।

শাহিদার পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, প্রায় ১১ বছর আগে বিয়ে হয় শাহিদা আর মিলনের। বিয়ের পর কয়েক বছর পেরিয়ে গেলেও সন্তান না হওয়ায় দুশ্চিন্তায় ছিলেন শাহিদা ও মিলন দম্পতি।

তারপর থেকে সন্তান হওয়ার জন্য ডাক্তারি চিকিৎসার পাশাপাশি পানি পড়া ও কবিরাজী চিকিৎসা, বিভিন্ন জনের পরামর্শে অনেক সময় গাছগাছলিও খেতে হয়েছে শাহিদাকে।

শনিবার সকালে প্রসব বেদনা শুরু হলে শাহিদাকে নেওয়া হয় নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে। সেখানেই স্বাভাবিক প্রসবের মাধ্যমে ভূমিষ্ঠ হয় এই চার সন্তান।

এদিকে এক মা একসঙ্গে চার সন্তানের জন্ম দেওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন বয়সের শতশত নারী-পুরুষ হাসপাতালে গিয়ে ভিড় করেন নবজাতকদের এক নজর দেখার জন্য।

শাহিদার স্বামী মিলন জানান, সকালে তার স্ত্রীর প্রসব ব্যাথা উঠলে তাকে নাটোর সদর হাসপাতালে নিয়ে এসে ভর্তি করেন তারা। পরে দুপুর ২টার দিকে হাসাপাতালের চিকিৎসক ফজলুল কাদিরের তত্ত্বাবধানে শাহিদা একে একে চার সন্তানের জন্ম দেন। পরে চার সন্তান ও মা শাহিদাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক ফজলুল কাদির জানান, শাহিদা একে একে চারটি সন্তান স্বাভাবিকভাবে প্রসব করেন। কিন্তু একসঙ্গে চারটি বাচ্চা হওয়ার কারণে যেকোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত সমস্যা এড়াতে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। মা ও সন্তানরা ভালো আছে।

আপনার মতামত লিখুন :

ডেঙ্গুতে বাস সুপারভাইজারের মৃত্যু

ডেঙ্গুতে বাস সুপারভাইজারের মৃত্যু
মৃত নাজিম উদ্দিন, ছবি: সংগৃহীত

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে নাজিম উদ্দিন নামে এক বাস সুপারভাইজারের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার (১৮ আগস্ট) রাত ৪টা ৪৫ মিনিটে ঢাকার ইউনিভার্সাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। 

নিহত নাজিম উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের গনিপুর গ্রামের মনির মিয়ার বাড়ীর রুহুল আমিনের ছেলে। তিনি ঢাকা-নোয়াখালী রুটের হিমাচল পরিবহনে সুপারভাইজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। 

নিহত নাজিমের চাচা সহিদ উদ্দিন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, বেশ কয়েকদিন যাবৎ গায়ে জ্বর নিয়েও নাজিম ঈদ শেষে মানুষদের কর্মস্থলে পৌঁছানোর জন্য কাজে যায়।

গতকাল বাড়িতে এসে তার শরীরে ভীষণ ব্যথা ও গায়ে প্রচণ্ড জ্বর অনুভব করে। একপর্যায়ে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে দ্রুত স্থানীয় রাবেয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করলে তার ডেঙ্গুর ভাইরাস ধরা পড়ে। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার বেসরকারি ইউনিভার্সাল হাসপাতালের আইসিউতে স্থানান্তর করা হয়।

রোববার সকালে পরিবারের লোকজন তার মরদেহ গ্রামের বাড়ীতে নিয়ে আসে। বিকেলে তাকে পারবিারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

সৈকতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

সৈকতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার
কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়ার কিছুক্ষণ পর রবিউল হাসান (১২) নামের এক স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করেছে লাইফগার্ড ও বিচ কর্মীরা।

রোববার (১৮ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সৈকতের কলাতলী পয়েন্ট থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত রবিউল কলাতলীর ঝিরঝিরি পাড়ার শামসুদ্দিনের ছেলে। সে কলাতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র বলে জানা গেছে।

বিচ কর্মী মাহবুব আলম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান, কলাতলী পয়েন্টে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয় রবিউল। এরপর লাইফগার্ড ও বিচ কর্মীরা উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে। পরে তা সদর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরিদ উদ্দিন খন্দকার বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘মৃতদেহ উদ্ধারের পর কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে আনা হয়। পরবর্তী ব্যবস্থা শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র