ফরিদপুরে বাসায় বাসায় গিয়ে নিত্যপণ্য বিক্রি করছে যুবলীগ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ফরিদপুর
বক্তব্য দিচ্ছেন খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

বক্তব্য দিচ্ছেন খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

  • Font increase
  • Font Decrease

ফরিদপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য ও এলজিআরডি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘সরকার আগামী দুই সপ্তাহ সবাইকে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হতে নিষেধ করেছেন। সরকারের নির্দেশনা মেনে চললে এপ্রিলের মধ্যেই করোনাভাইরাসের কবল থেকে মুক্তি মিলবে বলে আশা করা যাচ্ছে। মানুষকে যাতে বাজারে যেতে না হয় সেজন্য ফরিদপুর শহরের মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্তদের বাসায় বাসায় গিয়ে ন্যায্য মূল্যে নিত্যপণ্য বিক্রি করছে যুবলীগ।’

রোববার (৫ এপ্রিল) দুপুরে ফরিদপুর শহরের বদরপুরে নিজ বাসভবনে এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘করোনাভাইরাসের যে প্রকোপ শুরু হয়েছে তা মোটেই হালকা করে দেখার সুযোগ নেই। বাজারঘাট করতে গিয়ে সামাজিক দূরত্ব না মানলে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। তাই ঘরে থাকুন।’

এই ট্রাকযোগে ফরিদপুর শহর ঘুরে পণ্য বিক্রি করছে যুবলীগ।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে জেলা যুবলীগের সভাপতি এইচএম ফোয়াদ বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে মানুষকে যাতে বাজারে যেতে না হয় সেজন্য আমরা নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী ট্রাকযোগে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বিক্রি করছি। প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে ৩টি ট্রাকযোগে এসব পণ্য বিক্রি হচ্ছে।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ঝরনা হাসান।

উল্লেখ্য, মানুষের বাসায় বাসায় গিয়ে প্রতি কেজি চাল ৩৮ টাকা, ডাল ৭৩ টাকা, সয়াবিন তেল ৯৮ টাকা, আলু ১৯ টাকা, পেঁয়াজ ৩২ টাকা, লবণ ১৫ টাকা, আটা ৩০ টাকা ও ডিম প্রতি হালি ২৪ টাকা দরে বিক্রি করছে যুবলীগ। মুজিব শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে যুবলীগের নেতাকর্মীদের অনুদানের টাকা দিয়ে এসব পণ্য পাইকারি দরে কিনে জনগণের বাসায় বাসায় গিয়ে বিক্রির এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।